fbpx
কলকাতাহেডলাইন

বৃষ্টিমুখর লকডাউন, চলছে ধরপাকড়ও

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্যে আজ জোড়া লকডাউনের দ্বিতীয় দিন। একই সঙ্গে চলছে বৃষ্টির ধারাপাতও। কোথাও একনাগাড়ে হয়ে চলেছে আবার কোথাও দফায় দফায়। ফলে রাস্তায় সেভাবে দেখা যাচ্ছে না আমজনতাকে। আজ শুক্রবারও লকডাউন চলবে সকাল ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত। এদিন সকাল থেকেই জেলায় জেলায় ও কলকাতা শহরের নানা জায়গায় পুলিশের কড়া নজরদারি ছিল। বিনা প্রয়োজনে বেরোলেই চলেছে ধরপাকড়। লকডাউন ভাঙার জন্য ৫৪১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মাস্ক না পরার জন্য ২৭০ জনকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া আইন না মানার জন্য ১৮ জন গাড়ি চালকের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা হয়েছে। বেপরোয়া গাড়ি চালিয়ে পুলিশকে ধাক্কা দেওয়ার জন্য গ্রেফতার হয়েছে ২ জন।

কাল থেকেই কলকাতা ও রাজ্যের বড় বড় শহরের বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে চলছে পুলিশের নজরদারি। একই সঙ্গে সংবেদনশীল এলাকাগুলিতে চলছে মাইকের প্রচার। রাস্তায় নানা জায়গায় গাড়ি আটকে চেকিং করছে পুলিস। আমজনতাকে রাস্তায় দেখা গেলেই প্রশ্ন ছুঁড়ে দিচ্ছেন পুলিশকর্তা ও কর্মীরা। কী কারণে রাস্তা বেরিয়েছেন, কোথায় যাচ্ছেন, এসব কিছু জিজ্ঞাসা করছে পুলিস। উত্তর ঠিকঠাক হলে ও প্রমাণ দেখাতে পারলে ছাড় মিলছে। কিন্তু বেঠিক উত্তর হলে বা এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা হলেই চলছে ধর পাকড়। একই সঙ্গে যাতে দ্রুতগতিতে যাতে কোনও গাড়ি বেড়িয়ে যেতে না পাতে তার জন্য জাতীয় সড়ক ছাড়া সর্বত্রই রাস্তায় বসানো হয়েছে গার্ডরেল। কলকাতা তো বটেই জেলাগুলিতেও রাস্তাঘাট কার্যত শুনশান। বন্ধ বাজারঘাট ও দোকানপাঠও।

 এদিন সকাল থেকেই কখনও ভারী ও কখনও হালকা বৃষ্টি হয়েছে। জরুরি পরিষেবার ছাড় ছিল। পুলিশি টহলদারি ছিল নানা জায়গাতেই। বেহালা থেকে শ্যামবাজার, মধ্য ও উত্তর কলকাতার বিস্তীর্ণ এলাকা ছিল ফাঁকা। গাড়ি দাঁড় করিয়ে পুলিশ মাঝে মাঝেই জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। পরিচয়পত্র দেখতে চাওয়া হয়েছে। দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় কোথাও ভারী বৃষ্টি হচ্ছে কোথাও বা হালকা থেকে মাঝারি। কোথাও দফায় দফায় বৃষ্টি হচ্ছে কোথাও বা একনাগাড়ে। ফলে লকডাউনের মধ্যেও শহরের অলিগলি ও পাড়ার মধ্যে যে জটলা ও আড্ডার ঠেক দেখা যায় তা এই দুইদিনই অমিল। ফলে পুলিশ ও প্রশাসনকে খুব একটা বেগ পেতে হচ্ছে না লকডাউন সফল করতে। নাগাড়ে বৃষ্টিই কার্যত রাজ্যবাসীকে ঘরের ভিতরে পুরে রেখে দিয়েছে। তবে রাজ্যে এখন সংক্রমণের যা অবস্থা তাতে প্রশাসনের অনেক কর্তাব্যক্তিই মনে করছেন পুজোর আগে পর্যন্ত এই ভাবে দফায় দফায় আরও বেশ কয়েকবার জোড়া লকডাউন ফেলে দিতে পারে রাজ্য প্রশাসন।

আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারালেন কলকাতা পুলিশের সহকারী কমিশনার

বিধাননগরে লকডাউন ভাঙার জন্য গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৩৩ জনকে। গাড়ি বাজেয়াপ্ত ১২টি। বৃহস্পতিবার পুলিশ অনেক জায়গাতেই মাস্ক না-‌পরা অবস্থায় রাস্তায় বেরোলেই ধরে মাস্ক পরিয়ে বাড়ি পাঠাচ্ছে। কোথাও বা কান ধরে ওঠবোস করিয়েছে। ফাঁকা শহরেও যত্রতত্র থুতু ফেলার অভ্যাস যায়নি। সন্ধে পর্যন্ত ৩৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যেহেতু বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ পিকেট ছিল, তাই নিয়ম ভাঙলেই ধরা হয়েছে। ফাঁকা রাস্তায় বেপরোয়া গাড়ি চালাতে গিয়ে ধরা পড়েছে কয়েকজন। ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি সতর্কও করা হয়েছে। মাস্ক না-‌পরে বেরোলেই অনেক ক্ষেত্রেই থানায় নিয়ে গিয়ে অ্যারেস্ট মেমো হাতে ধরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তাদের আদালত থেকে জামিন নিতে হবে।‌ আজ শুক্রবার লকডাউনের পর পরের সপ্তাহে লকডাউন শুধু বৃহস্পতিবার। এবং তার পর ৩১ আগস্ট সোমবার লকডাউন হবে। এ মাসের মতো লকডাউন পর্ব শেষ।

Related Articles

Back to top button
Close