fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে, কোভিড হাসপাতালের চিকিৎসক-নার্সদের হোটেল খরচ আর বহন‌ করবে না রাজ্য

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হওয়ার দিকে এগোচ্ছে পরিস্থিতি। করোনা পরিস্থিতির কারণে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন ক্ষেত্রে অতিরিক্ত খরচ হয়েছে স্বাস্থ্য দফতরের। মহামারীর বাড়বাড়ন্তের সময়  বিভিন্ন  চিকিৎসককে ডিউটি রোস্টার অনুযায়ী যাতে ২৪ ঘন্টাই হাসপাতালে পাওয়া যায়, তার জন্য অনেক চিকিৎসককেই হাসপাতালে কাছাকাছি হোটেলে রাখার খরচ  বহন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এবার পরিস্থিতি স্বাভাবিক এর দিকে এগোতে শুরু করায় স্বাস্থ্য দফতর সিদ্ধান্ত নিল, এবার কোভিড হাসপাতালের চিকিৎসক- নার্সদের হোটেল খরচ আর বহন করবে না সরকার।
প্রসঙ্গত, শুধু চিকিৎসকদের হাসপাতালে সবসময় পাওয়ার জন্যই নয়, অনেক জায়গাতে করোনা হাসপাতালে কাজ করেন বলে  নিজস্ব এলাকাতেও বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছিল চিকিৎসকদের। সেই কারণেই লকডাউনের সময়ে রাজ্য সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সরা বেশ কিছু অতিরিক্ত সুবিধা দেওয়ার কথা ঘোষণা করে রাজ্য সরকার। এবার সেগুলি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামী সপ্তাহ থেকে এই সুবিধা পাবেন না সরকারি কোভিড হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সিং পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা। তাঁদের বাড়ি থেকেই হাসপাতালে আসতে হবে। জেলার সরকারি কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসক ও নার্সদের বাড়ি থেকে আনার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা চালু হয়েছে।
লকডাউনের সময় আপৎকালীন পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে সরকারি হাসপাতালে যাতে দ্রুত পরিষেবা দেওয়া যায়, তার ব্যবস্থা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশের পরে কলকাতার তিন হোটেল-কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেন পুর কমিশনার খলিল আহমেদ। চিঠিতে বলা হয়েছে, তাঁদের হোটেলে চিকিৎসকদের রাখা হবে। প্রথম পর্যায়ে বিবাদী বাগের ললিত গ্রেট ইস্টার্ন, ইএম বাইপাসের ধারে আইটিসি সোনার, হোটেল হিন্দুস্থান ইন্টারন্যাশনাল হোটেলকে বেছে নেওয়া হয়। রাজ্যের মুখ্য স্বাস্থ্য অধিকর্তা ডা. অজয় চক্রবর্তী বলেছেন, “লকডাউন উঠে গিয়েছে। যানবাহন স্বাভাবিক নিয়মে চলছে। এমনকী, ট্রেনও চালু হয়েছে। তাই স্বাভাবিক নিয়মেই এই ব্যবস্থা সরকার প্রত্যাহার করে নিল। এখন থেকে এই ব্যবস্থা চালু থাকবে না।”

Related Articles

Back to top button
Close