fbpx
কলকাতাদেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চলতি সপ্তাহেই রাজ্যে জাঁকিয়ে শীত, উত্তর ভারতজুড়ে শৈত্যপ্রবাহ…

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: শুক্রবার থেকেই নামবে পারদ,শনি-রবি জাঁকিয়ে শীত। উত্তর ভারতজুড়ে শৈত্যপ্রবাহ। ধীরে ধীরে তার হিমেল পরশ পৌঁছবে রাজ্যে। তার জেরেই পারদ পতনের সম্ভাবনা। আজ কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৮ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি বেশি। তবে শুক্রবার থেকে ফের রাজ্যে ফিরবে শীতের আমেজ।এদিকে আগামী ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলির আবহাওয়া শুকনো থাকবে। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। এখন ও আগামী ৭২ ঘন্টায় সকালে কুয়াশার দাপট দেখা দেবে। যার জেরে দৃশ্যমানতা কমতে পারে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে রাতের তাপমাত্রার সেরকম পরিবর্তনের কোনও সম্ভাবনা না থাকলেও, এরপর তা তিন থেকে পাঁচ ডিগ্রি কমতে পারে বলে জানাচ্ছেন আলিপুর আবহাওয়া দফতরের আবহাওয়াবিদরা।

পাহাড়ের তুষারপাত সমভূমি এলাকায় শীতলতা বাড়িয়ে তুলেছে। দিল্লিতে পারদ নেমে এসেছে ৪ ডিগ্রিতে। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী দিল্লির পারদ ১৬ ডিসেম্বর ৪ ডিগ্রির নীচে চলে যেতে পারে। দিল্লি-এনসিআর এবং উত্তর ভারতে এত ঠাণ্ডা অনুভূত হচ্ছে কারণ, পাহাড়গুলিতে ভারী তুষারপাত হচ্ছে। উত্তরাখণ্ড, হিমাচল প্রদেশ এবং জম্মু ও কাশ্মীরে ভারী তুষারপাত হচ্ছে। আইএমডি জানাচ্ছে, পাহাড়গুলিতে তুষারপাত ও বৃষ্টিপাত যত বেশি হবে তত সমভূমিতে শীতলতা বৃদ্ধি পাবে। অন্যদিকে বুধবার দিল্লির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস হতে পারে।শুধু দিল্লি নয়, পঞ্জাবেও শীতের প্রকোপ বাড়বে।

পাহাড়ের এই তুষারপাত উত্তর ভারতের সমভূমিতে বসবাসরত মানুষকে একেবারে কাঁপিয়ে তুলেছে। আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গেছে, উত্তর ভারতের সমভূমির মানুষকে আগামী দুই-তিন দিনের শীতের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। পঞ্জাব, হরিয়ানা, দিল্লি, রাজস্থান, উত্তর প্রদেশ এবং মধ্যপ্রদেশে তাপমাত্রা হ্রাস পেতে পারে। একই সঙ্গে মুম্বই সহ মহারাষ্ট্র, গুজরাত এবং মধ্যপ্রদেশে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। একই সঙ্গে, হরিয়ানা, চণ্ডীগড় ও উত্তর পশ্চিম রাজস্থানেও শীত রেকর্ড ভাঙতে পারে। তাপমাত্রা হ্রাসের কারণে উত্তর ভারতের বেশিরভাগ জায়গায় কুয়াশার প্রভাব দেখা দিচ্ছে। তবে ঠান্ডা বাতাসের কারণে দিল্লি-এনসিআর এবং উত্তরপ্রদেশের বায়ুর মানের উন্নতি হয়েছে।

বুধবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৮.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। মঙ্গলবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৭.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিক। আর্দ্রতার পরিমান সর্বনিম্ন ৯৯ শতাংশ সর্বোচ্চ ৪৬ শতাংশ। দমদমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৮.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সল্টলেকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৮.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মঙ্গলবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৭.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। দমদমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সল্টলেকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আরও পড়ুন: কথা রাখল নীতীশ! বিনামূল্যেই কোভিড টিকা পাবে বিহারবাসী

বুধবার দক্ষিণবঙ্গের বাঁকুড়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ক্যানিং ১৭.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ডায়মন্ড হারবার ১৭.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, দিঘা ১৬.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মঙ্গলবার দক্ষিণবঙ্গের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল আসানসোলে ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বালুরঘাট ১৩.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বাঁকুড়া ১৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ব্যারাকপুর ১৫.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বহরমপুর ১৫.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বর্ধমান ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ক্যানিং ১৬.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, দিঘা ১৭.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, পুরুলিয়া ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শ্রীনিকেতন ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বুধবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৮.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। মঙ্গলবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৭.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিক। আর্দ্রতার পরিমান সর্বনিম্ন ৯৯ শতাংশ সর্বোচ্চ ৪৬ শতাংশ। দমদমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৮.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সল্টলেকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৮.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মঙ্গলবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৭.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। দমদমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সল্টলেকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সোমবার দক্ষিণবঙ্গের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল আসানসোলে ১৫.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বালুরঘাট ১৪.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বাঁকুড়া ১৬.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ব্যারাকপুর ১৫.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বহরমপুর ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বর্ধমান ১৬.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ক্যানিং ১৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, দিঘা ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, পুরুলিয়া ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শ্রীনিকেতন ১৫.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

 

Related Articles

Back to top button
Close