fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বৃষ্টিতে ভিজলো কলকাতা, শিরশিরানি বয়ে আনছে শীত আসার বার্তা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: রাত থেকেই শুরু হয়েছিল বৃষ্টি। তার জেরে আগামী ৪৮ ঘণ্টায় কলকাতা এবং সংলগ্ন এলাকায় একধাক্কায় অনেকটা পড়তে পারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। বিশেষত রাতের তাপমাত্রা অনেকটাই কমবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। সকাল থেকেই চোখে পড়েছে আকাশের মুখ ভার। তার জেরে খুব ঠান্ডা না লাগলেও বাতাসের ছোঁয়ায় শিরশিরানি বয়ে গিয়েছে শরীরে। সেই শিরশিরানি যেন বয়ে এনেছে শীর আসার বার্তা। সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী সোমবার থেকেই বড়সড় পারা পতনের সাক্ষী হতে চলেছে তামাম বাংলা। খাস কলকাতার বুকেই পারা ২০ ডিগ্রির নীচে নেমে ১৫ তে এসে দাঁড়াতে পারে, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে আজ দিনভর আকশের মুখ গোমড়াই থাকবে। দেখা মিলবে না সূর্যের। দিনে গরম কম লাগলেও রাতের দিকে অস্বস্তি হতে পারে। তবে আজও বৃষ্টির সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে। আগামীকালও রাজ্যের কিছু কিছু এলাকায় বৃষ্টি হতে পারে বিক্ষিপ্ত ভাবে। তবে আগামীকাল থেকেই আকশের মেঘ কেটে যেতে চলেছে। সোম সকাল থেকেই মিলবে মেঘমুক্ত আকাশ আর রোদে ঝলমল দিন। আর তার হাত ধরেই সোমবার থেকেই শুরু হবে পারা পতনের খেলা। কার্যত আগামী সপ্তাহ জুড়েই চলবে সেই পারা পতন। তার জেরেই কলকাতার এখন সর্বনিম্ন যে তাপমাত্রা ২০ ডিগ্রির ওপরে রয়েছে সেটাই নেমে আসতে পারে ১৫ ।

আরও পড়ুন: ফের উত্তপ্ত সীমান্ত, সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করল পাকিস্তান, শহিদ এক জওয়ান

একই সঙ্গে জানা গিয়েছে কাশ্মীরের বুকে এবার একের পর এক পশ্চিমি ঝঞ্ঝা আসতে চলেছে। সে সব ঝঞ্ঝার হাত ধরে এই বাংলাতেও লাগাতার ঠান্ডার অনুভূতি বাড়বে। তবে আশঙ্কাও থাকছে। বঙ্গোপসাগরের জল ক্রমাগত উষ্ণ হতে থাকায় যেমন ঘন ঘন নিম্নচাপ বা ঘূর্ণীঝড়ের সৃষ্টি হচ্ছে তেমনি এই শীতের মুখে বিপরীত ঘূর্ণাবর্তের সম্ভাবনাও দেখা দিতে পারে। তার জেরে উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ধেয়ে আসা শুকনো ঠান্ডা বাতাসের সামনে বাঁধা দিতে পারে দক্ষিনের জোলো বাতাস। তার জেরে এদিন যেমন কাকভোরের বৃষ্টি আর গোমড়ামুখো আকাশের দেখা মিলেছে তেমনিই আবহাওয়ার দেখা মিলতে পারে বাংলার শীতকালে।

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close