fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ভাঙড়ে কাইজার অনুগামী তৃণমূল কর্মীরা আক্রান্ত, অভিযুক্ত যুব তৃণমূল

নিজস্ব প্রতিনিধি,ভাঙড়: বাসন্তীর মতো এবার লাগাতার গোষ্ঠী সংঘর্ষের ঘটনায় উত্তপ্ত ভাঙড়। কাইজার অনুগামী তৃণমূল কর্মী দের বাড়িতে গিয়ে মারধর এবং হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল ভাঙড়ের যুব তৃণমূল কর্মী দের বিরুদ্ধে।ঘটনায় নতুন করে আবারও উত্তপ্ত ভাঙড়।

মঙ্গলবার দুপুরে ভাঙড়ের সাঁইহাটি গ্রামে তৃণমূল কর্মী সহ গ্রামবাসীদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মারধর সহ হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে যুব তৃণমূল কর্মী সইদুল চৌধুরী সহ তার দলবলের বিরুদ্ধে। অভিযোগ,যুব তৃণমূল নেতা সইদুল চৌধুরী দলবল নিয়ে গ্রামে ঢুকে মহিলা সহ পুরুষদের উপরে অত্যাচার করে। কয়েক জনকে বেধড়ক মারধর করে।

এ বিষয়ে তৃণমূল কর্মী লাল্টু চৌধুরী বলেন, “সইদুল চৌধুরী আমার জামার কলার ধরে বাড়ি থেকে বার করে নিয়ে এসে বলে কাইজারের সঙ্গে ঘোরাঘুরি করা চলবে না।যুব তৃণমূল করতে হবে না হলে হেঁসো দিয়ে কুপিয়ে দেওয়া হবে। “এর পাশাপাশি নাজমা বিবি নামে এক মহিলা বলেন,”যুব তৃণমূল কর্মীরা যে ভাবে এলাকায় অত্যাচার করছে তাতে আমরা বাচ্চা নিয়ে গ্রামে আতঙ্কে আছি।”

আক্রান্ত লায়েব আলি পিয়াদা বলেন,”কাইজারের সঙ্গে তৃণমূল দল করার সাধ মিটিয়ে দেব বলেই বাঁশ দিয়ে মারতে থাকে ওরা।” তিনি আরও জানান,”ঘটকপুকুর সহ ভাঙড় থানায় যুব তৃণমূলের নেতারা বসে আছে আমরা থানায় অভিযোগ জমা দিতে যেতে পারছি না। এমনকী হাসপাতালে চিকিৎসা করতে যেতে পারছি না, গেলেই আবার মারবে।

“ঘটনার খবর পেয়ে ভাঙড় থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। গ্রামের মানুষ কে আশ্বস্ত করে।

উল্লেখ্য গত শনিবার যুব এবং মাদার তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষ বোমাবাজির ঘটনার পর থেকে লাগাতার অশান্তি লেগেই আছে ভাঙড়ে।কোথাও দলীয় কার্যালয়ে আগুন তো আবারও কোথাও দোকানপাট ভাঙ্গচুর চলছে। এ বিষয়ে কাইজার অনুগামী এক তৃণমূল নেতা বলেন, “ভাঙড়ে যুব তৃণমূলের নেতা এবং কর্মী রা যে ভাবে অত্যাচার শুরু করেছে তাতে মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠছে।যুব তৃণমূলের কর্মী নেতাদের হাতে ভাঙড়ে তৃণমূল দলটা শেষ হয়ে যাবে।”

এই পরিস্থিতিতে ভাঙড়কে শান্ত করতে মঙ্গলবার ভাঙড় থানায় প্রশাসনিক আধিকারিক সহ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের নিয়ে শান্তি বৈঠক হয়।বৈঠক শেষে ভাঙড় ১ নাম্বার পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শাহাজাহান মোল্লা বলেন, “সাঁইহাটিতে কোন গন্ডগোল হয়েছে বলে আমার জানা নেই।ভাঙড়ে এখন কোন গন্ডগোল হচ্ছে না।কিছু চক্র এই সব অশান্তির নামে দলের যাতে বদনাম হয় তা চেষ্টা করে যাচ্ছে।”

Related Articles

Back to top button
Close