fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

ভারতের প্রচ্ছন্ন মদতেই ইজরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন ভুটানের, দাবি বিশেষজ্ঞদের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: মুক্তিযুদ্ধের পর স্বাধীন বাংলাদেকে ভারত ছাড়া সর্বপ্রথম স্বীকৃতি প্রদান করেছিল ভুটান। সেটা ছিল একটি ঐতিহাসিক পদক্ষেপ। এবার ইজরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করে আরও একটি ঐতিহাসিক পদক্ষেপ গ্রহণ করল বজ্রড্রাগনের দেশ।

সোমবার নয়াদিল্লিতে ভারতে অবস্থিত ভুটান ও ইজরায়েলের রাষ্ট্রদূতের মধ্যে চুক্তিটি সাক্ষরিত হয়। ভারতের প্রভাবাধীন থাকা ভুটানের সঙ্গে ইজরায়েলের এই কূটনৈতিক চুক্তি যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করে বিশেষজ্ঞমহল।

জেরুজালেম সূত্রে খবর, বহু বছর ধরে আলোচনার পর এই চুক্তিসম্পাদন সম্ভব হয়েছে। এই চুক্তিকে স্বাগত জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু।

উল্লেখ্য,  ভারতের প্রতিবেশী ভুটানের সঙ্গে কূটনৈতিক  সম্পর্ক স্থাপনের জন্য বহু দিন থেকে প্রয়াস করছিল বেজিং। কিন্তু বিশেষজ্ঞমহলের দাবি দক্ষিণের বিপুল প্রভাবশালী ভারতের প্রচ্ছন্ন প্রভাবেই ভুটানের সঙ্গে চুক্তি বাস্তবায়নে সফল হন নি জিংপিং সরকার।

এবার সেই ভারতের অন্যতম সহযোগি দেশ ইজরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন হিমালয়ে  নিঃসন্দেহে চিকে চাপে রাখার একটি কৌশল বলেই মনে করেছে কূটনৈতিকমহল। সম্প্রতি ভারতের সহ অন্যান্য প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে চিন যে আগ্রাসী মনোভাব দেখিয়ে চলেছে তাতে ভুটানের সঙ্গে ইজরায়েলের সম্পর্ক কিছুটা হলেও চাপে ফেলবে চিনকে। পাশাপাশি হিমালয়ে অঞ্চলে কিছুটা হলেও কৌশলগত স্বার্থও অক্ষুণ্ণ থাকবে ভারতের। এছাড়াও ইজরায়েলের সঙ্গে মার্কিন যোগ থাকায় ম্যাকমোহন লাইন তথা ভারত-চিন সীমান্তে কৌশলগত দিক থেকে আগামী দিনে কিছুটা হলেও নয়াদিল্লি সুবিধাজনক অবস্থানে থাকবে বলেই মনে করছে কূটনৈতিকমহল।

 

Related Articles

Back to top button
Close