fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে বড় পদক্ষেপ, প্রধানমন্ত্রীর  হাত ধরে দেশ পাচ্ছে সাতটি নয়া সংস্থা  

নিজস্ব প্রতিনিধি: উৎসবের মরশুমে বড় ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। দশেরা পালনের আবহে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি খুশির খবর শোনালেন দেশবাসীকে। ভারতের স্বনির্ভরতা ও প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রকে আরও উন্নত করার লক্ষ্যে দেশের ৪১টি অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরিকে ৭টি সরকার পরিচালিত কর্পোরেট সংস্থায় রূপান্তরিত করার কথা ঘোষণা করলেন তিনি। নতুন সাতটি প্রতিরক্ষা সংস্থা চালু করে তিনি বলেন, “কেন্দ্রের এই পদক্ষেপের মূল লক্ষ্যই হল ভারতকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামরিক শক্তিতে পরিণত করা।

স্বাধীনতার পর এই প্রথমবারের মতো, ভারতের প্রতিরক্ষা খাতে অনেকগুলি বিশেষ বিশেষ সংস্কার করা হয়েছে। এটি আগের তুলনায় অনেক বেশি স্বচ্ছ ও বিশ্বাস যোগ্য।” সাতটি প্রতিরক্ষা সংস্থার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এমনটাই দাবি করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রকে আরও উন্নত করতে চেষ্টার ত্রুটি করছে না কেন্দ্র। এ ব্যাপারে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের সঙ্গে সমন্বয় সাধন করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছেন। সেই সূত্রে ২০০ বছরের পুরনো অর্ডন্যান্স ফ্যাক্টরি বোর্ডের স্থানে সাতটি নতুন রাষ্ট্র পরিচালিত প্রতিরক্ষা সংস্থার উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, “ভারতকে প্রতিরক্ষা সরঞ্জামের প্রধান উৎপাদক দেশ হিসেবে গড়ে তোলার  জন্য এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। এই লক্ষ্যে একাধিক কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে”।

তাঁর কথায়, নতুন কোম্পানিগুলিকে ইতিমধ্যেই ৬৫,০০০ কোটি টাকার অর্ডার দেওয়া হয়েছে। ভারতকে ‘গ্লোবাল ব্র্যান্ড’ হিসেবে দাঁড় করাতে এই সংস্থাগুলি  অস্ত্রশস্ত্র, গাড়ি এবং আধুনিক প্রযুক্তি সরবরাহ করবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রতিযোগিতা আমাদের শক্তি এবং গুণমান আমাদের ভাবমূর্তি।’ এর পাশাপাশি প্রতিরক্ষা বিভাগে গবেষণা এবং উদ্ভাবনের ওপরও জোর দিয়েছেন মোদি। তিনি জানান, ‘গবেষণা এবং উদ্ভাবনই একটি দেশের সংজ্ঞা। আর এর সবথেকে বড় উদাহরণ হল ভারতের বিকাশ। তাই উদ্ভাবকদের সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হবে।’ বিভিন্ন সংস্থাকে জোট বেঁধে গবেষণা করারও পরামর্শ দিয়েছেন মোদি। এই প্রথম নয়, এর আগেও বেসরকারি সংস্থাগুলিকে সরকারের সঙ্গে সমন্বয় রেখে কাজ করার কথা বলেছিলেন তিনি। এদিনও একই সুর শোনা গেল তাঁর গলায়।

যে সাতটি নতুন প্রতিরক্ষা সংস্থার সংযোজন করা হচ্ছে সেগুলি হল মিউনিশনস ইন্ডিয়া লিমিটেড, আর্মন্ড ভেইকেলস নিগম ইন্ডিয়া লিমিটেড, অ্যাডভান্স ওয়েপেন্স অ্যান্ড ইকিউপমেন্ট ইন্ডিয়া লিমিটেড, ট্রুপ কমফোর্ট লিমিটেড, যন্ত্র ইন্ডিয়া লিমিটেড, ইন্ডিয়া অফটেল লিমিটেড ও গ্লাইডার্স ইন্ডিয়া লিমিটেড।

Related Articles

Back to top button
Close