fbpx
অফবিটপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দূষণমুক্ত পরিবেশে সময়ের আগেই পরিযায়ী পাখির আগমন রায়গঞ্জ কুলীক পক্ষীনিবাসে 

শান্তনু চট্টোপাধ্যায়, রায়গঞ্জ: করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশজুড়ে চলছে পঞ্চম দফার লকডাউন। দেশের আর্থ-সামাজিক অস্থিরতা চরমে উঠেছে। তবে এতো সমস্যার মধ্যেও পরিবেশ তার দূষণের ক্ষত সারিয়ে নির্মল হয়ে উঠছে ক্রমশ। হারানো পরিবেশ ফিরে পেয়েছে পশু-পাখিরা। এর প্রভাব এবার লক্ষ করা গেল রায়গঞ্জ কুলীক পক্ষীনিবাসে। নির্ধারিত সময়ের চাইতে প্রায় একমাস আগেই এই বনাঞ্চলে আসতে শুরু করেছে পরিযায়ী পাখিরা। আর এতে করে দারুণ খুশি পরিবেশ প্রেমীরা।

উল্লেখ্য, রায়গঞ্জ শহর থেকে প্রায় ২ কিলোমিটার দূরে সোহারই, ভট্টদিঘী ও আব্দুলঘাটা – এই তিনটি মৌজার প্রায় ৩০০ একর জায়গাজুড়ে  গড়ে উঠেছে কুলিক পক্ষীনিবাসটি। উত্তর –পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে জুন মাসের শেষের থেকে  ইগ্রেট, নাইট হেরন ও ওপেন বিল স্টর্ক পাখীরা এই পক্ষীনিবাসে আসে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের পর্যটকেরা আসেন পাখিদের দেখতে। তবে এবছর লকডাউনের কারণে বন্ধ পক্ষীনিবাসের গেট।  তবে সকলকে অবাক করে প্রায় একমাস আগেই গাছের ডালে বাসা বাঁধতে শুরু করেছে পরিযায়ী পাখিরা।

জেলা মুখ্য বনাধিকারিক সোমনাথ সরকার বলেন,” লকডাউনের জন্য পরিবেশ এখন আগের চেয়ে অনেকটাই দূষণ মুক্ত। এই পরিবেশ পছন্দ পাখিদের। সেকারণেই নির্ধারিত সময়ের আগেই তারা আসতে শুরু করেছে। ” সোমনাথবাবু আরও বলেন,” পাখিদের খাবাবের জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করা হয়েছে বনদপ্তরের পক্ষ থেকে। পক্ষীনিবাসের ভেতরে ও বাইরের জলাশয় গুলিতে ছোটো শামুক,মাছ ছাড়া হয়েছে পাখিদের জন্য। আশা করছি দূষণমুক্ত পরিবেশে পাখির সংখ্যা বাড়বে।” তবে বনদফতর সূত্রে জানা গিয়েছে পক্ষীনিবাস খুললেও পর্যটকদের সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থবিধি মেনে চলতে হবে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close