fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

 শ্রমিক ফেরানো, সবার জন্য রেশন, বিদ্যুতের বিল মুকুব-সহ একাধিক দাবি নিয়ে রাজ্যজুড়ে বিজেএমটিইউসির প্রতিবাদ

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: গতকাল বিজেপি ও তার একাধিক শাখা সংগঠন পথে নেমেছিল। আজ পথে নামল বিজেপির শ্রমিক সংগঠন বিজেএমটিইউসি।রাজ্যসরকারের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ এনে আজ সংগঠনের পক্ষ থেকে রাজ্যজুড়ে পালিত হল নিশ্চয় প্রতিবাদ কর্মসূচি। প্রতিটি জেলাশাসকের দফতরে এদিন অবস্থান বিক্ষোভের পাশাপাশি সংগঠনের পক্ষ থেকে দেওয়া হয় স্মারকলিপিও।

পরিযায়ী শ্রমিকরা বিভিন্ন রাজ্যে চরম দুর্দশার মধ্যে রয়েছেন। ভিনরাজ্যে আটক অন্যান্য রাজ্যের পরিযায়ীরা ফিরে গেলেও এ রাজ্যের শ্রমিকরা এখনও সেই তিমিরেই। এজন্য রাজ্য সরকারের গয়ংগচ্ছ ভূমিকাকে দায়ী করে এদিন বিক্ষোভে ফেটে পড়েন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। শুধু তাই নয়, রাজ্যব্যাপী রেশন দুর্নীতির প্রতিবাদেও মুখর হন বিক্ষোভকারীরা। অভিযোগ, রেশন দেওয়ার ক্ষেত্রেও চলছে স্বজনপোষণ। খাদ্যদপ্তরের ‘টোকেনবিলি’তেও রীতিমতো অস্বচ্ছতার অভিযোগ তুললেন তাঁরা। এ প্রসঙ্গে সংগঠনের ঘাটাল সাংগঠনিক জেলার সভাপতি অতনু ভট্টাচার্য জানালেন, গ্রামাঞ্চলের অসংখ্য পরিবার আজও রেশন পাননি। এই লকডাউনের বাজারে তাঁদের প্রায়দিনই অর্ধাহারে, অনাহারে দিন কাটছে। রাজ্যসরকারের রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্টতার অভিযোগ তুললেন তিনিও।

এদিন রাজ্যের অন্যান্য জেলার পাশাপাশি বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হয় পশ্চিম মেদিনীপুর জেলাশাসকের দপ্তরেও। একাধিক দাবিতে অবস্থানে বসেন বিজেএমটিইউসিয়ের পক্ষে মেদিনীপুর সাংগঠনিক জেলার জেলা সভাপতি পবিত্র সাউ, সাধারণ সম্পাদক নবীন গিরি, রাজ্য সহসভাপতি শঙ্কর দাস প্রমুখরা। সভাপতি পবিত্র সাউ বলেন, সকলের জন্য রেশনের দাবি তুলেছেন তাঁরা। যাঁরা ডিজিটাল কার্ডের জন্য আবেদন করেও কার্ড পাননি, তাঁদেরও কুপনের মাধ্যমে রেশন দিতে হবে। ছ’মাসের বিদ্যুৎ বিল মুকুবেরও দাবি তুলেছে বিজেএমটিইউসি।

আরও পড়ুন: ফেক ছবি প্রচারের জন্য বাবুলের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা !

অতনুবাবু জানালেন, রাজ্যসরকারের প্রচেষ্টা প্রকল্পটি স্থগিত হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন অসংগঠিত শ্রমিকরা। এদিনের কর্মসূচিতে এ বিষয়েও রাজ্যব্যাপী দাবি তোলা হয়েছে বিজেএমটিইউসিয়ের পক্ষ থেকে। অতনুবাবু বলেন, ‘এই লকডাউনের পর্বে অসংগঠিত শ্রমিকদের পক্ষে অনলাইনে আবেদন করা অত্যন্ত দুরূহ।’ তাই তাঁরা প্রচেষ্টা প্রকল্পটির সরলীকরণের দাবি তুলেছেন। যাতে কেউ মাসে এক হাজার টাকার ঘোষিত সাহায্য থেকে বঞ্চিত না হন। এদিনের কর্মসূচিতে বিজেপি’র কার্যকর্তাদের মিথ্যে মামলা ও পুলিশি জুলুমের বিরুদ্ধেও প্রতিবাদে মুখর হতে দেখা যায় বিজেএমটিইউসিয়ের নেতৃবৃন্দকে।

এদিন জেলাশাসকের দপ্তরে অবস্থানের পাশাপাশি রাজ্যের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিকদের দপ্তরেও প্রতিবাদ কর্মসূচিতে সামিল হয় বিজেএমটিইউসি। এদিন অতনু ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে নিশ্চয় প্রতিবাদ পালিত হয় ডেবরা সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিকের দপ্তরে। উপস্থিত ছিলেন নমিতা সরেন হাঁসদা, স্বপন শীট, মহুয়া দাস প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। বিক্ষোভ প্রদর্শনের পাশাপাশি বিডিওর হাতে তুলে দেওয়া হয় স্মারকলিপি। স্মারকলিপি দেওয়া হয় মেদিনীপুরের জেলাশাসকের দপ্তরেও। তবে কোনও দপ্তরেই প্রাপ্তিস্বীকার করা হয়নি বলেই অভিযোগ।

Related Articles

Back to top button
Close