fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

যুবকর্মীকে খুনের চেষ্টা, টালিগঞ্জে সন্ত্রাসের অভিযোগ বিজেপির

রক্তিম দাশ, কলকাতা: আমফানের কারণে টালিগঞ্জ এলাকায় দীর্ঘক্ষণ ধরে বিদুৎ না থাকার প্রতিবাদে আন্দোলন করতে গিয়ে শনিবার বিজেপির এক যুবকর্মীকে খুনের চেষ্টা সহ অঞ্চলজুড়ে ব্যাপক সন্ত্রাসের অভিযোগ করল বিজেপি।

বিজেপির অভিযোগ, টালিগঞ্জের ১১৪ নম্বর ওর্য়াডে দক্ষিণ আনন্দপল্লীর বাসিন্দা বিজেপির যুবকর্মী নারায়ণ ঘোষ (৩০) স্থানীয় মানুষজনের সঙ্গে ৪ দিন ধরে এলাকায় বিদুৎ না থাকার প্রতিবাদে রাস্তা অবরোধে সামিল হয়েছিলেন এই অপরাধে তাঁকে স্থানীয় দুষ্কৃতীরা ব্যাপক মারধর করে এবং ক্ষুর দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। অপরদিকে, টালিগঞ্জের ৯৭ ওর্য়াডে ম্যুর অ্যাভিনিউতে রাস্তা অবরোধ করার জন্য স্থানীয় বাসীন্দাদের ব্যাপক মারধোর করেছে দুষ্কৃতীরা।

নারায়ণ ঘোষ বলেন, ‘গত চারদিন ধরে আমাদের এলাকায় বিদুৎতের সমস্যা হচ্ছে। গাছ পড়ে সব তার ছিড়ে গেছে। এলাকা বিদুৎবিহীন। অসুস্থ রোগিরা কষ্ট পাচ্ছেন। প্রশাসনের কোনও উদ্যোগ নেই। প্রশাসনের সর্বস্তরে জানিয়েও কোন সুরাহা হচ্ছে না দেখে আমরা স্থানীয় বাসিন্দারা রাস্তা অবরোধ করি। অবরোধ চলকালীন তৃণমূলের কয়েকজন আমাদের উপর ঝাপিয়ে পড়ে। আমায় ক্ষুর চালিয়ে দেয়। আমার হাতে ক্ষুরের আঘাত লাগে। এরপর লাঠি ও পাঞ্চিং মেশিন দিয়ে আমায় বেধড়ক মারা হয়।’

নারায়ণবাবু রিজেন্ট পার্ক থানায় তাঁকে খুনের অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানিয়েছেন। এই ঘটনায় দোষীদের শাস্তির দাবিতে রিজেন্ট পার্ক থানার সামনে বিক্ষোভ করে বিজেপি।
অপর দিকে, টালিগঞ্জের মন্ডল ১ সভাপতি সোমা ঘোষ অভিযোগ করেছেন, ৯৭ ওয়ার্ডের শান্তিনগরের বা্সিন্দারা বিদুৎতের দাবিতে অবরোধ করায় তাঁদের পুলিশ ও তৃণমূলের লোকজন ব্যাপক মারধর করেছে।

সোমা ঘোষ বলেন, ‘শনিবার সকাল থেকে বিদুৎতের দাবিতে শান্তিনগরের স্থানীয় বাসিন্দারা এনএসসি বোস রোড অবরোধ করছিলেন। দুপুর দেড়টা নাগাদ স্থানীয় কাউন্সিলর মিতালি বন্দ্যোপাধ্যায় আসেন তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ চলে। এরপর বোরো চেয়ারম্যান তপন দাশগুপ্তও আসেন। স্থানীয়রা বলেন, সিএসসির কর্মীরা কাজ শুরু করার পর আপনারা এখন থেকে যাবেন। সন্ধ্যা গড়িয়ে রাত হয়। রিজেন্ট পার্ক থানা থেকে বিশাল পুলিশ বাহিনী আসে। পুলিশ ওঁনাদের নিয়ে চলে যাওয়ার পরই শুরু হয় ব্যাপক লাঠি চার্জ।’

সোমা ঘোষের দাবি, ‘এই সময় স্থানীয় তৃণমূলের লোকজনও তাঁদের উপর চড়াও হয়ে মারর করে। আমার উপস্থিতির কারণে এই ঘটনাকে তৃণমূলের লোকজন রাজনীতির রঙ চড়ানো চেষ্টা করে। তাঁরা বলে, বিজেপি রাজনীতি করছে। সাধারণ মানুষ এর প্রতিবাদ করেন

Related Articles

Back to top button
Close