fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের উন্নয়ন বৈঠক ঘিরে রাজনৈতিক তরজা, স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না অভিযোগ বিজেপির

মিলন পণ্ডা, কাঁথি(পূর্ব মেদিনীপুর): পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের উন্নয়ন বৈঠককে ঘিরে রাজনৈতিক তরজা শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মানা হয়নি বলে বিজেপি অভিযোগ করেছেন। দীর্ঘদিন ধরে কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি তরুণ জানা করোনা আক্রান্ত ছিলেন। করোনা জয় পর এলাকাবাসী কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকে পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতিকে সংবর্ধনা জানান। করোনা থেকে মুক্তি পাওয়ার পর প্রথম মঙ্গলবার পঞ্চায়েত সমিতির কার্যালয়ে এলেন সহ-সভাপতি তরুণ জানা। এর আগে থেকে এলাকার বহু মানুষ সকাল থেকে তরুণবাবুর বাড়ির সামনে ফুলের স্তবক ও মালা নিয়ে হাজির হন।

পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি তরুণ জানার অনুগামীরা একটি শোভাযাত্রা করে পঞ্চায়েত সমিতির কার্যালয়ে আসেন। শোভাযাত্রায় অনুগামীরা তাদের প্রিয় নেতা তরুণ জানার উপর পুষ্পবৃষ্টি শুরু করেন। অনুগামীরা বাইকে করে একটি শোভাযাত্রা করে ব্লক অফিসে হাজির হয়। এরপর একের পর এক পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি তরুণ জানাকে ফুলের স্তবক ও মালা পরিয়ে দিয়ে সম্বর্ধনা জানায়।

শোভাযাত্রা ও সম্বর্ধনাকে ঘিরে রাজনৈতিক তরজা শুরু হয়েছে। কোনও স্বাস্থ্যবিধি মানা হয়নি বলে অভিযোগ তুলেন বিজেপি নেতৃত্বরা। তারপরেই কাঁথি দেশপ্রাণ পঞ্চায়েত সমিতির হলে একটি উন্নয়ন সভা করেন। উপস্থিত ছিলেন কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক মনোজ মল্লিক, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মৌমিতা দাস, গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান, উপপ্রধান সহ অন্যান্য নেতৃত্বরা।

উন্নয়ন সভা ও শোভাযাত্রাকে ঘিরে কটাক্ষ করেছেন কাঁথি সাংগঠনিক জেলার বিজেপির সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী। তিনি বলেন, কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের তৃণমূল নেতাদের সম্বর্ধনা দেওয়া হচ্ছে। করোনা পরিস্থিতির মধ্যে সচেতনতা দরকার। অফিসগুলো সচেতনতা দেখাচ্ছে। কিন্তু বাইরে অনেক অন্যায় কাজকর্ম চলছে। আমরা এই কাজের তীব্র বিরোধিতা করছি। অনুপ আরও বলেন শাসক দলের জন্য করোনা নেই। আমরা কোনও অনুষ্ঠান করলেই অসভ্য বর্বর ব্যাবহার করেন। হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন প্রশাসন ও চিটিংবাজ নেতারা সাবধান করছি। সাধারণ মানুষের জীবন নিয়ে খেলাধুলা করছেন। এলাকার সাধারণ মানুষকে সচেতন হওয়ার আবেদন জানাই।

আরও পড়ুন:কতটা সৎ উমর খালিদ

কাঁথি দেশপ্রাণ ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি তরুণ জানা বলেন, বিজেপির অভিযোগ পুরোপুরি ভিত্তিহীন। আমরা কোনও জমায়েতে ডাক দিইনি। জমায়েতের কোনও প্রশ্ন ওঠে না। মঙ্গলবার ব্লক অফিসে একটি উন্নয়ন বৈঠক রয়েছে। দীর্ঘদিন করোনা আক্রান্তের কারণে ধরে অফিসে আসতে পারিনি। উন্নয়ন বৈঠকের যোগ দিতে এসেছিলাম। দীর্ঘদিন ধরে মানুষের সঙ্গে জনসংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছিল। তাই এলাকার বাসিন্দারা আবেগ আশীর্বাদ ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। তরুণবাবু আরও বলেন, যেকোনও ব্যাপারে বিজেপির রাজনৈতিক ইস্যু খোঁজে। বিজেপি এখন ভয় পাচ্ছে। তাই এসব করছে।

Related Articles

Back to top button
Close