fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাগনানে গুলিবিদ্ধ বিজেপি নেতার মৃত্যু, বৃহস্পতিবার ১২ ঘন্টার বাগনান বনধের ডাক বিজেপির

পাপ্পা গুহ, উলুবেড়িয়া: অষ্টমীর রাতে বাগনানের বেনাপুর মাজীপাড়ায় গুলিবিদ্ধ হয়ে কলকাতার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা বিজেপি নেতার মৃত্যু হল বুধবার। মৃত ওই বিজেপি নেতার নাম কিংকর মাজী। বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা কিংকর মাজীকে গুলি করে খুন করেছে। যদিও পুলিশ প্রশাসনের বক্তব্য, করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে কিংকর মাজীর। এদিকে বিজেপি নেতার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়ে বিজেপি কর্মীরা। দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে বাগনানের বিভিন্ন এলাকার পাশাপাশি বাগনান থানার সামনে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি কর্মীরা। পরে বিজেপি হাওড়া গ্রামীণ জেলার পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার বাগনান বিধানসভা এলাকায় ১২ ঘন্টা বনধের কথা ঘোষণা করা হয়।

উল্লেখ্য, অষ্টমীর দিন রাত ১০ টা নাগাদ বিজেপির বুথ সভাপতি কিংকর মাজী বাড়ি ফেরার সময় বেনাপুর মাজীপাড়ার কাছে বাইকে চেপে আসা ৩ দুষ্কৃতী তার পথ আটকায়। অভিযোগ, কিছু বুঝে ওঠার আগেই পরিতোষ মাজী নামে এক দুষ্কৃতী কিংকরকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। গুলি বিজেপি নেতার পেটে লাগলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে দুষ্কৃতীরা বাইক নিয়ে পালাতে গেলে গ্রামবাসীরা ছোট্টু মাইতি নামে এক দুষ্কৃতীকে ধরে ফেলে এবং পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

এদিকে গুলিত আহত হওয়া বিজেপি নেতাকে প্রথমে উলুবেড়িয়া মহাকুমা হাসপাতালে ও পরে কলকাতার একটি সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার দুপুরে তার মৃত্যু হয়। অন্যদিকে বিজেপি নেতার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর বিজেপির হাওড়া গ্রামীণ জেলা সভাপতি শিব শঙ্কর বেজ সহ-সভাপতি রমেশ সাধুখাঁ সহ বিজেপি নেতারা বাগনানে পৌঁছে দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে এলাকায় মিছিল করে এবং তার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করে। বিজেপি নেতাদের অভিযোগ, এলাকায় অশান্তি পাকানোর লক্ষ্যে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের ঘটনা ঘটিয়েছে।

তাদের অভিযোগ, ঘটনার মূল অভিযুক্ত পরিতোষ ঘটনার ৪দিন আগে কিংকর মাজীকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছিল। আর তার পরেই এই ঘটনা। অন্যদিকে বিজেপি নেতার করোনা আক্রান্ত হওয়া প্রসঙ্গে তাদের অভিযোগ, গুলি চালানোর ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে প্রশাসন কিংকর মাজীকে করোনা আক্রান্ত বলে চালাতে চাইছে। অন্যদিকে বিজেপি নেতার মৃত্যু প্রসঙ্গে বাগনানের বিধায়ক অরুনাভ সেন জানান একটি পারিবারিক সম্পত্তিগত বিবাদকে কেন্দ্র করে এই ঘটনা ঘটেছে। এর সাথে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই। বিজেপি এটাকে নিয়ে রাজনীতি করছে।

বিষয়টি নিয়ে হাওড়া গ্রামীণ জেলা পুলিশ সুপার সৌম্য রায় জানান, মৃত ব্যক্তির পরিবারের পক্ষ থেকে ৩ অভিযুক্ত নামে অভিযোগ করা হয়েছিল। পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছে বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। তিনি আরও জানান, প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে, মৃত ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। তবে মৃতদেহ ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

Related Articles

Back to top button
Close