fbpx
কলকাতাহেডলাইন

আটদিন পেরিয়ে গেলেও মদন ঘোড়ইয়ের মৃতদেহ দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্ত এইমসে করার দাবি বিজেপির

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও আটদিন পেরিয়ে গেলেও পটাশপুরের বিজেপি কর্মী মদন ঘোড়ইয়ের মরদেহের দ্বিতীয় বার ময়নাতদন্ত হয়নি। বুধবার কলকাতার গান্ধি মূর্তির নিচে মদন ঘোড়ইয়ের পরিবার, বিজেপির কর্মীদের সঙ্গে দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের দাবিতে অবস্থান বিক্ষোভে অংশ নেয়। পরিবার দাবি জানায় দ্রুত দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্ত করে দেহ তাঁদের হাতে তুলে দেওয়া হোক। বিজেপির দাবি, আরজিকর নয় মরদেহের দ্বিতীয় বার ময়নাতদন্ত দিল্লির এইমসে করা হোক।

রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেন, ‘পটাশপুরের মদন ঘোড়ই ছাড়াও উত্তরবঙ্গের ইটাহারের অনুপ রায়েরও পুলিশি হেফাজতে মৃত্যু হয়েছে। অনুপ এবং মদন ঘোড়ই দুজনের দেহই দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। অনুপের পরিবার তাঁর দেহ বাড়িতেই কবর দিয়েছে। যাতে সিবিআই তদন্ত বা দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের জন্য দেহ তুলে আনা যায়। কিন্ত মদন ঘোড়ইয়ের দেহ এখনও পরিবার ফেরত পায়নি। কারণ আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও রাজ্য সরকার দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্ত করেনি। আমাদের আরজিকর হাসপাতালের উপর ভরসা নেই, ওটা তৃণমূলের আড্ডাখানা হয়ে গিয়েছে। আমরা চাই অনুপ এবং মদন ঘোড়ই দুজনের মরদেহের ময়নাতদন্ত দিল্লির এইমসে হোক।’

[আরও পড়ুন- পাঁচ লাখ মানুষ নিজেকে বিজেপির থেকে সুরক্ষিত চিহ্নিত করেছে, দাবি পুরমন্ত্রীর]

তিনি বলেন, ‘পুলিশ তৃণমূলের মতো গুণ্ডারাজ চালাচ্ছে। মদন ঘোড়ইকে পুলিশ যখন বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়, যথেষ্ট কাগজপত্র তাদের কাছে ছিল না। একইভাবে অনুপকেও বিনা কারণে পুলিশ তুলে নিয়ে গিয়েছিল। দুজনেরই পুলিশি হেফাজতে থাকাকালীন মৃত্যু হয়েছে। আসল সত্যিটা প্রকাশ হয়ে যাবে বলেই দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্ত করতে চাইছে না। আমরা কিন্তু এর শেষ দেখে ছাড়ব।’

বিজেপির মহিলা মোর্চার সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পল বলেন, ‘এই সরকার কি আদালতের রায়কেও মান্যতা দেবে না? এতোগুলো দিন পেরিয়ে গেল মদন ঘোড়ইয়ের দেহের দ্বিতীয় বার ময়নাতদন্ত হলনা। আমি বুঝতে পারছি না পশ্চিমবঙ্গ কি ভারতবর্ষের বাইরে?’

 

Related Articles

Back to top button
Close