fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত নন্দীগ্রামে ত্রাণ বিলিতে দলবাজি, পানীয় জলের সংকটের প্রতিবাদে বিজেপির ডেপুটেশন

রাজকুমার আচার্য, নন্দীগ্রাম (পূর্ব মেদিনীপুর): আমফান ঝড়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে নন্দীগ্রাম ১ নম্বর ব্লক। তচনচ হয়েছে স্বাভাবিক জন জীবন। ৯দিন অতিবাহিত হলেও ঝড়ে ভেঙে পড়া ঘরগুলিতে সঠিকভাবে পৌঁছায়নি ত্রাণ। বিদ্যুৎহীন গ্রামগুলিতে চরম পানীয় জলের সংকট। নন্দীগ্রামের জন জীবনে স্বাভাবিক ছন্দ ফিরিয়ে আনতে বিডিও অফিসে একগুচ্ছ দাবি নিয়ে শুক্রবার  ডেপুটেশন দিল বিজেপি।
বিজেপি দলের দাবি, ক্ষতিগ্রস্ত ৪২ হাজার পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। ত্রিপল বিলি তৃণমূলরা দলবাজি করছে, ফলে ক্ষতিগ্রস্ত সব পরিবার ত্রিপল পাচ্ছে না। মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার সব ক্ষতিপূরণে যেন দলবাজি না হয়। জব কার্ড না থাকলেও সব শ্রমজীবী মানুষদের ১০০ দিনের কাজ দিতে হবে। দ্রুত সব গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে যায় যেন। ক্ষতিপূরণের জন্য আবেদনপত্রের রিসিভ দিতে হবে। ফাইনাল সার্ভের পর সর্বদলীয় বৈঠক করে দিতে হবে ক্ষতিপূরণ।  পঞ্চায়েত থেকে সাবমার্সেবল এ জল ভরে দিতে হবে।
পূর্ব মেদিনীপুর জেলার বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সাহেব দাস বলেন, “ত্রাণ বিলিতে দলবাজি করছে তৃণমূল। সুষ্ঠুভাবে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর আবেদন জানিয়েছি বিডিওকে। তিনি সুষ্ঠুভাবে বন্টনের আশ্বাস দিয়েছেন।” ডেপুটেশনে এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা সম্পাদক গৌরহরি মাইতি, অভিজিৎ মাইতি প্রমুখ।
নন্দীগ্রাম ১ নম্বর ব্লকের সভাপতি মুক্তিরানি মাইতি বলেন, “বিজেপির অভিযোগ সত্য নয়। ত্রাণ বিলিতে কোনো রাজনৈতিক রং দেখা হচ্ছে না। আমফান ঝড়ে নন্দীগ্রাম ১ নম্বর ব্লকের সব পরিবারের কোনও না কোনও ক্ষতি হয়েছে। গ্রামে গ্রামে বিদ্যুৎ ফেরানোর জন্য যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কাজ হচ্ছে।”

Related Articles

Back to top button
Close