fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

মহামারীর মাঝেই দ্বিতীয় মোদি সরকারের প্রথম বর্ষপূর্তি, ‘সেলিব্রেশন’ হবে ভার্চুয়ালি!

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্কঃ গোটা দেশে করোনা আবহ জারি রয়েছে। সংক্রমণ ঠেকাতে চলছে লকডাউন। আর এই করোনা আবহেই এক বছর মেয়াদ পূর্ণ হচ্ছে দ্বিতীয় মোদি সরকারের। তবে অতিমারির আতঙ্কে জনসমাগম করে এই খুশি উদযাপনের উপায় নেই। ফলে এবার কার্যত ভার্চুয়াল-এরই শরণাপন্ন হতে হচ্ছে কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন সরকারকে।

 

 

শোনা যাচ্ছে, এবার অনলাইনেই দ্বিতীয় মোদি সরকারের প্রথম বর্ষপূর্তির আয়োজন করছে বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের দাবি, প্রথম এক বছরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন এই সরকার যেভাবে কাজ করেছে, তা একেবারে ‘ঐতিহাসিক’। তাই, নিজেদের সাফল্যের কথা অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমেই সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে চায় বিজেপি।

 

 

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে কেন্দ্রে ক্ষমতায় আসে বিজেপি সরকার। দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন নরেন্দ্র মোদি। এরপর গতবছর ৩০ মে দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন নরেন্দ্র মোদি। বস্তুত, দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর একের পর এক বড় সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি সরকার। যা একইসঙ্গে ঐতিহাসিক, আবার বিতর্কিত। কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বিলোপ থেকে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাস। রাম মন্দির নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া থেকে একের পর এক সরকারি সংস্থায় বেসরকারি বিনিয়োগের আহ্বান। সব মিলিয়ে বেশ ঘটনাবহুল ছিল দ্বিতীয় মোদি সরকারের প্রথম বছর। নিজেদের সেইসব ‘সাফল্য’ মানুষের কাছে তুলে ধরার লক্ষ্যে বেশ কয়েকটি পরিকল্পনা করেছে গেরুয়া শিবির। তবে সবটাই ভার্চুয়ালি হবে। ইতিমধ্যেই দলের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সিং দলের রাজ্য নেতৃত্ব এবং শীর্ষনেতাদের চিঠি লিখে সেলিব্রেশনের যাবতীয় পরিকল্পনার কথা জানিয়ে দিয়েছেন।

 

 

সূত্রের খবর, রাজ্য নেতৃত্বকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এই জনসভাগুলিতে অন্তত ৭৫০ জন করে মানুষ হাজির করতেই হবে। বড় রাজ্যগুলি দুটি করে এবং ছোট রাজ্যগুলি একটি করে ভারচুয়াল জনসভার আয়োজন করবে। বাকিগুলি করবে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। দেশজুড়ে আয়োজন করা হবে ১ হাজার সাংবাদিক বৈঠকের। সেগুলিও হবে অনলাইনেই। এছাড়া অন্তত ১০ কোটি পরিবারের কাছে পৌঁছে দেওয়া হবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হাতে লেখা চিঠি।

Related Articles

Back to top button
Close