fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

আমফান শাপে বর তৃণমূলের, কোটি টাকার গাছ চুরি দিদির ভাইদের! বিস্ফোরক রাহুল  

  যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক : আমফানে বাংলার মানুষের ব্যাপক ক্ষতি হলেও তৃণমূলের শাপে বর হয়েছে, ঝড়ে পড়ে যাওয়া কোটি টাকার গাছ চুরি করে দিদির ভাইয়েরা ফের কাটমানি খেয়েছে! বুধবার এমনই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক রাহুল সিনহা।

 

 

এদিন যুগশঙ্খকে রাহুল সিনহা বলেন, ‘করোনা ত্রাণে আসা রেশনের চাল চুরি করার পর সামনে আর কিছু ছিল না। আমফানে ঝড় ফের কাটমানির সুযোগ এনে দিয়েছে তৃণমূল নেতাদের। দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে ঝড়ের প্রভাবে কোটি কোটি টাকার গাছ উপড়ে গেছে। রাস্তার পাশে পড়া সরকারি গাছ যা বনদফতর, পুরসভা বা পঞ্চায়েতের সম্পত্তি তা রাতের অন্ধকারে কেটে সাবাড় করে দিয়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতারা। ঝড়ে পড়ে যাওয়া এই কোটি কোটি টাকার গাছ কি হল তা আমি জানতে চাই? রাজ্য সরকার এনিয়ে জানাক রাজ্যবাসীকে।’

 

 

রাজ্যের মানুষ যখন করোনা আর আমফানে বিধ্বস্ত ঠিক তখন তৃণমূলের মন্ত্রীরা নিজেদের মধ্যে লড়াই করেছে বলে রাহুলবাবু বলেন, ‘মন্ত্রীরা এখন নিজেদের মধ্যে এমন লড়াই করছেন যা প্রকাশ্যে চলে আসছে। তা সংবামাধ্যমে প্রকাশও হচ্ছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পুলিশ বিক্ষোভ থামাবেন, জনগণের ক্ষোভ থামাবেন চিকিৎসকদের ক্ষোভ থামাবেন, নাকি নিজের দলের ঝগড়া থামাবেন?

 

রাহুলবাবু আরও বলেন, ‘আজ বখরার লড়াই এমন যায়গায় চলে  গিয়েছে সরকারের দৈন্যতা ফুটে উঠেছে। সরকার দিশাহীন। যেভাবে মন্ত্রীরা র্নিলজ্জ ভাবে একে অপরকে দোষারাপ করতে শুরু করেছে এর থেকে বোঝা যায় এটা একটা সুস্থ সভ্য সরকার নয়। এরকম এক সংকটের মধ্যে যাঁরা এরকম লড়াই করতে পারে অর্থের লড়াই, মর্যাদার লড়াই তারা      জনকল্যাণ করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ এটাই তার প্রমাণ। এধরণে কার্যকলাপের আমি তীব্র নিন্দা করছি।’

 

 

তৃণমূল দলের মধ্যে যাঁরা সৎ মানুষ আছেন তাঁদের বিজেপি আসার আহ্বান জানিয়ে রাহুল সিনাহা বলেন,‘ তৃণমূলে নামক প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানিতে যেসব নেতা,কর্মী, বিধায়ক, সাংসদ আছেন যাঁরা মানুষের জন্য কাজ করতে পারছেন না। মানুষের জন্য কিছু বলতে পারছেন না। যাঁদের তৃণমূলে কোনও অধিকার নেই। শ্বাসরুদ্ধ অবস্থা তৃণমূলে আছেন। তাঁদের কাছে আমি আবেদন জানাই এটাই সঠিক সময় তৃণমূলে ছেড়ে বেরিয়ে আসুন। চাইলে মোদিজির উন্নয়ণের স্্েরাতে নিজেকে যুক্ত করতে পারেন। তাই আমি এসব তৃণমূল কংগ্রেসের মানুষদের কাছে আবেদন করছি তাঁদের সত্যের পক্ষে লড়াই করবার জন্য এটাই উপযুক্ত সময়। মিথ্যাকে পরিত্যাগ করুন। অকর্মণ্যতাকে পরিত্যাগ করুন। কর্মযোগির সঙ্গে যুক্ত হন। এটাই আমার আবেদন।’

Related Articles

Back to top button
Close