fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

অনুব্রত মন্ডলকে ক্রিমিনাল,মাফিয়া বলে কটাক্ষ করলেন বিজেপি নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়

দিব্যেন্দু রায়, কেতুগ্রাম: অনুব্রত মন্ডলকে ক্রিমিনাল, মাফিয়া বলে কটাক্ষ করলেন বিজেপির রাজ্য সহ-সভাপতি তথা রাঢ়বঙ্গ জোনের পর্যবেক্ষক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় । শুক্রবার তিনি কেতুগ্রামের সতীপীঠ অট্টহাস মন্দিরে পুজো দিতে আসেন। পুজো শেষে সাংবাদিকের মুখোমুখি হয়ে ভাষাতেই অনুব্রত মন্ডলকে নিশানা করেন রাজু।

প্রসঙ্গত, মাস দুয়েক আগে কেতুগ্রামে কর্মী সম্মেলনে যোগ দিয়ে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে “ভয়ঙ্কর কৌশল” নেওয়ার কথা বলেছিলেন তৃনমুলের বীরভুম জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডল । এনিয়ে সাংবাদিকরা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতামত জানতে চাইলে তিনি বলেন, ” যিনি বোমা-বন্দুক নিয়ে রাজনীতি করেন। যিনি একজন ক্রিমিনাল, মাফিয়া। যাঁর জেলে থাকার কথা । উনি কেতুগ্রামে এসে ভয়ঙ্কর রাজনীতি করার কথা বলছেন। ইলেকশনের সময় উনি আদৌ বাইরে থাকবেন না জেলে থাকবেন সেটাই এখন দেখার বিষয়।” পাশাপাশি তিনি বলেন, “উনি এই সমস্ত কথা বলে ভয় দেখাতে চাইছেন। কিন্তু বিজেপিকে ভয় দেখিয়ে রোখা যাবে না।

যিনি ভয় দেখাচ্ছেন তিনি নিজেই  এবার ভয় পাবেন। কারন আগামী দিনে নির্বাচন কিন্তু পুলিশ দিয়ে হবে না। প্যারামিলিটারি ফোর্স দিয়ে ভোট হবে। কেষ্ট মহারাজ যা অত্যাচার করে রেখেছেন তাতে নির্বাচনের সময় উনি বাইরে থাকবেন  কিনা দেখুন। তখন জেলে বসে কিভাবে ভয় দেখাবেন বা নির্বাচন পরিচালনা করবেন সেটাই দেখার।” সেই সঙ্গে এদিন তিনি পালটা “দাওয়াই” দেওয়ার কথা বলেন রাজু । তিনি বলেন,”আমাদের একটা মারলে আমরা চারটে মারবো।  আমাদের কর্মীরা কত মার খাবে?  কত মরবে আমাদের নিরীহ কর্মীরা?  আমাদের দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে ।”

আরও পড়ুন: ব্রিটিশ শাসনের হাত থেকে দেশকে স্বাধীন করতে এগিয়ে এসেছিলেন বীর যোদ্ধারা

পাশাপাশি এই করোনা আবহের মধ্যে এদিন অট্টহাস মন্দিরে পুজো দিতে আসার কারন প্রসঙ্গে রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “রাজ্যবাসীকে করোনা থেকে মুক্ত করা ও রাজ্যের অশুভ শক্তির বিনাশ করার জন্য আজ সতীপীঠের মায়ের কাছে প্রার্থনা করে গেলাম । বিধানসভা নির্বাচনে আমরা জেতার পর অশুভ শক্তির বিনাশ করার জন্য মায়ের কাছে এসে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে যাব ।” এদিন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কেতুগ্রামে অট্টহাস মন্দিরে পুজো দেন বিজেপির পুর্ব বর্ধমান জেলা (গ্রামীন) কমিটির সভাপতি কৃষ্ণ ঘোষ,জেলা সহ সভাপতি অনিল দত্ত, জেলা সাধারন সম্পাদক রানাপ্রতাপ গোস্বামী।  উপস্থিত ছিলেন বেশ কিছু স্থানীয় দলীয় কর্মী।

Related Articles

Back to top button
Close