fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার-কে বাধা পুলিশের

দুলাল সিংহ; দক্ষিণ দিনাজপুর: হিলি যাওয়ার পথে বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার-কে বাধা পুলিশের। পুলিশি বাধা পেয়ে রাস্তায় চেয়ার পেতে বসে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করার পরও হিলি যেতে না পেরে গাড়ির অভিমুখ ঘুরিয়ে নিজের বাড়ি ফিরলেন বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার। বৃহস্পতিবার এই ঘটনা দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট শহরের হোসেনপুর সংলগ্ন ৫১২ নং জাতীয় সড়কে। জানা গেছে বৃহস্পতিবার সকালে বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার বাড়ি থেকে বের হয়ে গাড়ি নিয়ে হিলি-র উদ্দেশ্যে রওনা হন। জানা গেছে এরপরেই বালুরঘাটের হোসেনপুর সংলগ্ন আত্রেয়ী ডি.এ.ভি স্কুলের সামনে পুলিশ বেরিকেড করে বিজেপি সাংসদের গাড়ি আটকায়। গাড়ি আটকানোর কারণ নিয়ে বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদের সঙ্গে পুলিশের বেশ কিছুক্ষণ তুমুল বাক্য বিনিময়ের পর পুলিশ সুকান্ত মজুমদারকে হিলি যাওয়ার অনুমতি না দেওয়ায় বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার রাস্তায় উপরে চেয়ার পেতে বসে পড়েন।

একই সঙ্গে ঘটনাস্থল থেকেই তিনি রাজ্যপালকেও ফোন করে ঘটনার বিবরণ জানান বলে খবর। এরপর ঘটনাস্থলে সংবাদমাধ্যম উপস্থিত হলে বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার সংবাদ মাধ্যমের সামনে নিজের বক্তব্য পেশ করে জানান তারা বেশ কয়েকদিন ধরেই শুনতে পাচ্ছিলেন কাটাতারের ওপারে যে লোকগুলি রয়েছে তাদের বেশ কিছু সমস্যা রয়েছে। যে সমস্যাগুলির সমাধান শুধুমাত্র কেন্দ্র ও রাজ্যের সমন্বয়ের মাধ্যমেই সমাধান করা সম্ভব, না হলে সমাধান করা সম্ভব না। সুকান্ত মজুমদার বলেন ২ দিন অপেক্ষা করার পর সমস্যা সমাধান না হওয়ায় আমি সেজন্য আজকে সরজমিনে খতিয়ে দেখতে যেতে চাইছিলাম যে কি অবস্থায় আছে। বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার-এর অভিযোগ তাকে পুলিশ আটকায়, পুলিশ আটকানোর সময় তাকে কোন অর্ডার বা কাগজ কিছু দেখাতে পারেনি।

বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার-এর এও অভিযোগ তৃণমূলের নেতা-নেত্রী সহ অর্পিতা ঘোষ গতকাল হিলিতে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তাদেরকে আটকাতে না পারলেও আজকে তাকে(সুকান্ত মজুমদার-কে) কেন আটকাচ্ছে পুলিশ সে বিষয়ে পুলিশ কোন সদুত্তর দিতে পারেনি। বিজেপি সাংসদের এই মন্তব্যের পাল্টা কটাক্ষ করেন তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অর্পিতা ঘোষ-ও। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অর্পিতা ঘোষ বলেন আমি যে ঘুরে বেড়াচ্ছি আমি প্রশাসনিক পারমিশন নিয়েই ঘুরে বেড়াচ্ছি, আমার কাছে প্রশাসনিক পারমিশন আছে লিখিত। একই সঙ্গে সাংসদ সুকান্ত মজুমদার-কে উদ্দেশ্য করে অর্পিতা ঘোষ বলেন উনি(সুকান্ত মজুমদার যদি মনে করেন উনি সাংসদ হয়েছেন বলে উনার পারমিশন লাগবে না তাহলে উনি ভুল করেছেন।

আরও পড়ুন: করোনা আবহে সব রাজ্যে মাত্র ১৫ টাকায় খাবার দেবে রেল

এরপর প্রায় প্রায় সাড়ে চার ঘন্টা সুকান্ত মজুমদার জাতীয় সড়কের পাশে চেয়ার পেতে বসে থাকেন। অপরদিকে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পুলিশের ডি.এস.পি ধীমান মিত্র-র নেতৃত্বে র‍্যাফ সহ বিশাল সংখ্যক পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌছায়। এরপর সকাল গড়িয়ে দুপুর হতেই বেশ কিছু মহিলা ঘটনাস্থলে হাজির হয় এবং বিজেপি সাংসদের দীর্ঘক্ষণ রাস্তায় ধারে বসে লোকজন নিয়ে বসে থাকার অভিযোগ তুলে বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার-কে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায়। অবশেষে পুলিশি হস্তক্ষেপে বিক্ষোভরত মহিলারা ফিরে যান। এরপর বালুরঘাটের মহকুমা শাসক ঘটনাস্থলেই চিঠি পাঠিয়ে বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদকে ১৪ দিন হোম করোয়ান্টানে থাকার নির্দেশ দেন। যার পরেই ক্ষুব্ধ বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার বলেন ২৩শে মার্চ আমি বালুরঘাটে এসেছি এবং বালুরঘাটে আসার পর আমি ১৪ দিন হোম করোয়ান্টানে থেকেছি এবং তারপর আমি বাড়ি থেকে বের হয়েছি। একই সঙ্গে বিষয়টি তিনি রাজ্যপাল ও কেন্দ্রীয় সরকারকে জানাবেন বলে জানিয়েছেন। মহকুমা শাসকের কাছ থেকে চিঠি পাওয়ার পর এদিন গাড়ির অভিমুখ ঘুরিয়ে বাড়ির দিকে রওনা হন বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার।

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পুলিশের ডি.এস.পি ধীমান মিত্র বলেন এই মুহূর্তে ন্যাশনাল ডিসাস্টার ম্যানেজমেন্ট আক্ট এবং ই.সি আক্ট চলছে, সেই অনুযায়ী কয়েকটি সেক্টর ছাড়া ফ্রি মুভমেন্ট বন্ধ করা আছে। আমরা সেটাই পালন করছিলাম। একই সঙ্গে বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদের তোলা অন্যান্য জনপ্রতিনিধি যেতে দিলেও তাকে যেতে দেওয়া হচ্ছে না প্রসঙ্গে ডি.এস.পি ধীমান মিত্র-র প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে ডি.এস.পি ধীমান মিত্র বলেন এ সমন্ধে আমাদের জানা নেই।

Related Articles

Back to top button
Close