fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মালদায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ বিজেপি সাংসদ খগেন মূর্মূ’র

জেলা প্রতিনিধি, মালদা: মালদায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়তে থাকায় রীতিমতো উদ্বেগ প্রকাশ করলেন উত্তর মালদার বিজেপি সাংসদ খগেন মূর্মূ। একইভাবে সাংবাদিক বৈঠক করে উদ্বেগের কথা প্রকাশ করেছেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা কৃষ্ণেন্দু চৌধুরী। রবিবার দুপুরে মালদার শাসক ও বিরোধী দলের নেতার সাংবাদিক বৈঠকে রাজনৈতিক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

উত্তর মালদার সাংসদ খগেন মূর্মূর সাফ কথা, আমরা আগেই বলেছিলাম রাজ্য সরকার করোনা নিয়ে তথ্য গোপন করছে। তার প্রমাণ এখন হাড়ে হাড়ে মিলছে।

কারণ, মালদায় ১০০’র গণ্ডি পেরিয়ে গিয়েছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। আরও যে কত হবে, তার ঠিক ঠিকানা নেই। কোয়ারেন্টাইনে সেন্টারের অভাব। তার ওপর পরিযায়ী শ্রমিকদের ঠিকভাবে তদারকি করা হচ্ছে না। সব মিলিয়ে এখন উদ্বেগজনক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।
অন্যদিকে মালদা শহরের কালীতলা এলাকায় নিজের দলীয় কার্যালয়ে বসে তৃণমূল নেতা তথা প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু চৌধুরী বলেন, বর্তমানে মালদায় এক ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির মুখে। এক কথায় আগ্নেয়গিরির ওপর দাঁড়িয়ে রয়েছে মালদা।

করোনা মোকাবিলায় আমেরিকা, ফ্রান্স সহ বিভিন্ন দেশগুলি মুখ থুবড়ে পড়েছে। কয়েকদিনের মধ্যেই মালদারও সেই পরিণতি হবে। করোনা মোকাবিলা করা সরকারের পক্ষে একা সম্ভব না, মানুষকে সচেতন হতে হবে। উৎসবমুখি হলে, মানুষ সব ভুলে যায়। আর ক্ষতি হয় ছোট এবং বয়স্কদের।

এদিকে প্রশ্ন উঠেছে রাজনৈতিকভাবে কেন এতদিন শাসক এবং বিরোধী দলগুলি মুখে কুলুপ এঁটে ছিল কেন ? তারা করোনা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে এতদিন কোনওরকম মত প্রকাশ করেননি। কি এমন ঘটনা ঘটল যাতে করে, একের পর এক মত প্রকাশ করতে শুরু করেছে জেলা বিজেপি থেকে তৃণমূল নেতৃত্ব। এর পেছনেও কি রাজনৈতিক কোনও অভিসন্ধি রয়েছে, তা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

যদিও এদিন উত্তর মালদার বিজেপি সাংসদ খগেন মূর্মূ বলেন, রাজ্য সরকারের যেভাবে এতদিন সঠিক তথ্য লুকিয়ে রেখে কাজ করছিল এখন তার প্রমাণ মিলছে। দিনে দিনে যেভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা রাজ্য তথা মালদায় বাড়ছে তাতে আগামী দিনে স্বাস্থ্য পরিকাঠামো ভেঙে পড়বে। পরিযায়ী শ্রমিকদের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারগুলোর বেহাল অবস্থায়। তাদের ঠিকমত পরীক্ষা করা হচ্ছে না, খাবার ও ঠিক মতোন দেওয়া হচ্ছে না। জানিয়ে জেলার বিভিন্ন এলাকার কোয়ারেন্টাইন সেন্টারগুলোতে গোলমাল চলছে। তার মধ্যে আবার লকডাউন উঠিয়ে দিয়ে সমস্ত বাজার খুলে দেওয়া হয়েছে। এই পরিস্থিতিতেই উদ্বেগ্ন প্রকাশ করছি।

অন্যদিকে তৃণমূল নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু চৌধুরী বলেন, বিভিন্ন রাজ্য থেকে যারা মালদা এসেছেন তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তাদের লালারস পরীক্ষা করে রিপোর্ট আসার পর জানা যাচ্ছে কারো পজেটিভ, কারো নেগেটিভ। কিন্তু অনেকেই নানান ভাবে মালদায় ফিরছে। সেক্ষেত্রে তাদের পরীক্ষার কোনও ব্যবস্থা করা হচ্ছে না। লকডাউনের মধ্যেও খোলা রয়েছে একাধিক শপিংমল। মালদার মানুষ এখন সচেতন না হলে এক ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হবে সকলকে।

Related Articles

Back to top button
Close