fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রেশন ও ত্রাণ দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ বিজেপির

পার্থ ধাড়া, বরানগর: নাগরিক পরিষেবা দিতে ব্যর্থতার অভিযোগে শুক্রবার বরানগর পৌরসভার সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করল বিজেপি । এদিন বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে পৌরসভার সামনে জমায়েত করেন বরানগরের বিজেপি নেতা-কর্মীরা ।

 

 

 

এদিনের কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন কলকাতা উত্তর শহরতলি জেলার সহ সভাপতি বিজয় মাহাতো এবং জেলার সভাপতি কিশোর কর । তাঁদের উপস্থিতিতে বিজেপির নেতা কর্মীরা প্ল্যাকার্ড হাতে শ্লোগান দিতে থাকেন পৌরসভার সামনে । তাঁদের বক্তব্য বর্তমান পৌরসভা নাগরিকদের পরিষেবা দিতে সব দিক থেকেই ব্যর্থ হয়েছে। তাই তাঁদের বিভিন্ন দাবিকে প্ল্যাকার্ডের মাধ্যমে তুলে পৌরসভার সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করলেন ।

 

 

 

করোনার মতো অতিমারীর কারণে সারা দেশে গত প্রায় আড়াই মাস ধরে লকডাউন চলেছে । তার জেরে এমনিতেই সাধারণ মানুষের জীবন বিপর্যস্ত । তার উপর আমফানের তাণ্ডব । এমনিতেই বহু দিন আনা দিন খাওয়া মানুষের রোজগার বন্ধ, হাতে টাকা নেই । তার উপর ঝড়ের কবলে পড়ে বহু মানুষের মাথার উপরের চালাও নষ্ট হয়ে গেছে । এমন পরিস্থিতিতেও রেশন দুর্নীতি থেকে শুরু করে ত্রিপলসহ অন্যান্য ত্রাণ বিলিতেও দুর্নীতি হচ্ছে । এছাড়াও পৌরসভায় নিয়োগ নিয়েও দুর্নীতি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন বিজেপি নেতা কর্মীরা । এইসব একাধিক ইস্যুতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করার পর পৌরসভার এক্সিকিউটিভ অফিসারের ঘরে ডেপুটেশন জমা দেন বিজেপির নেতারা ।

 

 

 

এদিন বরানগরের বিশিষ্ট বিজেপি নেতা রাজীব মিশ্রও জানান যে ‘যাদের পুরোনো রেশন কার্ড আছে তাঁদের অনেকেই এখনও কুপন পাননি তাই রেশনও পাচ্ছেন না । আবার আমফানের পরে অনেকটা সময় কেটে গেলেও এখনও বহু জায়গায় গাছ ভেঙে পড়ে আছে, এ অঞ্চলের নিকাশি ব্যবস্থা খুব খারাপ, পানীয় জলেরও সমস্যা আছে । শুধু তাই নয় আমফান পরবর্তী পরিস্থিতিতেও রেশন ও ত্রাণ নিয়ে বহু দুর্নীতি চলছে । বেছে বেছে কুপন বিলি করা হচ্ছে । কর্মী নিয়োগেও কম দুর্নীতি হয়নি । কেবলমাত্র স্বজনপোষণ ছাড়া আর কিছুই করছে না পৌরসভা ।’

 

 

ডেপুটেশন জমা দিয়ে বেরিয়ে এসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বিজেপির সাংগঠনিক জেলা কলকাতা উত্তর শহরতলির সভাপতি কিশোর কর । তিনি বলেন যে ‘বরানগরে রেশনের অনেক সমস্যা আছে । প্রত্যেকের ডিজিটাল কার্ড নেই । পুরোনো কার্ড যাদের আছে তাঁরা সকলে কুপন পাননি । তাঁদের নামের একটি তালিকা তৈরি করা আছে । অফিসার জানান এমন প্রায় চোদ্দশো নামের তালিকা তিনিও পেয়েছেন । তাদের মধ্যে কয়েকজন কুপন পেয়েছেন কয়েকজন বাকি আছেন । বিজেপির কাছেও তিনি তালিকা চেয়েছেন । এরপর আমফানের বিষয়েও কথা হয়েছে । এক্সিকিউটিভ অফিসার জানিয়েছেন যে আমফান পরবর্তী পরিস্থিতির মোকাবিলায় প্রায় চোদ্দ কোটি টাকা খরচ হবে । এত টাকা পৌরসভার পক্ষে খরচ করা সম্ভব নয়। তাই কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন । তবে তিনি এও আশ্বাস দেন যে পৌরসভা সাধ্যমত চেষ্টা করছে । আমফান পরবর্তী পরিস্থিতিতে সকলের কাছে ত্রিপল ও ত্রাণসামগ্রী পৌছায়নি । পৌরসভার কাছে তিনশো জনের তালিকা থাকলেও বিজেপির কাছে প্রায় পাঁচশো জনের তালিকা আছে । পৌরসভার পক্ষ থেকে সেই তালিকা চাওয়া হয়েছে। বিজেপি অবিলম্বে তা জমা দেবে ।’ কিশোর বাবু জানান পৌরসভার হাতে সব তালিকাই বরানগর বিজেপি তুলে দেবে এবং কাজের গতিবিধির উপর নজরও রাখা হবে । তারপরেও যদি কাজের অগ্রগতি না হয় তাহলে পুনরায় এই রকম বিক্ষোভ অবস্থান করা হবে ।

Related Articles

Back to top button
Close