fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দুষ্কৃতী তান্ডবে আতঙ্কিত শিলিগুড়ি, উদ্বেগ প্রকাশ বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি রাজু ব্যানার্জির

কৃষ্ণা দাস, শিলিগুড়ি: রাতের অন্ধকারে শিলিগুড়ির শিল্পতালুকে দুষ্কৃতী তান্ডবে আতঙ্কিত শিল্পপতিরা। ভীত শিল্পতালুকের সাধারণ কর্মীরাও। গত সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেটের অন্তর্গত আকারিগঞ্জের শিল্পাঞ্চলের একটি বোতলজাত পানীয় জলের কারখানায়। ঘটনার পর মন্ত্রীর বক্তব্য অনুযায়ী পুলিশ তদন্ত শুরু করলেও, এরপর চার দিন কেটে গেলেও, দুষ্কৃতীরা এখনও অধরা। আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক চাপানউতোর চরমে।

ওই পানীয় জলের কারখানার মালিক ও কর্মীদের বয়ান অনুযায়ী, গত ১৩তারিখ সোমবার রাত প্রায় সাড়ে এগারোটা নাগাদ দুইজন দুষ্কৃতী কারখানার পাঁচিল টপকে কারখানার সীমানার মধ্যে ঢুকে পড়ে। তাদের মুখে গামাছা বাধা ছিল। এরপর কারখানার কর্মীরা তাদের কিছু জিজ্ঞাস করার আগেই তারা খোলা আকাশে এক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। তাতে কর্মীরা ভয় পেয়ে কারখানার ঘরে ঢুকে পরে। এরপর বেশ কিছুক্ষণ পর কর্মীরা বেরিয়ে এলে, তাদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ফের তিন রাউন্ড গুলি ছোড়ে। তারপর তারা কর্মীদের ভয় দেখিয়ে চম্পট দেয় বলে কারখানার কর্মীদের অভিযোগ। তারা আরও অভিযোগ, ওই দুই দুস্কৃতিদের হাতে বড়ো লাঠি ও পিস্তল ছিল।

অন্যদিকে কারখানার মালিক বলেন, আমরা বাইরে থেকে এসে এখানে কারখানা করেছি। হঠাৎ করে এধরনের ঘটনায় আমি এবং আমাদের মত শিল্পপতিরা খুবই আতঙ্কিত ও উদ্বিগ্ন। তাদের সকলের বক্তব্য একদিকে যখন মুখ্যমন্ত্রী ক্ষুদ্র ও নানা ধরনের শিল্পের জন্য আহ্বান জানাচ্ছেন, সেখানে এইধরনের ঘটনা ঘটছে। তাতে আমরা কেউই নিরাপদ ও নিশ্চিন্ত হতে পারছি না৷ এধনের ঘটনা যদি আরও ঘটে তাহলে কেউই আর শিল্প করতে এগিয়ে আসবে না।”

আরও পড়ুন:হরিচাঁদ ঠাকুরের নামে অশালীন পোস্ট, উত্তেজনা…দুর্গাপুরে পুলিশের কাছে ডেপুটেশন মতুয়াদের

ইতিমধ্যে তারা প্রশাসন ও সরকারের কাছে তাদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষার দাবি জানান। যদিও এই ঘটনায় কোন হতাহত না হলেও আতঙ্ক ছড়িয়েছে শিলিগুড়ির গোটা শিল্পমহলে। আকারিগঞ্জের ওই শিল্পতালুকে ছোট, বড়, ক্ষুদ্র, ভারী শিল্প মিলিয়ে প্রচুর কারখানা বা শিল্প রয়েছে। করোনা আবহে হঠাৎ করে দুষ্কৃতী এধরনের তান্ডবের জেড়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন নর্থ বেঙ্গল ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যাসোসিয়েশের সভাপতি সুরজিৎ পালও।  তার বক্তব্য, ভীষণই উদ্বেগের বিষয়। অবিলম্বে দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার করা প্রয়োজন। শিল্পপতিদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়ালে তা ব্যবসায় প্রভাব পড়তে পারে।

এদিকে, ওই ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি  রাজু ব্যানার্জি। তার বক্তব্য, “উত্তরবঙ্গ নতুন করে শিল্প হাব হচ্ছে৷ শিল্প হচ্ছে। কিন্তু এখানে দেখা যাচ্ছে তৃণমূলের গুন্ডারা তোলা পায়নি বলে একটা ছোট্ট জলের কারখানায় এসে গুলি ছুড়ছে, তান্ডব চালাচ্ছে। এখনও পর্যন্ত সেই ঘটনার কেউই গ্রেফতার হয় নি। যেখানে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরাজ  চলছে। সেখানে কে শিল্প করতে আসবে এই বাংলায়।”  তার অভিযোগ, “যেখানে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা ঘুরে বেড়াচ্ছে সেখানে পশ্চিমবঙ্গে অন্য কোন শিল্প হবে না।  এখানে চপ আর ঢপের শিল্প হবে। আর হবে বোমা শিল্প। এখানে শুধু গুন্ডা রাজ, মাফিয়া রাজ, আর জঙ্গল রাজ চলছে।”

আরও পড়ুন:এবার খুন বিজেপি যুবনেতা! চাঞ্চল্য নদিয়ায়, কাঠগড়ায় তৃণমূল

যদিও রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী, তথা উত্তরবঙ্গে শিল্প আনতে অন্যতম উদ্যোগী নেতা গৌতম দেব, গোটা ঘটনার বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চান নি। বলাবাহুল্য, দুষ্কৃতীদের এই গুলি চালানো, তান্ডবের ঘটনা নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন তিনি। তার একটা বক্তব্য, “পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে”।

 

Related Articles

Back to top button
Close