fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আবর্জনা ফেলা নিয়ে গন্ডগোল থেকে রাজনৈতিক সংঘাত, উত্তপ্ত দিনহাটা

নিজস্ব প্রতিনিধি দিনহাটা: বাড়ির পাশে নোংরা ফেলাকে কেন্দ্র করে গন্ডগোল। তার জেরে  রাজনৈতিক সংঘর্ষের অভিযোগ কে ঘিরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ল  দিনহাটা ২ ব্লকের কিশামত দশগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। বৃহস্পতিবার রাতে  দশগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার রানিরহাটের প্রত্যন্ত গ্রামে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় আহত হয় পাঁচজন। এদের মধ্যে তিনজন দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আহতরা সকলেই বিজেপি দলের কর্মী সমর্থক বলে দলীয় সূত্রে দাবি করা হয়েছে।এই ঘটনা প্রতিবেশী দুই পরিবারের মধ্যে গণ্ডগোলের জের বলে দাবি তৃণমূলের। বিজেপি প্রতিবেশীদের গন্ডগোলকে রাজনীতি করে রং লাগানোর চেষ্টা করছে বলেও পাল্টা অভিযোগ আনেন তৃণমূল। উল্লেখ্য বুধবার রাতেও দিনহাটা ভেটাগুড়িতে তৃণমূল বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সেই ঘটনায় উভয়পক্ষের ছয়জনের বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে উভয় দলের কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে। এদিকে রানিরহাটের ঘটনার বিবরণে জানা গেছে এলাকার দীনেশ অধিকারীর বাড়ির সামনে নোংরা ফেলাকে ঘিরে প্রায় দুই পরিবারের মধ্যে প্রায়ই গন্ডগোলের ঘটনা ঘটত। এদিন এলাকার দীনেশ অধিকারী তার নিজের জায়গায় নোংরা ফেলছিল বলে অভিযোগ। সেই সময় প্রতিবেশী ক্ষিতীশ বর্মন, ধজেন বর্মন প্রমুখদের সাথে প্রথমে বচসা বাধে। পরে উভয় পক্ষের মধ্যে আক্রমণ প্রতি আক্রমনের ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন দীনেশ অধিকারী বলেন “তারা নিজেদের জমি থেকে কলাগাছ কেটে পরিষ্কার এরপর সেই সব নোংরা বাড়ির সামনেই ফেলছিলেন। সেই সময় প্রতিবেশী তৃণমূল নেতা ক্ষিতীশ বর্মন দলীয় কর্মী সমর্থকদের নিয়ে তাদের উপর আক্রমণ করে । কোনওরকম কারণ ছাড়াই তারা এসে তাদের মারধর করে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাদেরকে আক্রমণ করা হয়”।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সঞ্জীব অধিকারী বলেন “তারা বিজেপি করায় বেশ কিছুদিন থেকেই তাদের মধ্যে সাথে দ্বন্দ্ব চলছিল। এদিন তার বাবা  বাড়ির সামনেই কলাগাছের নোংরা ফেলতে গেলে হঠাৎ করে ওই তৃণমূল নেতারা তাদের উপর আক্রমণ করে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। তাদের মাথায় ছাড়াও হাত সহ বেশ কয়েক জায়গায় আঘাত করা হয় বলে অভিযোগ। গোটা ঘটনা পুলিশকেও জানানো হয়েছে”।

বিজেপি কোচবিহার জেলা সম্পাদক সুদেব কর্মকার, দিনহাটাও শহর মন্ডল সভাপতি অমিত সরকার, হিমাংশু দাস প্রমুখ বলেন “গত লোকসভা ভোটে পরাজয়ের পর এবার বিধানসভা ভোট কে লক্ষ্য রেখে তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী সমর্থকরা পুলিশ প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে আগে থেকেই গ্রামগঞ্জে নানাভাবে সন্ত্রাস শুরু করেছে।গত কয়েকদিন ধরে দিনহাটার বিভিন্ন এলাকায় বিজেপি দলের কর্মীদের বাড়ি ভাঙচুর থেকে শুরু করে মারধরের ঘটনা ঘটাচ্ছে তৃণমূল”। পুলিশকে অভিযোগ জানানো সত্ত্বেও কোনরকম পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি বলে অভিযোগ।

বিষয়টি নিয়ে তৃণমূলের দিনহাটা বিধানসভা কার্যকরী কমিটির আহ্বায় বিষ্ণু কুমার সরকার বলেন ”রানিরহাটের ঘটনা প্রতিবেশী দুই পরিবারের মধ্যে গণ্ডগোলের জের। এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের কোন সম্পর্ক নেই”। বিজেপি পারিবারিক গন্ডগোলকে রাজনৈতিক রঙ লাগিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করছে করছে বলে অভিযোগ তৃণমূলের।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে রানিরহাটে দুই পরিবারের মধ্যে গণ্ডগোলের ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close