fbpx
কলকাতাহেডলাইন

কর্মীখুনে সিবিআই চায় বিজেপি: দিলীপ

মিথ্যে বলছেন দিদি, প্রকাশ্য রাস্তায় গুলি চালালো পুলিশ

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: পুলিশের গুলিতেই মৃত্যু হয়েছে বিজেপি কর্মী উলেন রায়ের। মুখ্যমন্ত্রীর দাবি নস্যাৎ করে পাল্টা এই দাবিতেই ফের সুর চড়ালেন সিলীপ ঘোষ।সিবিআই দিয়ে দলীয় কর্মী খুনের তদন্ত দাবি করেছেন বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব।

রাজ্য বিজেপি সভাপতি বলেন, ‘আমাদের কর্মী উলেন রায়ের মৃত্যু নিয়ে ডাহা মিথ্যা কথা বলছেন দিদি। তিনি বলছেন আমরা নাকি নিজেদের কর্মীকে গুলি করে মেরেছি।এটা সফেদ ঝুট, নির্লজ্জ মিথ্যা বলছেন উনি। নিন্দা করার ভাষা নেই।’ তাঁর দাবি ‘প্রকাশ্যে দিনের আলোয় পুলিশ গুলি চালিয়েছে। সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে। সিআইডি দিয়ে ঘটনা ধামাপাচা দেওয়ার চেষ্টা চলছে। সিবিআই ৎদন্ত হলে সব সত্যি সামনে আসবে’।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘শুধু উলেন রায় নন, আমাদের আরও ১০, ১২ জন কর্মী যাঁরা আহত অবস্থায় হাসপাতালে রয়েছেন তাঁদের শরীরেও ছররা বন্দুকের গুলির আঘাত রয়েছে।আর সবার সামনের দিকে আঘাত লেগেছে। মিছিল থেকে গুলি ছোঁড়া হলে শরীরের পিছনদিকে আঘাত লাগবে। দাড়িভিট কাণ্ডের সময়েও‌ এমন অভিযোগ উঠেছিল। তখনও রাজ্য সরকার সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল। কোনও ফল হয়নি। আমরা তাই এই ঘটনার সিবিআই তদন্তের দাবি করছি।’

একইসঙ্গে তিনি উলেনের মরদেহের দ্বিতীয় বার ময়নাতদন্তের দাবি জানিয়েছেন। মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ‘ রাতের অন্ধকারে এতো তাড়াহুড়ো করে ময়নাতদন্তের কী দরকার ছিল? নিয়ম অনুযায়ী দিনের আলোয় ময়নাতদন্ত করতে হয়। তাছাড়া মৃগেন রায় নামে এক প্রতিবেশীকে যোগাযোগ করে পুলিশ মরদেহ নিয়ে যেতে বলে। আমাদের প্রশ্ন এতে তাড়াহুড়ো কিসের। আমাদের দাবি তিনজন ডাক্তারের উপস্থিতিতে দ্বিতীয়বার মরদেহের ময়নাতদন্ত করতে হবে। সেইসময় ভিডিও গ্রাফি করতে হবে পুরো প্রক্রিয়ার।’

আরও পড়ুন: মমতার পাড়ায় এসে গৃহ সম্পর্ক অভিযান, কালিঘাট মন্দিরে পুজো দেবেন জে.পি. নাড্ডা

এদিন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু প্রয়াত উলেন রায়ের বাড়িতে যান। তিনি উলেন রায়ের পরিবারকে আশ্বস্ত করে বলেন, দল তাঁদের পাশে রয়েছে। তিনিও সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বলেন, ‘ আমাদের সিআইডি তদন্তে আস্থা নেই। আমরা মনে করি সিবিআই তদন্ত ছাড়া প্রকৃত দোষীকে শাস্তি দেওয়া যাবে না। একইসঙ্গে দ্বিতীয় বার ময়নাতদন্তের দাবিও জানিয়েছি আমরা।’

এদিন বিজেপির হেস্টিংস দফতরে সাংবাদিক বৈঠক করে রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য পুলিশ ও তৃণমূল আশ্রিত সমাজবিরোধী  যোগের অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, ‘ পুলিশের বেশে ঘটনাস্থলে থাকা  সমাজবিরোধীদের গুলিতে মৃত্যু হয়েছে উলেন রায়ের। আমরা নন্দীগ্রাম পর্বে হাওয়াই চটি পুলিশ দেখেছি। এখন দিদির আমলে পুলিশ সমাজবিরোধী যোগ দেখছি।’ তিনি বলেন, ‘পুলিশ এখন তৃণমূলের দলদাস হিসাবে কাজ করছে। আমরা এক্ষেত্রে দেখলাম তদন্ত শুরুর আগেই কলকাতা পুলিশের পক্ষে একটি টুইট করে জানিয়ে দেওয়া হলো বিজেপি কর্মীরা আগ্নেয়াস্ত্র বহন করছিলেন। এটা পুলিশকে বদনাম করার জন্য গভীর চক্রান্ত। বিষয়টি তদন্ত করার জন্য সিআইডিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। যাঁরা প্রকৃত দোষী তাঁরা উপযুক্ত শাস্তি পাবেন। আমাদের সিআইডি তদন্তে আস্থা নেই, তাই সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছি।’

 

Related Articles

Back to top button
Close