fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিজেপি কর্মীদের মারধরের অভিযোগ তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে, উত্তেজনা

মিলন পণ্ডা, খেজুরি (পূর্ব মেদিনীপুর):  আমফানের ক্ষতিগ্রস্তদের সরকা্রি সাহায্য নিয়ে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল খেজুর।বিজেপি কর্মী সমর্থকদের মারধরের অভিযোগ উঠল এলাকার তৃণমুলের পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে। আহত বিজেপি কর্মী সমর্থকরা স্থানীয় একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসাধীন বলে জানা গিয়েছে। এই ঘটনার পর এলাকায় ব্যাপক রাজনৈতিক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরির হলুদবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। ঘটনা সামাল দিতে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে খেজুরি থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। যদিও বিজেপি কর্মী সমর্থক যুবকদের মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এলাকার তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আমফানের ঝড়ের ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা নিয়ে স্বজনপোষণ হয়েছে বলে এলাকার কয়েকজন বিজেপি কর্মী ও গ্রামবাসীর সঙ্গে নিয়ে এলাকার পঞ্চায়েত হাজির হয়। শুক্রবার দুপুরে গ্রাম পঞ্চায়েতের অফিসের গিয়ে দেখে আমফানের ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা দেখেন। সেই তালিকাতে স্বজনপোষণ হয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন বিজেপি। খেজুরি হলুদবাড়ি  গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান তাপস প্রামাণিকের কাছে স্বজনপোষণের অভিযোগ জানালে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের মারধর করে বলে অভিযোগ।আহত বিজেপি কর্মী সমর্থকদের উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়।

এই ঘটনা জানাজানি হতেই পঞ্চায়েত অফিসের সামনে বিজেপি কর্মী সমর্থনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে আসে খেজুরি থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। এরপর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। খেজুরির বিজেপি নেতা শুভ্রাংশু দাস বলেন, এলাকার তৃনমলের প্রধান উন্নয়নের নামে প্রহসন করছেন। হলুদবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলের প্রধান তাপস প্রামাণিক আমফানের ক্ষতিগ্রস্ত নিয়ে স্বজনপোষণ করছেন। আমফানের  ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামের মানুষকে না দিয়ে নিজের লোকেদের পাইয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করছেন।

যদিও এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে হলুদবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান তাপস প্রামাণিক বলেন, এটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন অভিযোগ।যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের নাম পাঠানো হয়েছে।বিজেপি কর্মীদের কোনও মারধরের ঘটনা ঘটেনি। বিজেপি এসব নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করেছে। খেজুরি থানার ওসি সত্যজিৎ চানক বলেন, গন্ডগোলের খবর পেয়ে ঘটনার স্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনা হয়। যদিও এই ঘটনায় কোনও পক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেনি। অভিযোগ পেলে পুরো ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হবে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close