fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

জলপাইগুড়িতে পিছিয়ে মন্ত্রী গৌতম…. অ্যাডভান্টেজ বিজেপির, চাপে তৃণমূল

রক্তিম দাশ, কলকাতা: জলপাইগুড়িতে একুশের লড়াই শুরু করার আগে অনেকটাই ব্যাকফুটে শাসকদল তৃণমূল। ২০১৬-র বিধানসভায় জলপাইগুড়ি লোকসভা কেন্দ্রের অর্ন্তগত ৭টি বিধানসভায় তৃতীয় স্থানে ছিল গেরুয়া শিবির। অপরদিকে ওই ৬টি বিধানসভা দখলে করেছিল তৃণমূল, একটিতে বাম সমর্থিত কংগ্রেস প্রার্থী জয়লাভ করেছিলেন। কিন্তু তিনটি বছর পরে ফল উলটে জলপাইগুড়ি লোকসভার ৭ টি আসনের মধ্যে ৬ টি এগিয়ে বিজেপি, আর মাত্র একটিতে প্রথম স্থানে তৃণমূল। শুধু তাই নয়, এই লোকসভা আসনের অর্ন্তগত উত্তরবঙ্গের তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা তথা মন্ত্রী গৌতম দেবের ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি বিধানসভায় বিপুল ভোটে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি।

জলপাইগুড়ি লোকসভা কেন্দ্রটি কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ (এসসি), ধূপগুড়ি (এসসি), ময়নাগুড়ি (এসসি), জলপাইগুড়ি (এসসি), রাজগঞ্জ (এসসি), ডাবগ্রাম ফুলবাড়ি এবং মাল (এসটি) বিধানসভা নিয়ে গঠিত।

মেখলিগঞ্জ বিধানসভা আসনটি ১৯৭৭ থেকে ২০১১ পর্যন্ত বামশরিক ফরওর্য়াড ব্লকের দখলে ছিল। এই আসনটিতে মোট ভোটার ২০২৬৮৯। ২০১৬ সালে এই আসনটি পায় তৃণমূল। তৃণমূলের অর্ঘ রায় প্রধান ৭৪৮২৩(৪১.৩৫ শতাংশ), ফরওর্য়াড ব্লকের পরেশ অধিকারী ৬৮১৮৬(৩৭.৬৮ শতাংশ) এবং বিজেপির দধিরাম রায় ২৩৩৫৫ (১২.৯১) শতাংশ ভোট পান। তৃণমূল এই আসনটি জেতে ৬৬৩৬ ভোটে। ২০১৯ লোকসভা ভোটে ফল উলটে যায়। এই বিধানসভা বিজেপি ৮৭১৪০,তৃণমূল ৮২৪৩৫ এবং সিপিএম ৮১৫৩। বিজেপি এগিয়ে যায় ৪৭০৫ ভোটে।

আরও পড়ুন:আলিপুরদুয়ারে পিছিয়ে তৃণমূল সব আসনে এগিয়ে বিজেপি

ধূপগুড়ি বিধানসভাটি ১৯৭৭ থেকে ২০১১ পর্যন্ত সিপিএমের হাতে ছিল। এই বিধানসভায় মোট ভোটার ২০০,০৪৫। ২০১৬-তে এই আসনটি প্রথম জয় পায় তৃণমূল। দলটির মিতালি রায় ৯০৭৮১ (৪৩.৪৯ শতাংশ), সিপিএমের মমতা রায় ৭১৫১৭ (৩৪.২৬ শতাংশ)এবং বিজেপির আগুন রায় ৩৬১৬৭ (১৭.৩৩ শতাংশ) ভোট পান। তৃণমূল এই আসনটি জেতে ১৯২৬৪ ভোটে।
২০১৯ এর লোকসভা ভোটে এই বিধানসভায় বিজেপি ১০৫৭২৯, তৃণমূল ৮৭৯৬৩, সিপিএম ১৩০১৬ ভোট পায়। এই বিধানসভায় বিজেপি এগিয়ে ১৭৭৬৬ ভোটে।

ময়নাগুড়ি বিধানসভা ১৯৭৭ থেকে ২০১১ পর্যন্ত ছিল আরএসপির দখলে। আসনটির মোট ভোটার ১৯৮৪০০। ২০১৪-র উপনির্বাচনে এবং ২০১৬-র বিধানসভা ভোটে এই আসনটি তৃণমূলের দখলে যায়। তৃণমূলের অনন্তদেব অধিকারী ১০০৮৩৭ (৪৭.৮৫ শতাংশ), আরএসপির ছায়া দেব রায় ৬৫৯৩০ (৩১.২৯ শতাংশ) এবং বিজেপির বিশ্বজিৎ রায় ৩০৭৪২ (১৪.৫৯ শতাংশ) ভোট পান। এই আসনটি তৃণমূল ৩৪৯০৭ ভোটে জয়লাভ করে। কিন্তু ২০১৯ এর লোকসভায় বিজেপি ১১০৮১৯, তৃণমূল ৯৬০৭২ এবং সিপিএম ৫৯১৬ ভোট পায়। বিজেপি এই বিধানসভায় এগিয়ে ১৪৭৪৭ ভোটে।

জলপাইগুড়ি বিধানসভা আসনটি বরাবরই কংগ্রেসের শক্ত ঘাঁটি বলে পরিচিতি। মোট ভোটার ২০৭৬১৯। ২০১৬-তে এই আসনে কংগ্রেসের সুখবিলাস বর্মা ৯৪৫৫৩ (৪৫.৪১ শতাংশ),তৃণমূলের ধরীত্রিমোহন রায় ৮৯৩৯৬ (৪২.৯৩ শতাংশ), বিজেপির তপন রায় ১৬০২৯ (৭.৭০ শতাংশ) ভোট পান। এই কেন্দ্রে কংগ্রেস জয় পায় ৫১৫৭ ভোটে। কিন্তু ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে এই আসনে প্রচুর ভোট বাড়িয়ে নেয় বিজেপি। বিজেপি ১১২১৪৭,তৃণমূল ৭২৯৬২ এবং সিপিএম পায় ১৬৪১২ ভোট। বিজেপি এই আসনে এগিয়ে রয়েছে ৩৯১৮৫ ভোটে।

আরও পড়ুন:দুর্গাপুজো নিয়ে অনিশ্চয়তায় উদ্যোক্তারা, কাজ নেই রায়গঞ্জের কুমোরটুলিতে

রাজগঞ্জ বিধাসভা ১৯৭৭ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত ছিল সিপিএমের দখলে। ২০০৯ এর উপনির্বাচন এবং ২০১১ এবং ২০১৬-র বিধানসভায় আসনটি যায় তৃণমূলের দখলে। ২০১৬-তে তৃণমূলের খগেশ্বর রায় ৮৯৭৮৫ (৪৬.১৫ শতাংশ), সিপিএমের সত্যেন্দ্রনাথ মণ্ডল ৭৫১০৮ (৩৮.৬১ শতাংশ) এবং বিজেপির প্রকাশচন্দ্র রায় ১৭৮১১ (৯.১৬ শতাংশ) ভোট পান। তৃণমূল জেতে ১৪৬৭৭ ভোটে। ২০১৯ এর লোকসভায় এই আসনটি এগিয়ে থাকে তৃণমূল। তৃণমূল ৯৪৭২৭, বিজেপি ৯০৪০৭, এবং সিপিএম ৯৯২৬ ভোট পায়। এই আসনে বিজেপি মাত্র ৪৩২০ ভোটে পিছিয়ে।

ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি আসনটি ডিলিমেটেশনের ফলে তৈরি হয় ২০১১ সালে। এই আসনটির ভোটার সংখ্যা ২০৯৭৫৪। ২০১১ এবং ২০১৬ বিধানসভা ভোটে আসনটি তৃণমূলের দখলে যায়। ২০১৬-তে তৃণমূলের গৌতম দেব ১০৫৭৬৯ (৪৭.৪৯ শতাংশ), সিপিএমের দিলীপ সিং ৮১৯৫৮(৩৬.৮০ শতাংশ), রথীন্দ্র বোস ২৬১৯৫ (১১.৭৬ শতাংশ) ভোট পান। তৃণমূল এই আসনে ২৩৮১১ ভোটে জয়লাভ করে। কিন্তু ২০১৯ এর লোকসভায় এই বিধানসভায় বিজেপির ভোট উল্লেখযোগ্য ভাবে ব্যাপক বেড়েছে। বিজেপি ১৫০৫৬৬, তৃণমূল ৬৪৪৪৯ এবং সিপিএম ১৩৪০৮ ভোট পায়। বিজেপি এই আসনে ৮৬১১৭ ভোটে এগিয়ে।

আরও পড়ুন:কোচবিহারের ৫ বিধানসভায় এগিয়ে বিজেপি, নাটাবাড়িতে পিছিয়ে মন্ত্রী রবীন্দ্র!

মাল বিধানসভাটি ১৯৭৭ থেকে ২০১১ পর্যন্ত ছিল সিপিএমের দখলে। এই আসনে ভোটার ১৮২২৯৭। ২০১৬-তে এই বিধানসভার দখল যায় তৃণমূলের হাতে। তৃণমূলের বুলুচিক বারিখ ৮৪৮৭৭ (৪৪.২৮ শতাংশ), সিপিএমের অগাষ্টাস কেরকেটা ৬৬৪১৫ (৪৪.৬৫ শতাংশ), বিজেপির মহেশ বাগি ২৯৩৮০ (১৫.৩৩ শতাংশ)ভোট পান। তৃণমূল এই আসনে ১৮৪৬২ ভোটে জয়লাভ করে। ২০১৯ এর লোকসভায় বিজেপি ১০০৯৯৮, তৃণমূল ৭৬৯৩৯ এবং সিপিএম ৯২২৩ ভোট পায়। বিজেপি এই আসনে এগিয়ে আছে ২৪০৫৯ ভোটে।

Related Articles

Back to top button
Close