fbpx
অসমগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

ত্রিপুরা উপনির্বাচনে গেরুয়া ঝড়, প্রথমবার ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেই জয়ী বিজেপির মানিক সরকার

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্ক: ভাষণ, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ, পর জনসভা কোনও কিছুই কাজে লাগলো না। ত্রিপুরার চার বিধানসভা কেন্দ্রের উপ-নির্বাচনে জয়-জয়কার গেরুয়া শিবিরের। কারণ চারটি আসনের তিনটিতেই জিতেছে ক্ষমতাসীন বিজেপি। একটি আসনে জিতে দুই নম্বরে থাকল কংগ্রেস। মূলত বামফ্রন্টের চেয়েও ভালো ফল করেছে তারা। তবে সবচেয়ে খারাপ ফল হয়েছে তৃণমূলের।

রবিবার ২৬ জুন ফল প্রকাশের পর দেখা গেল,  প্রথমবার ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেই জয়ী হয়েছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা। বড়দোয়ালি কেন্দ্রে মানিক পেলেন ১৭ হাজার ১৮১টি ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেসের দুই বারের বিদায়ক আশিস সাহা পান ১১ হাজার ৭৭টি ভোট। এই কেন্দ্রের তৃণমূলের প্রার্থী সংহিতা ভট্টাচার্য পেয়েছেন মাত্র ৯৮৬টি ভোট। সেই আসনে বাম প্রার্থী পেয়েছেন ৩ হাজার ৩৭৬টি ভোট।

গত মাসে বিপ্লব দেবের হঠাৎ পদত্যাগের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে রাজ্যসভার সদস্য মানিক সাহার নাম ঘোষণা করে বিজেপি। মুখ্যমন্ত্রী থাকতে হলে তাকে উপ-নির্বাচনে জিততে হতো। এক সময়ের কংগ্রেস নেতা মানিক বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন ২০১৬ সালে। পেশায় দন্ত চিকিৎসক ২০২০ সালে ত্রিপুরা বিজেপির রাজ্য সভাপতিও হন।

আগরতলা কেন্দ্রে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর শেষ হাসি হাসেন বিজেপি ছেড়ে কংগ্রেসে আসা সুদীপ রায়বর্মণ। বিপ্লব দেবের মন্ত্রিসভার সাবেক মন্ত্রী সুদীপ পান ১৭ হাজার ৪৩১টি ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপির অশোক সিংহ পান ১৫ হাজার ২৬৮টি ভোট। বাম প্রার্থী কৃষ্ণা মজুমদার ৬ হাজার ৮০৮টি ও তৃণমূলের প্রণব দেব পান ৮৪২টি ভোট।

যুবরাজনগর কেন্দ্রেও পদ্ম ফুটেছে। বিজেপি প্রার্থী মলিনা দেবনাথ পান ১৮ হাজার ৭৬৯টি ভোট। এই একটি কেন্দ্রেই দ্বিতীয় স্থান পেয়েছে বামেরা। সুরমা কেন্দ্রেও আসন ধরে রাখল বিজেপি। উপ নির্বাচনের প্রার্থীদের হয়ে প্রচারে একের পর তোপ দেগে বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হন তৃণমূলের অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই আসনটিও ধরে রাখল বিজেপি। বাম ও স্বতন্ত্র প্রার্থীকে হারিয়ে জয় হাসিল করেছেন বিজেপি প্রার্থী স্বপন দাস।

Related Articles

Back to top button
Close