fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

একুশের মহাযুদ্ধের আগেই বিজেপির নয়া সমীকরণ , কলকাতার দুই জেলার দায়িত্বেই বাঙালি মুখ

শরণানন্দ দাস, কলকাতা:  পাখির চোখ ২১-এর নির্বাচন। একুশের মহাযুদ্ধের বেশি দেরি নেই, হাতে মাত্র নয় মাস।এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে সময়ে নষ্ট করতে নারাজ বঙ্গ বিজেপি। তাই জোরকদমে মাঠে নেমেছে গেরুয়া শিবির। ঠীক কোড়ে ফেলেছে বিজেপির নয়া সমীকরণ। লক্ষ্যপূরণে সাংগঠনিক ঝাড়াই বাছাই এখনও চলছে। কিছুদিন আগে নতুন রাজ্য কমিটি বাছা হয়েছে, মোর্চা গুলোর নেতৃত্বেও কিছু উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন হয়েছে। এবার খোদ কলকাতার দুই জেলারই সভাপতি বদল করা হলো। উত্তর কলকাতার সভাপতি হলেন শিবাজী সিংহ রায়, দক্ষিণ কলকাতার দায়িত্ব পেলেন সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়।

গত লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে অভূতপূর্ব সাফল্য পেয়েছিল বিজেপি, ১৮ টি আসন জিতেছিল তারা। অথচ খোদ কলকাতায় দুটি আসনই হারিয়েছিল বিজেপি। কলকাতা (উত্তর) কেন্দ্রে হেরেছিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা, কলকাতা (দক্ষিণ) কেন্দ্রে পরাজিত হয়েছিলেন দলের প্রাক্তন সহ-সভাপতি চন্দ্র বসু। এই ফলাফল ভাবিয়ে তুলেছিল কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকেও। রাজ্য বিজেপি সম্পর্কে অবাঙালি প্রধান দল বলেও একটা প্রচার দীর্ঘ দিন ধরে চলে আসছে। তাছাড়া দলের মধ্যেও বাঙালি মুখ আনার দাবি উঠছিল। তাই একুশের ‘ ডার্বি’ ম্যাচের আগে সেই পরিবর্তন করা হলো বলে মনে করছেন তথ্যাভিঞ্জ মহল।

আরও পড়ুন: করোনার খাতিরে বিধানসভার আগে শেষ ২১ জুলাই বাতিল ঘোষণা করে বিজেপিকে বার্তা মমতার

কলকাতা উত্তরে দীনেশ পাণ্ডের জায়গায় এলেন কংগ্রেসের পোড়খাওয়া নেতা শিবাজী সিংহ রায়। বছর খানেক আগে তিনি তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন, মাস পাঁচেক আগে বিজেপিতে। একদা সাধন পাণ্ডের ঘনিষ্ঠ এই নেতার সাংগঠনিক ক্ষমতা অতীতে নজর কেড়েছে। দক্ষিণ কলকাতায় দায়িত্বে ছিলেন প্রাক্তন সেনা কর্মী অবাঙালি পরিবারের সদস্য মোহন রাও। দক্ষিণ কলকাতার দুটি জেলা, সাউথ সুবার্বান ও দক্ষিণ কলকাতা। সাউথ সুবার্বানের দায়িত্বে থাকা সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়কে এবার এই দুটি জেলারই দায়িত্ব দেওয়া হলো। সরলেন মোহন রাও। এই পরিবর্তন দলকে একুশে কতটা রাজনৈতিক ডিভিডেন্ড দেবে তা ভবিষ্যৎ বলবে।

Related Articles

Back to top button
Close