fbpx
লাইফস্টাইলহেডলাইন

Black Coffee- তে আছে জাদু, জেনে নিন উপকারিতা

যুগশঙ্খ ওয়েবডেস্কঃ অনেক মানুষ আছে যারা চা-য়ের বদলে কফি খেতে বেশি পছন্দ করেন। চিনি ছাড়া ব্ল্যাক কফি আপনাকে এনে দেবে দিনভর তরতাজা মনোভাব। কারণ ব্ল্যাক কফিতে রয়েছে একাধিক গুণ। বিশেষজ্ঞদের মতে, দিনে অন্তত দু’বার কফি খেতে হবে। তবে অবশ্যই চিনি ছাড়া। একবার সকালে প্রাতরাশের পরে ও একবার সন্ধ্যায়। এক কাপ কফিতে ৬০ শতাংশ পুষ্টি, ২০ শতাংশ ভিটামিন, ১০ শতাংশ ক্যালোরি ও খনিজ রয়েছে। আর এ কারণেই কফির উপকারিতা অনেক।

বুদ্ধিমত্তা বাড়ায়

ক্যাফেইন থাকায় কফি মুড ভালো রাখে, এনার্জি বাড়িয়ে দেয় ও একইসঙ্গে বুদ্ধির বিকাশ ঘটায়।

 

স্মৃতিশক্তি বাড়ায়

ব্ল্যাক কফি মস্তিষ্ককে আরও সচল থাকতে সাহায্য করে। যার ফলে স্মৃতিশক্তি অনেকখানি বেড়ে যায়। এছাড়া নার্ভকেও সচল রাখতে সাহায্য করে।

 

পেট পরিষ্কার রাখে

কফি খেলে ঘনঘন প্রস্রাব হয়। ফলে চিনি ছাড়া কফি খেলে শরীরে জমে থাকা ক্ষতিকর টক্সিন, ব্যাকটেরিয়া প্রস্রাবের আকারে শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। ফলে পেট পরিষ্কার থাকে।

 

 

হৃদরোগ সারায়

ব্ল্যাক কফি হৃদরোগ সারিয়ে তুলতে বিশেষ সাহায্য করে। এমনকী হৃদরোগের সম্ভাবনাকেও কমিয়ে দেয়।

 

অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস

ব্ল্যাক কফিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস। এক কাপ কফিতে থাকে ভিটামিন বি২, বি৩, বি৫, ম্যাঙ্গানিজ, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম ইত্যাদি।

 

ডায়বেটিস রোধ

ব্ল্যাক কফি ডায়বেটিসের সম্ভাবনাকে কমিয়ে এটা রোধ করতে সাহায্য করে। এমনকী ডায়বেটিসে আক্রান্তদের ক্ষেত্রেও এটি বিশেষ কাজ করে।

 

ক্যানসারের সম্ভাবনা কমায়

ডায়বেটিসের মতো ক্যানসারের ক্ষেত্রেও অসাধারণ কাজ করে ব্ল্যাক কফি। এর মধ্যে থাকা উপাদান ক্যানসারের কোষকে জন্মাতে দেয় না।

 

বয়স বাড়ে ধীরে

অনেকদিন পর্যন্ত যৌবন ধরে রাখতে সাহায্য করে চিনি ছাড়া ব্ল্যাক কফি। এছাড়া পার্কিনসনের মতো রোগকেও আটকাতে সক্ষম ব্ল্যাক কফি।

 

মন সতেজ রাখে

ব্ল্যাক কফি খেলে মন সতেজ থাকে। যার ফলে মনে সবসময় খুশি বজায় থাকে।

যকৃত সুস্থ রাখে

নিয়মিত পরিমিত পরিমাণে ব্ল্যাক কফি খাওয়া হলে যকৃতের ক্যান্সার, ফ্যাটি লিভার, হেপাটাইটিস, অ্যালকোহলের কারণে হওয়া ‘লিভার সিরোসিস’ হওয়ার ঝুঁকি কমে। ব্ল্যাক কফি যকৃতের ক্ষতিকারক এনজাইমের মাত্রা কমাতেও সহায়তা করে।

ওজন কমাতে সহায়তা করে: শরীরচর্চার কার্যকারিতা বাড়াতে শরীরচর্চা করার ৩০ মিনিট আগে ব্ল্যাক কফি পান করা ভালো। এটা বিপাক ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়াতে সাহায্য করে। এটা পেটের মেদ কমাতেও সহায়তা করে। ব্ল্যাক কফি স্নায়ুকে উদ্দীপিত করে শরীরের চর্বির কোষ ভেঙে ফেলে এবং গ্লাইকোজেনের বিপরীত শক্তির উৎস হিসেবে সংকেত দেয়।

তবে কোনও জিনিস বেশি মাত্রায় খাওয়া ঠিক নয়। তাই সারাদিনে দুবার কফি ঠিক আছে।

১। অতিরিক্ত কফি পান শরীরের ওপর হরমোনের চাপ বাড়ায়। এতে মানসিক চাপ ও উদ্বেগ বাড়ে। তাই কফি পরিমিত পান করা উচিত।

২। অতিরিক্ত ব্ল্যাক কফি খাওয়া হলে তা ঘুমে জটিলতা ও ঘুমচক্রে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। তাই পুষ্টিবিদরা রাতে ঘুমানোর আগে কফি পান না করারা পরামর্শ দেন।

৩। কফি উচ্চ ক্যাফেইন সমৃদ্ধ। এটা পেটের নানা রকম সমস্যা ও অম্ল, বুক জ্বালাপোড়া করা এমনকি কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close