fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ব্লক সভাপতির মিছিলে ডাক মেলেনি, বুদবুদে ফের প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর: ফের শাসকদলের গোষ্ঠীকোন্দল প্রকাশ্যে। ডাক না পাওয়ার অভিযোগ ব্লক সভাপতির কৃষি বিল বিরোধী মিছিলে। আর সেই ক্ষোভে এলাকায় পাল্টা মিছিল করল তৃণমূলের নীচুতলার বিক্ষুব্ধ কর্মী সমর্থকরা। মিছিলে কৃষি বিলের বিরোধীতার পাশাপাশি দলের ব্লক সভাপতির বিরুদ্ধে পাল্টা ক্ষোভ উগরে দিলেন তৃণমূলের বুথ সভাপতি থেকে সাধারণ কর্মীরা। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছ বুদবুদের কোটা গ্রামে।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রের কৃষি বিলের বিরোধীতায় আন্দোলনে নেমেছে রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেস। রাজ্যজুড়ে নানান কর্মসুচী নিয়েছে তৃণমূল। কয়েকদিন আগে কোটা অঞ্চলে মোটরবাইক র‍্যালি করে আউশগ্রাম -২ নং ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস। অভিযোগ, ওই মিছিলে এলাকার কর্মী সমর্থকদের ডাকা হয়নি। আর তাতেই ক্ষোভে ফেটে পড়ে ওই এলাকার তৃণমূলকর্মীরা। শুক্রবার কোটা গ্রামে কৃষি বিল বিরোধিতার ইস্যুতে পাল্টা প্রতিবাদ মিছিল করে বিক্ষুব্ধ তৃণমূলকর্মী সমর্থকরা। মিছিলে হাজারখানেক কর্মী ও সমর্থক সামিল হয়।

মিছিলে উপস্থিত কোটা অঞ্চলের ৩ নং সংসদের বুথ সভাপতি মনিমোহন দাস, মহিলা সমিতির সদস্য মিতা দাস প্রমুখ বলেন, “দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জীর নীতি আদর্শ মেনে দীর্ঘদিন ধরে দলটা করছি। কিন্তু গত কয়েকমাস ধরে ব্লকে দলের কোনও কর্মসূচীতে ডাকা হচ্ছে না। তাই কেন্দ্রের কৃষি বিলের বিরোধীতায় মমতা ব্যানার্জীর নির্দেশ মেনে কোটা গ্রামে প্রতিবাদ মিছিল করেছি।” দলের দীর্ঘদিনের পুরোনো কর্মী শ্যমল ধর, জ্যোতির্ময় বাগদী প্রমুখ অঞ্চল ও ব্লক নেতৃত্বের ওপর একরাশ ক্ষোভ উগরে বলেন, “দীর্ঘদিন ধরে দলটা করছি। নির্বাচন আসলেই আমাদের ডাকা হয়। তারপর দলের কোনও কর্মসুচীতে ডাকা হয় না। গত বিধানসভা, পঞ্চায়েত ও লোকসভা নিয়ের্বাচনের নিরিখে কোটা গ্রামের ৫ টি সংসদে দলকে আমরা এগিয়ে রেখেছি। তারপরও দলের সমস্তরকম কর্মসুচী থেকে আমাদের বঞ্চনা করা হয়। এমনকি পঞ্চায়েতে নানান কাজকর্ম থেকে আমাদের মতো দিনমজুর এলাকাকে অন্ধকারে রাখা হয়। বঞ্চনা করা হয়। পুরোনোকর্মীদের কোন গুরুত্ব দেওয়া হয় না। তাই তার প্রতিবাদে কৃষি বিল বিরোধীতার ইস্যুতে পাল্টা মিছিল করে জবাব দিলাম।”

এদিন বিক্ষুব্ধ কর্মীরা আরও বলেন, “আমাদের বঞ্চনার বিষয়টি দলের শীর্ষনেতৃত্বকেও জানানো হয়েছে। আমরা চাই দলের সমস্তরকম কর্মসুচীতে গুরুত্ব দিয়ে ডাকা হোক। পঞ্চায়েতের  কাজকর্ম আমাদের সঙ্গেও আলোচনা করা হোক।” যদিও তৃৃৃৃণমূল কংগ্রেসের আউশগ্রাম ২ নং ব্লক সভাপতি রামকৃষ্ণ ঘোষের সাফাই, “দলের নিয়ম মতো ব্লকের যে কোনও কর্মসূচীর অঞ্চল সভাপতি বুথ সভাপতিদের সূচনা দেয়। এক্ষেত্রেও মিটিং করে অঞ্চল সভাপতি সেই সূচনা দিয়েছে। তার রেজুলেশন হয়েছে। ওই এলাকার বুথ সভাপতি অসুস্থতার কারণে আসেন নি। আমি সমস্ত বুথে কৃষি বিলের বিরোধীতায় প্রতিবাদ মিছিল করতে বলেছি। ওই বুথে করেছে। গোটা গ্রামে মিছিল করে থাকলে ভালই করেছে। তা মনোমালিন্য বা দ্বন্দ্বের কোনও কারন নয়।”

Related Articles

Back to top button
Close