fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাঁশ কাটা ও জমি নিয়ে বিরোধের জেরে রক্তারক্তি কাণ্ড মালদায়, আহত ৪

মিল্টন পাল,মালদা: বাঁশ কাটা ও জমি নিয়ে বিরোধের জেরে রক্তারক্তি। আহত একই পরিবারের চার সদস্য। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার মালদার মানিকচক থানা এলাকায়। আশঙ্কাজনক চারজন স্থানীয় মানিকচক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আহতদের মধ্যে মহিলাও রয়েছে।  মানিকচক থানায় খুনের চেষ্টা ও শ্লীলতাহানীর অভিযোগ দায়ের করেছে আহতর পরিবার। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আহতরা হল সুদাম সরকার, স্বপ্না সরকার, কল্যানী সরকার সহ আরও এক। আহতদের আত্মীয় কৃষ্ণ সরকার জানান, মাত্র তিন কাঠা জমি নিয়ে মানিকচক থানার ভবানীপুর গ্রামের দুই প্রতিবেশী সুদাম সরকার ও জয়ন্ত সরকারের বিবাদ দীর্ঘ দুই বছর ধরে চলছিল। এদিন সকালে সুদাম সরকার জমিতে থাকা বাঁশ ঝার থেকে বাঁশ কাটছিল। সেই সময় বাঁশ কাটতে বাঁধা দেয় জয়ন্ত সরকার। শুরু হয় বচসা। অভিযোগ এরপরই জয়ন্ত সরকার ও তার দলবল বাঁশ, হাঁসুয়া নিয়ে সুদামের ওপর চড়াও হয়ে কোপাতে থাকে।ঘটনা দেখতে পেয়ে সুদামের পরিবারের সদস্যরা বাঁচাতে আসলে তাদেরকেও বেধরক মারধর ও মহিলাদের শ্লীলতাহানি করা হয়। আর সেই বিবাদকে কেন্দ্র করে রক্তারক্তি ঘটনা ঘটে যায়।

আরও পড়ুন: মধ্যাহ্ন‌ভোজনের পর মুখ মুছিয়ে দিলেন আদিবাসী মহিলা, ‘মা কা প্যায়ার’ বললেন অমিত শাহ

ঘটনার চিৎকার চেচামেচি শুনে স্থানীয়রা ছুটে এসে আহত চারজনকে উদ্ধার করে রক্তাত্ব অবস্থায় মানিকচক গ্রামীন হাসপাতালে ভর্তি করে। এখনো পর্যন্ত জয়ন্ত সরকার ও তার দলবল হাঁশুয়া লাঠি নিয়ে গ্রামে ঘুড়ু বেড়াচ্ছে। এমনকি আহতদের প্রাননাশের হুমকি দিচ্ছে। যার ফলে আতঙ্কে পরিবারের সদস্যরা বাড়ি ঢুকতে পারছে না।আহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে মানিকচক থানায়। জয়ন্ত সরকার সহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টা ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।  মানিকচক থানার পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা গা ঢাকা দিয়ে রয়েছে। গ্রামে যাতে নতুন করে অশান্তি না ছড়ায় সেই কারণে পুলিশ দফায় দফায় টহল দিচ্ছে। অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি চলছে।

Related Articles

Back to top button
Close