fbpx
কলকাতাহেডলাইন

প্রয়াত সিনে আইকন সুশান্তের শ্রদ্ধার্ঘ্যে ধর্মতলার মোড়ে ‘রিপ সুশান্ত’ মাস্ক বিক্রি সুশান্ত ভক্তের

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: সোমবার সকালে তরুণ সিনে আইকন সুশান্ত সিং রাজপুতের আচমকা মৃত্যুসংবাদ মেনে নিতে পারেননি সমগ্র দেশবাসী। ৪ দিন কেটে গেলেও এখনও ঘটনাটিকে বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে অনেকেরই। এই পরিস্থিতিতে তাঁর শ্রদ্ধার্ঘ্যেই তারই ছবি দেওয়া ‘রিপ সুশান্ত’ নামে এক বিশেষ মাস্ক তৈরি করে ধর্মতলার মোড়ে নামমাত্র মূল্যে তা বিক্রি করছেন রাজর্ষি দাস। বিষয়টি অভিনব বলে দাবি পথচলতি অনেকেরই।
প্রসঙ্গত, করোনা আবহে ফেস কভার বা মাস্ক কোভিডের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অন্যতম হাতিয়ার। নতুন এই জীবনশৈলীতে শিল্পের ছোঁয়া লেগেছে বহুদিন ধরেই।  মারণ ভাইরাস থেকে মানুষকে সুরক্ষিত রাখার এই মাস্ক এখন বিশ্বজুড়ে কুটির শিল্পের রূপ নিয়েছে। দীর্ঘ লকডাউনে কাজ হারানো অনেক বেকারের কর্মসংস্থানের অন্যতম মাধ্যম হয়েছে এই মাস্ক। ডাক্তারবাবুদের পরামর্শ নিয়েই তৈরি হচ্ছে লক্ষ লক্ষ মাস্ক। আর এখন এটা কোনও সিজন ব্যবসা নয়, ৩৬৫ দিনের বিক্রিত পণ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল যেমন মাস্কে নিজেদের প্রতীক লাগিয়ে কর্মী-সমর্থকদের দিচ্ছে, ঠিক একইভাবে অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাও সেই পথেই হাঁটছে।
সেই চলতি ট্রেন্ডকে অনুসরণ করেই পছন্দের সদ্য প্রয়াত এই তরুণ সিনে আইকনকে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য মাস্ক তৈরির পরিকল্পনা করেন সুশান্ত ভক্ত রাজর্ষি। সুশান্ত সিং রাজপুতের অকাল প্রয়াণে সারা দেশ জুড়েই মর্মাহত তাঁর ভক্তরা। তাঁর এভাবে চলে যাওয়াটা মেনে নিতে পারছে না কেউই। চিরঘুমে চলে যাওয়া এই রাজপুত্রকে নিয়ে দুঃখের সাগর যখন তাঁর ভক্তকুলের হৃদয়ে, সেই সময়ই করোনা আতঙ্কে থাকা বাঙালির জন্য “রিপ সুশান্ত” মাস্ক নিয়ে শহরের রাজপথে ঘুরছেন তাঁরই ভক্ত এক যুবক।
জানা গিয়েছে,  লকডাউনের পর থেকেই এই রাজপুত ভক্ত এই যুবক বাংলার হস্তশিল্পীদের কাছ থেকে রকমারি মাস্ক নিয়ে রাস্তায়-অফিসে ফেরি করে বেড়ান। এবার সদ্য প্রয়াত তাঁর হিরো ও সিনে আইকনকে শ্রদ্ধা জানাতে সেই মাস্ককেই বেছে নিলেন রাজর্ষি দাস। সুশান্ত সিং রাজপুতের মুখ আঁকা সেই মাস্ক হট কেকের মতো বিকোচ্ছে কলকাতার রাস্তায়। “রিপ সুশান্ত” মাস্ক-এর চাহিদা এখন তুঙ্গে।
কিন্তু প্রয়াত প্রিয় অভিনেতাকে মাস্ক বিক্রির মাধ্যমে শ্রদ্ধা? নাকি মৃত্যুর পর সুশান্তের ছবিকে কাজে লাগিয়ে ব্যবসা?
 ব্যবসার দাবিকে নস্যাৎ করে মাস্ক বিক্রেতা রাজর্ষি বলছেন, “যে মেটিরিয়াল দিয়ে এই মাস্ক তৈরি, তা একটু দামি। যা বানাতে খরচ হয় ৬০ থেকে ৭০ টাকা। কিন্তু আমি যে দামে কিনেছি, তার অর্ধেকের কম দামে বিক্রি করছি। শুধুমাত্র সুশান্ত সিং রাজপুতকে শ্রদ্ধা জানাতে এমন করছি আমি। এখন সকলেই মাস্ক পড়ে, তাই সকলের মধ্যে আমি আমার প্রিয় অভিনেতাকে দেখতে চাই। আসলে টাকার ভ্যালুর থেকে ভালোবাসার দাম অনেক বেশি। অন্য মাস্ক বিক্রি করে আমার ঠিক চলে যাবে।”
যে হীনমন্যতার অনুভবে সুশান্ত চিরতরে হারিয়ে গেলেন, আজ হয়তো তাঁকে ঘিরে ভক্তকুলের এই আবেগ জানতে পারলে হয়তো সেই সিদ্ধান্তের জন্যই কষ্ট অনুভব করতেন। কিন্তু ‘না ফেরার দেশে’ চলে যাওয়া সুশান্তকে এভাবেই হয়তো মনে রাখবেন তাঁর কোটি কোটি ভক্তহৃদয়।

Related Articles

Back to top button
Close