fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

দিল্লি হিংসায় উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ প্রবীণ কংগ্রেস নেতা সালমান খুরশিদ, বৃন্দা কারাতের বিরুদ্ধে

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: এবার দিল্লি হিংসায় নাম জড়িয়ে গেল সালমান খুরশিদ আর বৃন্দা কারাতের। দিল্লি পুলিশের দাবি, গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে সিএএ আর এনআরসি ইস্যুতে উত্তাল হয়েছিল গোটা দেশ। সেইসময় সালমান খুরশিদ আর বৃন্দা কারাত উস্কানিমূলক ভাষণ দিয়েছিলেন। কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা সলমান খুরশিদ, উদিত রাজ আর বাম নেত্রী বৃন্দা কারাতের মতন নেত্রীরা উস্কানিমূলক ভাষণ দিয়েছিলেন সেইসময়। প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ ইশরাত জাহান সহ অন্যান্য সাক্ষীর বয়ানের ওপর ভিত্তি করেই দিল্লী পুলিশ জানতে পারে যে, হিংসায় বৃন্দা কারাত, সালমান খুরশিদ আর উদিত রাজের মতো নেতারা উস্কানি দিয়েছিলেন। কড়কড়ডুমা আদালতে দাখিল হওয়া চার্জশিটে প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ ইশরাত জাহান সহ অন্যান্য সাক্ষীদের বয়ান রয়েছে। চার্জশিটে সাক্ষীরা জানিয়েছেন যে, বলা হয়েছে যে, উদিত রাজ, সলমান খুরশিদ আর বৃন্দা কারাতের মতো নেতা-নেত্রীরা জেএনইউ-এর প্রাক্তন ছাত্র নেতা উমর খালিদের ধরনা স্থলে আসে। সেই ধরনা স্থল থেকে এনআরসি, সিএএ এর বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক ভাষণ দিয়েছিলেন তাঁরা।

[আরও পড়ুন- বাড়ির সামনেই পরপর গুলি করে খুন করা হল বিজেপি নেতাকে]

উল্লেখ্য, দিল্লি হিংসা নিয়ে সম্প্রতি চার্জশিট পেশ করেছে দিল্লি পুলিশ। সেখানে হিংসার সঙ্গে জড়িত লোকজন ও তাদের পরিকল্পনার বিষয়ে বিস্তারিত বলা হয়েছে। উমর খালিদকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এই জিজ্ঞেসাবাদে উমর খালিদ স্বীকার করেছেন যে হিংসার জন্য অস্ত্রশস্ত্র মেরঠ থেকে আনা হয়েছিল। এর অস্ত্রের টাকা কংগ্রেসের প্রাক্তন কাউন্সিলর ইসরাত জাহান জোগান দিয়েছিলেন। CAA এবং NRC ইস্যুতে গত ফেব্রুয়ারি মাসে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল পুরো দেশ। দেশের বিভিন্নি প্রান্ত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয়।  আগুন জ্বলেছিল দেশের রাজধানী দিল্লীতে। এই হিংসার চার্জশিট সামনে আসতেই বিভিন্ন তথ্য বেরিয়ে আসছে। জানা গিয়েছে যে, এই হিংসার অর্থ সরবরাহ করেছিল খোদ কংগ্রেস নেতা। চার্জশিটের রিপোর্ট অনুযায়ী, দিল্লী হিংসায় হিন্দুদের টার্গেট করে করা হয়েছিল এবং কেন্দ্র সরকারকে অস্থির করে দেওয়াই ছিল হিংসার মূল উদেশ্য। ২৭৪ দিন ধরে হিংসার পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

দিল্লী দাঙ্গার বিষয়ে উমর খালিদ স্বীকার করেছে্ন যে, পরিকল্পনা করে মেরঠ থেকে অস্ত্রশস্ত্র আনা হয়েছিল। শুধুমাত্র হিন্দুদের লক্ষ্য করে এই হিংসার ঘটনা হয়েছিল। হিংসার মূল কারণই ছিল যে, কেন্দ্রীয় সরকারকে অস্থির করে তোলা।  উমর খালিদ আরও স্বীকার করেছেন যে, উত্তর-পূর্ব দিল্লিকে হিংসায় জ্বালিয়ে দেওয়ার জন্য অস্ত্রের টাকা কংগ্রেস নেতা ইসরাত জাহান দিয়েছিলেন।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close