fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

বিরোধ মিটিয়ে আলোচনার টেবিলে ফিরছে ব্রিটেন ও ইইউ

লন্ডন: বিরোধ মিটিয়ে আবারও আলোচনার টেবিলে ফিরছে ব্রিটেন ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন। গত শুক্রবার ইইউ শীর্ষ সম্মেলনের পর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন চুক্তি ছাড়াই ব্রেক্সিট পুরোপুরি কার্যকর করার জন্য প্রস্তুত হতে বলেছিলেন। এজন্য ইইউর মনোভাবকে দায়ী করে তিনি আলোচনাও বন্ধ রেখেছিলেন। কিন্তু, বুধবার আবার মতবদল করেছে জনসনের সরকার। ফলে বৃহস্পতিবার থেকে দুই পক্ষের মধ্যে আনুষ্ঠানিক সংলাপ শুরু হচ্ছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যস্থতাকারী মিশেল বার্নিয়ের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলে ব্রিটেনের প্রধান মধ্যস্থতাকারী ডেভিড ফ্রস্ট এই সিদ্ধান্তের কারণ ব্যাখ্যা করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘আলোচনার ভিত্তি আবার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।’ একই সঙ্গে ব্রিটিশ সরকারের এক মুখপাত্র বলেছেন, ‘সব দায় শুধু ব্রিটেনের ওপর চাপিয়ে না দিয়ে জট ছাড়াতে বার্নিয়ে দুই পক্ষের আপোশের কথা বলেছেন। তাই বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে আলোচনা শুরু হবে। হাতে সময় কম থাকায় প্রতিদিনই আলোচনা চলবে। অর্থাৎ সপ্তাহান্তেও কোনও বিরতি হবে না। আপাতত ২২ থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত আলোচনার কর্মসূচি স্থির হলেও দুই পক্ষের সম্মতি থাকলে তার মেয়াদ বাড়ানো হবে।’

উল্লেখ্য, গত কয়েক মাস ধরে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা সত্ত্বেও বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে মতপার্থক্য দূর হয়নি। তাই আগামী কয়েক দিনের মধ্যে ঐকমত্যের সম্ভাবনা কতটা বাস্তব হবে, সে বিষয়ে সংশয় থেকে যাচ্ছে। ব্রিটেন ও ইইউর কোম্পানিগুলোর মধ্যে প্রতিযোগিতার ন্যায্য পরিবেশ, মাছ ধরার অধিকার এবং বিরোধ মেটাতে আইনি কাঠামোর মতো বিষয়কে কেন্দ্র করে কোনও পক্ষই আপোশের লক্ষণ দেখাচ্ছে না। তবে কয়েকটি সূত্র বলছে, নেপথ্যে কিছু অগ্রগতি হয়েছে। কেননা, বুধবার মিশেল বার্নিয়ে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সামনে বলেছেন, দুই পক্ষই আপোশ করতে রাজি হলে এখনও বোঝাপড়া সম্ভব। আগামী দশ সপ্তাহের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তি সম্পর্কে ঐকমত্য অর্জন এবং সেই চুক্তি অনুমোদনের প্রক্রিয়া শেষে কার্যকর করা বড় চ্যালেঞ্জ হলেও, তা একেবারে অসম্ভব নয়।

Related Articles

Back to top button
Close