fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পাচারকারী সন্দেহে বিবস্ত্র করে যুবককে পেটানোর অভিযোগ বিএসএফের বিরুদ্ধে

প্রতিবাদে রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ বাসিন্দাদের

পিন্টু কুন্ডু, বালুরঘাট: রাতের অন্ধকারে হাট থেকে বাড়ি ফেরার সময় পাচারকারী সন্দেহে বিবস্ত্র করে এক যুবককে পেটানোর অভিযোগ উঠল বিএসএফের বিরুদ্ধে। বুধবার রাতে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের কুমারগঞ্জ ব্লকের সমজিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের দাউদপুর এলাকায়। ঘটনার পরে ওই যুবককে উলঙ্গ অবস্থায় রাস্তাতেই ফেলে রাখা হয় বলেও অভিযোগ। খবর পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা এলাকায় পৌঁছতেই সেখান থেকে সরে যান বিএসএফ কর্মীরা। ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ওই এলাকায় রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন স্থানীয় বাসিন্দারা। দিনভর এই ঘটনাকে ঘিরে সীমান্ত  এলাকায় তুমুল উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি হলেও এলাকায় দেখা যায়নি কোন পুলিশ কর্মীকেই।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, এলাকার বাসিন্দা বছর পঁয়ত্রিশের রাহুল মোল্লা ওই দিন সন্ধ্যায় হাট থেকে বাজার সেরেই বাড়ি ফিরছিলেন। অভিযোগ সেই সময় রাস্তাতেই তাকে পাচারকারী বলে আটক করে সীমান্তে প্রহরারত ২৬ বিএসএফ জওয়ানরা। যেখানেই তাকে বিবস্ত্র করে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। ঘটনার খবর পেয়ে বাসিন্দারা ছুটে গিয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বরাহার হাসপাতালে ভর্তি করেন। তারপর সেখান থেকে বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে রেফার করা হয় তাকে। বর্তমানে সেখানেই আশঙ্কাজনক অবস্থায়  চিকিৎসাধীন রয়েছে ওই যুবক।

ঘটনার প্রতিবাদে এদিন সকাল থেকে বাসিন্দারা একত্রিত হয়ে বালুরঘাট-সমজিয়া রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। অভিযুক্ত জওয়ানদের শাস্তির দাবিতে স্লোগানও দেওয়া হয় এলাকায়। যাকে ঘিরে তুমুল উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। দীর্ঘ সময় পরেও এলাকায় পুলিশ না পৌঁছানোয় পরিস্থিতি সামাল দিতে ছুটে যান খোদ ২৬ নম্বর বিএসএফ ব্যাটালিয়নের কমান্ডেন্ট এস.এফ.পি বাজপেয়ি। বিক্ষোভরত  বাসিন্দাদের কাছে হাতজোড় করে ক্ষমা চেয়ে স্বাভাবিক করেন পরিস্থিতি। সীমান্তে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এদিন গ্রামবাসীদের সাথে দীর্ঘ আলোচনাও সেরেছেন ২৬ বি এস এফের কমানডেন্ট।

 

আহত যুবকের আত্মীয় সানোয়ারা মোল্লা জানিয়েছেন, হাট থেকে বাড়ি ফিরছিল রাহুল। বিনা কারণে বিএসএফ জওয়ানরা তাকে আটক করে উলঙ্গ করে মারধর করেছে। এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত চান তারা।

 

 

এলাকার বাসিন্দা নুর আলম মোল্লা ও আবু বক্কর সিদ্দিরা জানিয়েছেন, দিনে-রাতে এভাবে বিএসএফ অত্যাচার করলে মানুষ কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে। চোরা কারবারীদের বিরুদ্ধে তারা কঠোর পদক্ষেপ নিক। কিন্তু সাধারণ অসহায় মানুষদের কেন এভাবে পেটানো হচ্ছে তার প্রতিবাদেই তারা রাস্তা অবরোধ করেছেন। আগামীতে এমন ঘটনা যাতে কারো সাথে না হয় সেই দাবিও তুলেছেন তারা। যদিও বিএস এফের তরফে কোন বক্তব্য দিতে চাননি তারা।

 

Related Articles

Back to top button
Close