fbpx
কলকাতাহেডলাইন

বৃষ্টিতে ভেঙে পড়ল বেলেঘাটার পুরনো বাড়ির একাংশ, ধ্বংসস্তূপে চাপা পড়ে মৃত্যু বৃদ্ধার

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ভারী বৃষ্টিতে বেলেঘাটার `পুরনো বাড়ির একাংশ ভেঙে মৃত্যু বৃদ্ধার। দীর্ঘক্ষণ ধ্বংসস্তূপে আটকে ছিলেন পরিবারের আরও কয়েকজন।পুলিশ ও বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার করে তাঁদের। এখনও চলছে উদ্ধারকাজ। দীর্ঘক্ষণ পর জখম অবস্থায় উদ্ধার করা হয় সকলকে। বৃদ্ধা সংজ্ঞাহীন অবস্থায় থাকায় তড়িঘড়ি তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় নীলরতন সরকার হাসপাতালে। সেখানে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

বুধবার সন্ধে থেকেই বৃ্ষ্টি শুরু হয়েছে শহর ও শহরতলিতে। রাতেও বৃষ্টিতে ভেসেছে তিলোত্তমা। জানা গিয়েছে, সেই সময়ই আচমকা হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে ৫৫ নম্বর বেলেঘাটা মেন রোডের প্রায় ১৫০ বছরের পুরনো ওই একতলা বাড়িটির একাংশ। ধ্বংসস্তূপে আটকে পড়েন প্রতিমা সাহা নামে এক বৃদ্ধা, তাঁর ছেলে রাজেশ সাহা ও নাতি। খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ ও বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। শুরু হয় উদ্ধারকাজ। তবে কাজ শুরু করে বেশ সমস্যায় পড়তে হয় উদ্ধারকারীদের।

আরও পড়ুন: বৃষ্টিভেজা সাপ্তাহিক লকডাউনে শুনশান শহর, রাস্তায় টহল পুলিশে

প্রাথমিক চিকিৎসার পর রাজেশ সাহাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, বেলেঘাটা মেন রোডের এই বাড়িটি প্রায় দেড়শো বছরের পুরনো। ফলে এক কথায় একে জরাজীর্ণই বলা চলে। দীর্ঘদিন ধরেই এই বাড়ির কোনও রক্ষণাবেক্ষণ হচ্ছিল না। ফলে পরিস্থিতি ছিল অত্যন্ত খারাপ। পুরসভা ও পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এবার বাড়িটি সম্পূর্ণরূপে ভেঙে ফেলা হবে। তবে আপাতত এখানকার বাসিন্দাদের অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এই ঘটনার পরই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল, প্রাচীন ওই বাড়িটিকে কি বিপজ্জনক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল কি না? জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন আগেই বাড়িটিকে বিপজ্জনক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল পুরসভার তরফে। কিন্তু শরিকি বিবাদের কারণে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি পরিবারের সদস্যরা। উল্লেখ্য, বুধবার রাতভর প্রবল বৃষ্টিতে কলকাতার উত্তর থেকে দক্ষিণ, বিভিন্ন জায়গায় জল জমেছে। লকডাউনে গুরুত্বপূর্ণ কাজে বেরিয়ে ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে আমজনতাকে।

Related Articles

Back to top button
Close