fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পরিযায়ীদের ঘরে ফেরাতে গিয়ে হেনস্তার শিকার হলেন সরকারি বাস চালকরা

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর: পরিযায়ী শ্রমিকদের বিহারে পৌঁছাতে গিয়ে চরম হেনস্থার শিকার দক্ষিনবঙ্গ পরিবহনের দুই বাসচালক। বিহার প্রশাসনের প্ররোচনায় তাদের ব্যাপক মারধরের অভিযোগ। তাদের উদ্ধার করে শহরে ফিরিয়ে সম্বর্ধনা দিল দুর্গাপুর মহকুমা প্রশাসন।

উল্লেখ্য, গত বৃহষ্পতিবার দক্ষিনবঙ্গের বিভিন্ন এলাকা থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে মোট ১১টি দক্ষিনবঙ্গ পরিবহনের বাস রওনা দেয় বিহারের জামুইয়ের উদ্দেশ্যে। তারমধ্যে দুটি বাস দুর্গাপুরের থেকে উত্তরপ্রদেশের বেনারসের শ্রমিক ছিল। বিহারের জামুই পর্যন্তই এদের নিয়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু জামুই প্রশাসন উত্তরপ্রদেশের শ্রমিকদের নিতে অস্বীকার করে।
বাসচালকদের সেখানকার প্রশাসন জানায় এদের উত্তরপ্রদেশেই পৌঁছাতে হবে। বাসচালকদ্বয় ওইসময় বিহার প্রশাসনের কাছে গাড়ীর তেল চাইলে ব্যাপক ক্ষিপ্ত হয় প্রশাসন। অভিযোগ, তারপরই শ্রমিকদের প্ররোচিত করে ব্যাপক মারধর করা হয় দুই বাসচালককে।
সারাদিন না খাইয়ে আটকে রাখা হয় তাদের । বাস চালকরা সম্পুর্ন ঘটনা জানায় দক্ষিনবঙ্গ পরিবহনের দুর্গাপুরের আধিকারিকদের । এরপরই সক্রিয় হয় রাজ্য সরকার। বিহার প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলেন দক্ষিনবঙ্গ পরিবহনের আধিকারিকরা।
এক বাসচালক নিজেই গাড়ীর তেলের ব্যাবস্থা করে। এরপর ওই বাসদুটি শ্রমিকদের নিয়ে বেনারসের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। বাসচালকদের মোবাইল বন্ধ থাকায় উদ্বিগ্ন দক্ষিনবঙ্গ পরিবহনের কয়েকজন ইতিমধ্যেই দুর্গাপুর থেকে একটি গাড়ীতে রওনা দেন উত্তরপ্রদেশের উদ্দেশ্যে। বাসদুটি শ্রমিকদের বেনারসে নামিয়ে ফেরার পথে এদের সঙ্গে হাজারীবাগের কাছে সাক্ষাৎ হয়। মঙ্গলবার দুর্গাপুরে পৌছায় বাসদুটি। ঘটনায় দুই বাসচালক গোপাল মাজি ও মোল্লা ওয়াইদ হক আতঙ্কিত।
বিহার প্রশাসনের প্রতি তীব্র ক্ষোভ উগরে দেন ওই দুই বাস চালকও। এদিকে শহরে ফিরিয়ে ওই দুই চালককে ফুলের তোড়া দিয়ে সম্বর্ধনা ও আর্থিক সাহায্য করা হয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে। এসবিএসটিসির এমডি কিরনকুমার গোদালা জানান,” এধরনের ঘটনা এই প্রথম। বিষয়টি রাজ্য পরিবহন দফতরে জানানো হয়েছে।”

Related Articles

Back to top button
Close