fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

যাত্রীর দেখা নেই, তবুও নদীয়ার শুরু হল বেসরকারি বাস চলাচল

অভিষেক আচার্য, কল্যাণী: অবশেষে কাটল জট। আজ, বৃহস্পতিবার থেকেই কলকাতা এবং বিভিন্ন জেলা থেকে শুরু হলো বেসরকারি বাস এবং মিনিবাস চলা। কিন্তু নদীয়ার চিত্র যে অন্য কথা বলছে। বাস চললেও নেই যাত্রী। ফলে বাস চালিয়েও বেকায়দায় পড়েছেন বাস মালিক থেকে চালকরা। যাত্রীর আশায় এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে ছুটে বেড়ালো বাসগুলো। কিন্তু যাত্রী? নৈব নৈব চ।

 

 

আনলক ১ চালু হওয়ার পর থেকে রাস্তায় বেড়েছে লোকের সংখ্যা। খুলেছে দোকান। বাজারও বেশ সরগরম। কিন্তু পরিবহন ব্যবস্থা চালু না হওয়ায় সমস্যায় পড়েছিলেন অনেক যাত্রী। কিন্তু সেই পরিবহন ব্যবস্থা চালু হলেও যাত্রী কই?এদিন নদীয়ার চাকদা বাস বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা গেল পুরো অচেনা ছবি। বাস আছে, বাসের চালক রয়েছে কিন্তু যাত্রীর দেখা নেই। লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে বাসগুলি। এই চাকদা বাস স্ট্যান্ড থেকে পাঁচটি রুটে বাস চলাচল করে। এই বিষয়ে বাস স্ট্যান্ডের এক কর্মী অশোক লাহা বলেন, আজ থেকে আমরা বাস চালানো শুরু করেছি। কিন্তু যাত্রী নেই। এমনকি ভাড়া বৃদ্ধি হয়নি। পুরোনো ভাড়া রয়েছে। তা সত্ত্বেও যাত্রীর দেখা নেই।

 

বাস নিয়ে বেরিয়েছিলেন এক বেসরকারি বাস চালক। তিনি বলেন, কয়েক ঘন্টা হয়ে গেল বাস চালাচ্ছি। কিন্তু যাত্রী নেই। হাতে গোনা এক-দু’ জন যাত্রী পেয়েছি। কিন্তু তাতে কি হবে? পুরোনো ভাড়াই নেওয়া হয়েছে যাত্রীদের কাছ থেকে কিন্তু লাভের থেকে লোকসান বেশি হচ্ছে। তেল খরচ তো উঠবেই না।
সূত্রের খবর, ভাড়া বাড়ানোর দাবি থেকে সরছেন না বেসরকারি বাস মালিকরা। কেউ কেউ সরকারি ভর্তুকিরও দাবি তুলেছেন। জেলার বাস-মালিকেরা জানিয়ে দিয়েছেন, ভাড়া বাড়ানো না-হলে ক’দিন পর থেকে তাঁরা আর বাস নামাবেন না।

 

 

লকডাউন পর্বে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেসরকারি বাস পরিষেবা চালুর কথা ঘোষণা করার সময়েই বাস-মালিকেরা ভাড়াবৃদ্ধির দাবি তুলেছিলেন। রাজ্য সরকার সেই দাবি মানেনি। প্রথমে বাসে ২০ জন যাত্রী তোলার কথা বললেও সরকার পরে মত বদল করে জানায়, আসনের সমান যাত্রী নেওয়া যাবে বাসে। এরপরেও ভাড়াবৃদ্ধির দাবি উঠছে। সোমবার থেকে বেসরকারি বাস পুরোদস্তুর রাস্তায় নামার কথা থাকলেও অনেক জায়গায় তা নামেনি। এদিন বাস নামিয়েও কোনো লাভ হয়নি। স্ট্যান্ডে নেই যাত্রী। আর ১-২ জন যাত্রী নিয়ে পুরোনো ভাড়াতে কতদিন বাস চালাবেন বাস মালিকরা তা নিয়ে প্রশ্ন চিন্হ রয়েই গেল।

Related Articles

Back to top button
Close