fbpx
আন্তর্জাতিকদেশহেডলাইন

‘পরিস্থিতি উদ্বেগের’, ভারতে কৃষক আন্দোলনের পাশে থাকার বার্তা কানাডার প্রধানমন্ত্রীর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  রাজধানী দিল্লির বুকে দাঁড়িয়ে কেন্দ্রের কৃষি আইনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেওয়া অন্নদাতাদের পাশে আগেই দাঁড়িয়েছিলেন বিভিন্ন স্তরের মানুষ। এমনকী এনডিএ’র সুখের ঘরে আগুন জ্বালিয়ে জোট ছাড়ার হুমকি দিয়েছেন রাষ্ট্রীয় লোকতান্ত্রিক পার্টির প্রধান হনুমান বেনিওয়াল। এতদিন ঘরের ক্ষোভ সামলাতে হচ্ছিল। এবার আন্তর্জাতিক স্তরেও ক্ষোভের মুখে পড়েছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অস্বস্তি বাড়িয়ে এবার কৃষক আন্দোলনের পাশে দাঁড়ালেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তিনিই বিশ্বের প্রথম রাষ্ট্রপ্রধান যিনি ভারতের কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করলেন। কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়ে তিনি জানিয়েছেন, শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের অধিকারের জন্য সব সময় পাশে থাকবে কানাডা।

টানা ছ’দিন ধরে দিল্লির সীমানায় আন্দোলন করছেন কৃষকরা । তাঁদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন বিরোধীরা। এবার আন্তর্জাতিক মহল থেকেও চাষিদের পাশে থাকার বার্তা আসতে শুরু করেছে। এর ফলে কেন্দ্রীয় সরকারের উপর যে চাপ বাড়বে তা বলাইবাহুল্য। গুরু নানকের ৫৫১তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে অনলাইনে সে দেশের শিখ সম্প্রদায়ের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। সেখানেই ভারতের কৃষক বিক্ষোভের বিষয়টি উত্থাপন করেন। কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে তিনি বলেছেন, ”ভারত থেকে কৃষকদের প্রতিবাদের যে সব খবর আসছে, তা স্বীকার না করলে আমার অনুশোচনা হবে। পরিস্থিতি যথেষ্ট উদ্বেগের। আমরা সবাই ওঁদের পরিবার এবং বন্ধুদের জন্য চিন্তিত।” এর পরই তিনি শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের অধিকারের পক্ষে সওয়াল করেছেন। বলেছেন, ”শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের অধিকার রক্ষার জন্য সব সময় পাশে থাকবে কানাডা। আমরা আলোচনায় বিশ্বাস রাখি। সে জন্যই এই উদ্বেগের বিষয়টি ভারতীয় কর্তৃপক্ষকে সরাসরি জানাব।”

কৃষকদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মিটিয়ে নেওয়ার বার্তাও দেন তিনি। তাঁর কথায়, “আমরা আলোচনার গুরুত্ব বুঝি। তাই সরাসরি ভারতের সরকারের কাছে আমাদের চিন্তার কথা তুলে ধরেছি। এইসময় আমাদের সকলকে একসঙ্গে চেষ্টা করতে হবে।” বিদেশি রাষ্ট্রনেতার এই কথার প্রেক্ষিতে ভারত সরকারের তরফে এখনও কোনও মন্তব্যে আসেনি। কিন্তু কৃষক আন্দোলনের প্রেক্ষিতে কানাডা প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য যথেষ্ট তাত্‍পর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: মানুষের জন্যই গুণ্ডামি! তৃণমূলকে জবাব দিলীপের

কানাডার প্রধানমন্ত্রীর এই বার্তা প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। তবে ট্রুডোর মন্তব্যের নিন্দা করেছেন শিব সেনার নেত্রী প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদী। টুইটারে তিনি লিখেছেন, “এটা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। অন্য দেশের রাজনীতির ঘুঁটি নয়। ভারতের সৌজন্যকে সম্মান দিন।” একইসঙ্গে তিনি দ্রুত কৃষকদের সমস্যার সমাধান করতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অনুরোধ করেন। যাতে অন্যদেশ এই সমস্যায় নিজেদের মতামহত জাহির করতে না পারে।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার থেকেই রাজধানীর সীমানায় আছড়ে পড়েছে কৃষক বিক্ষোভ। ২০২০ সালে লাগু হওয়া নয়া কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে পঞ্জাব, হরিয়ানা-সহ বেশ কয়েকটি রাজ্যের কৃষকরা যোগ দিয়েছেন আন্দোলনে। কৃষক বিক্ষোভ প্রশমিত করতে মঙ্গলবার বিকাল ৩টেয় বৈঠকের প্রস্তাব দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। তার আগে বিজেপি সভাপতি জেপি নড্ডার বাড়িতে নিজেদের মধ্যে আলোচনায় বসেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ এবং কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর।

 

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close