fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

অমিত শাহর সফরের সময়ে তল্লাশির পর আসানসোলের ৬ কয়লা ব্যবসায়ীকে নোটিস সিবিআইয়ের

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের পশ্চিমবঙ্গ সফরের মধ্যেই কলকাতায় গরু পাচার কাণ্ডের চার জায়গায় হানা দিয়েছিলেন সিবিআই আধিকারিকরা। একই সঙ্গে আসানসোল শিল্পাঞ্চলের বেশ কয়েকজন কয়লা ব্যবসায়ীর বাড়ি ও অফিসের হানা দিয়েছিলেন আয়কর দফতরের আধিকারিক। আর তার পরেই জানা গিয়েছিল গুরু পাচারকারী মাফিয়া এনামুল হকের সঙ্গে কয়লা মাফিয়া লালার যোগসূত্র। গরু পাচারকারীদের সঙ্গে যোগসাজশ করে উত্তরবঙ্গে কয়লা পাচারের সূত্র খুঁজে পেয়েছিল সিবিআই। এবার সেই সূত্রেই ৬ কয়লা ব্যবসায়ীকে নিজাম প্যালেসে হাজির হতে বলে নোটিশ পাঠাল সিবিআই। ব্যবসা সংক্রান্ত বিস্তারিত নথিপত্র নিয়ে তাঁদের সিবিআই দফতরে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

বিধানসভা নির্বাচনের আগে শাসকদলের বিরুদ্ধে জনরোষে একত্রিত করতে বিরোধী রাজ্যগুলিতে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলি অতি মাত্রায় সক্রিয়তার অভিযোগে বারবার সরব হয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আল-কায়েদা জঙ্গি’ হোক অথবা গরু বা কয়লা মাফিয়া সবক্ষেত্রেই রাজ্যকে না জানিয়ে কেন্দ্রীয় পুলিশ বাহিনী গোপনে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালাচ্ছে এবং কেন্দ্র-রাজ্য সার্বভৌমত্ব নষ্ট করছে বলে অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর। গত সপ্তাহে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর দু’দিনের রাজ্য সফর চলাকালীন আসানসোল শিল্পাঞ্চলের বেশ কয়েকজন কয়লা ব্যবসায়ীর বাড়ি এবং কার্যালয় অভিযান চালায় আয়কর দফতর। এই নিয়ে ওইদিনই নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী নিজের ক্ষোভ ব্যক্ত করায় অমিত শাহও সাংবাদিক সম্মেলনে পালটা মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, ”ওনার সঙ্গে লালার কী সম্পর্ক? কেন উনি বাঁচাতে চাইছেন, তা স্পষ্ট করে বলুন।”

আরও পড়ুন: প্রয়াত বাহরাইনের প্রধানমন্ত্রী সলমন আল খলিফা

প্রথম দফায় বেনিয়াপুকুরে এনামুল হকের বাড়িতে তল্লাশি চালানোর পর আসানসোলের কয়লা ব্যবসায়ীদের অফিসে তল্লাশি চালিয়ে যেসব নথি উদ্ধার করেন আয়কর দফতরের আধিকারিকরা, তাতেই লালা-এনামুল যোগ স্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে দাবি সিবিআই আধিকারিকদের। জানা গিয়েছে, লালা উত্তরবঙ্গে কয়লা পাচারের জন্য এনামুলের গাড়ি ব্যবহার করত, প্রচুর টাকার লেনদেন ছিল উভয়ের মধ্যে। আর লালার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ ছিল আরও ৬ ব্যবসায়ীর। সেই কারণেই ব্যবসার নথিপত্র-সহ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের নোটিস পাঠানো হল। তাদের জেরা করে এই মামলায় যুক্ত আরও অনেক রাঘব বোয়ালের নাম পাওয়া যাবে বলে আশা সিবিআই আধিকারিকদের।

Related Articles

Back to top button
Close