fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

ক্রমশ বাড়ছে ভারত-চিনের যুদ্ধের সম্ভাবনা! বাহিনীকে অস্ত্র কেনার ছাড়পত্র দিল কেন্দ্র

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ভারত চিন নিয়ে উত্তেজনার পারদ তুঙ্গে। বর্তমানে কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা চললেও চিনের সঙ্গে যুদ্ধের সম্ভাবনা ক্রমশই যেন বেড়ে চলেছে। এহেন অবস্থায় আগুনে ঘি দেওয়ার মতো কাজ করল কেন্দ্র। পরিস্থিতি যেদিকে এগোচ্ছে সেখানে কোনো রকমের ঝুঁকি নিতে নারাজ  সরকার। তাই এবার সেনার তিন বাহিনীকেই ৫০০ কোটি টাকা প্রতি প্রকল্পে অস্ত্র কেনার ছাড়পত্র দিল কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন মোদি সরকার।

সূত্রের খবর, ফাস্ট ট্র্যাক পদ্ধতিতে, সহজ কথায় লালফিতের জট এড়িয়ে ৫০০ কোটি টাকা পর্যন্ত প্রতি প্রকল্পে হাতিয়ার কেনার জন্য সেনার তিন বাহিনীর সহ-প্রধানদের অনুমতি দিয়েছে সরকার। এর ফলে এবার প্রয়োজন বুঝলে প্রতিরক্ষামন্ত্রক বা একাধিক সংসদীয় কমিটির অনুমোদনের বেড়াজালে বা টেন্ডার প্রক্রিয়াকে পাশে সরিয়ে যুদ্ধের হাতিয়ার কিনতে পারবে ফৌজ। ফলে যুদ্ধক্ষেত্রে দ্রুত শক্তিবৃদ্ধি ও পরিস্থিতি মোতাবেক অস্ত্র আমদানি সম্ভব হবে।

উল্লেখ্য, এতদিন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারত ও চিনের সেনা মুখোমুখি হলেও আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার না-করার নীতি মেনে চলেছে ভারত। তবে গালওয়ানে রক্তক্ষয়ী সংঘাতের পরেই এই নীতি বদলের প্রয়োজন নিয়ে ভাবনাচিন্তা শুরু হয়ে গিয়েছিল। ভারত এ বার বদলে ফেলল নিজেদের ‘রুল অব এনগেজমেন্ট’।

নতুন নিয়মে চূড়ান্ত পরিস্থিতিতে আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করার ক্ষেত্রে কোনও বারণ থাকবে না সেনাবাহিনীর উপরে। সূত্রের খবর, প্রতিরক্ষা মন্ত্রক আজ সায় দিয়েছে এই নীতিতে। উল্লেখ্য, গালওয়ানে সংঘাতের পরে কেটে গিয়েছে ছ’দিন। এখনও গালওয়ানে ভারতীয় ভূখণ্ডের একাংশ দখল করে বসে রয়েছে চিন সেনা। নিজেদের অবস্থান থেকে সরার কোনও লক্ষণও দেখায়নি তারা। এই পরিস্থিতিতে সোমবার রাতের কথা মাথায় রেখে গালওয়ানে নজরদারি বাড়াচ্ছে ভারত। পাশাপাশি লাদাখ অঞ্চলে কমব্যাট পেট্রল চালু করেছে বায়ুসেনা। পাশাপাশি চিনা হামলার আশঙ্কায় সেনা মোতায়েন করা শুরু হয়েছে দারবুক-দৌলতবেগ ওল্ডি (ডিবিও) সড়ক নির্মাণের কাজে।

Related Articles

Back to top button
Close