fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দু’দিনের কোচবিহার সফরে সিংগীমারী নদীর উপর সেতুর উদ্বোধন করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী! জল্পনা তুঙ্গে  

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনহাটা: রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দু’দিনের কোচবিহার সফরে দিনহাটা সিতাইয়ের মাঝে সিংগীমারী নদীর উপর সেতুর উদ্বোধন করতে পারেন বলে জল্পনা শুরু হয়েছে। কোচবিহার সফরের সময় যদি সিংগীমারী নদীর উপর সেতু উদ্বোধন হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে সেতুর শেষ মুহূর্তের কাজ সম্পন্ন করতে দিনরাত কাজ করে চলছে শ্রমিকরা। সেতুটি দৈর্ঘ্য ৯৪৪.৪৬ মিটার। সেতু থেকে দিনহাটার দিকে সংযোগ রাস্তার দৈর্ঘ্য ১৯০১ মিটার এবং সীতা এর দিকে সেতুর সংযোগ রাস্তার দৈর্ঘ্য ১২৬০ মিটার। একদিকে  সেতুর রেলিং থেকে শুরু করে ফুটপাত রঙের প্রলেপ চলছে। এছাড়াও সিতাইয়ের দিকে সামান্য কিছু  বাকি কাজ দ্রুত শেষ করা হচ্ছে।

জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী সফরের আগে সেতুটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের বিষয় নির্ভর করছে নবান্নের সবুজ সংকেতের ওপর। এদিকে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দফতরের পক্ষ থেকেও সেতু উদ্বোধনের জন্য প্রস্তুত বলেও রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। দিনহাটা ও সিতাইয়ের মাঝে সিংগীমারী নদীর উপর সেতুর দাবি দীর্ঘদিনের। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজ্য সরকার ক্ষমতায় আসার পর সিতাইয়ের মানুষের যাতায়াতের দুরবস্থা এবং এই সেতুর গুরুত্বের কথা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে সে সময় তুলে ধরেন বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। পরবর্তীতে মুখ্যমন্ত্রী রিমোট কন্ট্রোলে সেতুর কাজের শিলান্যাস  করেন।

২০১২ সালে সেতুর কাজ শুরু হয়। পাঁচ বছরের মধ্যে সেতুর কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ২০১৮-র মাঝামাঝি নাগাদ সেতুর তৈরির কাজ শেষ হয়। কিন্তু জমি জটের কারণে অ্যাপ্রচ রোড তৈরি করার ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়তে হয় প্রশাসনকে। জেলা ও মহাকুমা প্রশাসনের তৎপরতায় সেইসব জমিজট কাটিয়ে ব্রীজের দুই পাশের রাস্তা তৈরির কাজও সম্পন্ন হয়।

সিতাই কেন্দ্রের প্রাক্তন বিধায়ক কংগ্রেস নেতা কেশব রায় বলেন,”তিনি ২০১১ বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্র থেকে বিধায়ক হওয়ার পর সেতু নিয়ে একাধিকবার মুখ্যমন্ত্রী থেকে শুরু করে পূর্ত দপ্তরের মন্ত্রীর কাছে দাবি জানিয়েছেন। অবশেষে সেই কাজ শুরু হয়। ব্রিজ সম্পন্ন হয়ে গেছে। উদ্বোধন হলে সেদিনের তার দাবি সার্থকতা পাবে।”

সেতুর কাজের দায়িত্বে থাকা ঠিকাদারি সংস্থার প্রজেক্ট ম্যানেজার দীপ্তি দত্ত বলেন, “সেতুর কাজ সম্পন্ন হয়ে গেছে। শেষ মুহূর্তের ফিনিশিং কাজ চলছে।” সিতাইয়ের বিধায়ক জগদীশচন্দ্র বর্মা বসুনিয়া বলেন, “সেতুর কাজ দিন কয়েক আগেই শেষ হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর কোচবিহার সফরে উদ্বোধন হয় কিনা সেই চেষ্টা করা হচ্ছে।”

মহকুমা শাসক হিমাদ্রী সরকার বলেন, “সেতুটি দ্রুত চালু করার জন্য প্রশাসনিক স্তরে চেষ্টা করা হচ্ছে।” উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন,”সিংগীমারী নদীর উপর সেতুর উদ্বোধন সংক্রান্ত রিপোর্ট নবান্নে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে সবুজ সংকেত মিললে সিংগীমারী নদীর উপর সাগর দীঘির ঘাটে সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে দুই পাড়ের মানুষের দীর্ঘদিনের চাহিদা পূরণ হবে। যোগাযোগের নতুন দিগন্ত খুলে যাবে।

Related Articles

Back to top button
Close