fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মুখ্যমন্ত্রী শিলিগুড়ি আসছেন ঘোড়া কেনাবেচা করতে, আক্রমণ সৌমিত্র খাঁ-র 

কৃষ্ণা দাস, শিলিগুড়ি: আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন। এই নির্বাচনকে পাখির চোখ করে করোনা আবহে শিলিগুড়িতে আসতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। শিলিগুড়িতে মুখ্যমন্ত্রীর এই সফর ঘিরে সৌমিত্র খাঁর মন্তব্য মুখ্যমন্ত্রী শিলিগুড়িতে আসছেন বিধানসভা নির্বাচনে ঘোড়া কেনাবেচা করতে। শিলিগুড়ির বিজেপি কার্যালয় জয়মনি ভবনে দলীয় কর্মসূচিতে যোগদান করতে এসে এই ভাষাতেই মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করলেন বিজেপি সাংসদ তথা ভারতীয় যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি সৌমিত্র খাঁ।

দাঁড়িভিটে ২০ সেপ্টেম্বর আন্দোলন করতে গিয়ে তাপস ও রাজেশ নামে দুজন ছাত্রের গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়। বিজেপির তরফে এই দিনটিতে বাংলায় ভাষা দিবস হিসেবে গণ্য করা হয়। এদিন বিজেপি কার্যালয় জয়মনি ভবনে রাজেশ ও তাপসের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন করে তাদের শ্রদ্ধাঞ্জলী জানান সৌমিত্র খাঁ সহ অন্যান্য বিজেপি কার্যকর্তারা। তারপর তিনি বলেন, দাড়িভিটের একটি স্কুলে উর্দু শিক্ষকের পরিবর্তে বাংলার শিক্ষক চেয়েছিল শিক্ষার্থীরা। বাংলা ভাষার দাবীতে আন্দোলন করতে গিয়ে শহীদ হতে হল দুই ছাত্রকে। তাদের পরিবার এখনও তাদের সন্তানের মৃত্যুর জন্য দায়ী যারা তাদের শাস্তি পান নি। মুখ্যমন্ত্রীকে শিলিগুড়ি ঢোকার আগে বাগডোগরা এয়ারপোর্টে এর জবাব দিতে হবে। কেন দুই ছাত্রের মৃত্যুর জন্য যারা দোষি তাদের গ্রেফতার করা হল না। কেন দুই আদিবাসীদের ধর্ষিতা হতে হল। আগে জবাব দেবেন তারপর শিলিগুড়ি ঢুকবেন।

যদিও বিজেপির তরফে মুখ্যমন্ত্রীর পথ আটকানোর বিষয়ে কোনো পরিকল্পনা রয়েছে কিনা সে বিষয়ে স্পষ্ট করে সৌমিত্র খাঁ কিছু বলেন নি। তার বক্তব্য এদিন সমস্ত যুব মোর্চার সাথে মিটিং করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। পাশাপাশি তিনি অভিযোগ করে বলেন, উত্তরবঙ্গের পাহাড় ও সমতলের কোনো সমস্যার সমাধান করে নি রাজ্য সরকার এমনকি চা শ্রমিকের সমস্যারও কোনো সমাধান করা হয় নি। মুখ্যমন্ত্রীর আসার একটাই কারণ ঘোড়া কেনা বেচা করা। হেমতাবাদের বিধায়ক খুন হয়েছে সেখানে কি করে তৃনমূলের বিধায়ক করা যায় তার জন্য পুলিশকে লক্ষ লক্ষ কোটি কোটি টাকা ঘুষ দিতে আসছেন।

পাশাপাশি তিনি অভিযোগ করে আরও বলেন, মুর্শিদাবাদে ও মালদায় তার আমলে আলকায়দা জঙ্গী তৈরি হয়েছে। মুর্শিদাবাদ থেকে ছজন আলকায়দা জঙ্গীর হসিশ পাওয়া গিয়েছে। তার আমলে কেন রাজ্যে আলকায়দা জঙ্গী তৈরি হচ্ছে তার জবাব দিতে হবে মুখ্যমন্ত্রীকে। গত শনিবার শিলিগুড়ির হাসমিচকে বিজেপির মিছিলকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও বিজেপি কার্যকর্তাদের সাথে এক প্রকার খণ্ডযুদ্ধ শুরু হয়। এই মিছিলে পা মেলাতে এসেছিলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু, অগ্নিমিত্রা পাল সহ সৌমিত্র খাঁ। শিলিগুড়ির শান্তি ভঙ্গ করার অভিযোগ সহ কুরুচিপূর্ণ ভাষার অভিযোগে সায়ন্তন বসু, বিজেপি রাজ্য সাধারণ সম্পাদক রথীন্দ্র বোস সহ সৌমিত্র খাঁর নামে থানায় এফআইআর করেছে তৃণমূল। সে প্রসঙ্গে তার বক্তব্য, “এমন এফআইআর আমার নামে আরও ২৮ টা করা হয়েছে। এটাকে আমি প্রেমপত্র বলে মনে করি। এফআইআরে আমরা ভয় পাই না। এতে আমাদের ভাঙতেও পারবে না মচকাতেও পারবে না। আমরা আমাদের আন্দোলন চালিয়ে যাব।

Related Articles

Back to top button
Close