fbpx
দেশহেডলাইন

চিকিৎসার গাফিলতিতে সদ‍্যোজাতের মৃত্যুর অভিযোগ, শোকজ ৩ স্বাস্থ্যকর্মীকে

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: প্লাবনের জলে ভেসে গেছে গ্ৰাম, তাই এক রকম বাধ্য হয়েই এক অন্তঃসত্ত্বা মহিলাকে রান্নার গামলায় চাপিয়ে হাসপাতালে নিয়ে গেলেন আত্মীয়রা। কিন্তু দুর্ভাগ্য, হাসপাতালে ডাক্তারদের অবহেলার কারণে সন্তান জন্ম নিলেও বাঁচেনি সেই শিশুটি। এমনটাই অভিযোগ পরিবারের। ঘটনাটি ঘটেছে ছত্তিশগড়ের বিজাপুরে। জানাগেছে, তাদের গ্ৰাম থেকে নিকটতম হাসপাতাল ১৫ কিলোমিটার দূরে।

প্রসূতির স্বামী হরিশ ইয়ালম ভোপালপতলম টাউনের কমিউনিটি হাসপাতালের চিকিৎসকদের দিকে আঙুল তুলেছেন। জানিয়েছেন, যন্ত্রণায় ছটফট করছিলেন স্ত্রী লক্ষ্মী। হাসপাতালে চিকিৎসক ছিলেন না। স্বাস্থ্যকর্মীরা হাত গুটিয়ে চিকিৎসকের অপেক্ষায় বসেছিলেন। সময়মতো চিকিৎসক এলে সদ্যোজাতকে বাঁচানো যেত।

লক্ষ্মীর বয়স ৩৫। চার বছর আগে ৩৩ বছরের হরিশের সঙ্গে বিয়ে হয় তাঁর। এই প্রথম বার সন্তানধারণ করেছিলেন তিনি। এমনিতে তাঁরা বিজাপুর থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে মামিদগুড়ায় থাকেন। কিন্তু হালপাতাল কাছে বলে এই সময়টায় লক্ষ্মী নিজের বাপের বাড়ি মিনুর গ্রামে থাকছিলেন। সেখান থেকে ভোপালপতনম স্বাস্থ্যকেন্দ্রের দূরত্ব ১৫ কিলোমিটার। বিজাপুরের তহশীল টাউন হল ভোপালপতনম।

এই বিষয়ে ব্লক মেডিক্যাল অফিসারের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন লক্ষ্মীর স্বামী হরিশ। কাজ না হলে জেলাশাসকের দ্বারস্থ হবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। বিএমও অজয় রামটেকে জানিয়েছেন, অভিযোগ পেয়ে ওই হাসপাতালের তিন স্বাস্থ্যকর্মীকে শোকজ নোটিস পাঠানো হয়েছে। সেই রাতে কী হয়েছিল, তা নিয়ে তদন্ত চলছে। প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা হবে। যদিও হরিশ জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত বিএমও–র দপ্তরের তরফে কিছুই জানানো হয়নি তাঁকে।

Related Articles

Back to top button
Close