fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দুই শিশুকে নিয়ে পর্ন ভিডিও শুটিং করে ভাইরাল করার অভিযোগে গ্রেফতার পরিচালক

মিলন পণ্ডা, রামনগর (পূর্ব মেদিনীপুর): খাবারের প্রলোভন দেখিয়ে দুটি শিশুকে নিয়ে পর্ণ ভিডিও করার অভিযোগে অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়লো গুনধর পরিচালক। কয়েকদিনের মধ্যেই সেই ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার রামনগর থানার সাহাপুর গ্রামে।

আট বছরের শিশুকন্যার বাবার অভিযোগে ভিওিতে পুলিশ গুনধর পরিচালককে গ্রেফতার করে। বুধবার রামনগর থানার পুলিশ গুনধর পরিচালক সুশোভন মণ্ডলকে গ্রেফতার পর বৃহস্পতিবার অভিযুক্তকে তমলুক জেলা আদালতে তোলা হলে বিচারক তার জামিন নাকচ করে দেন। পুলিশ জানিয়েছে ধৃত যুবকের বাড়ি রামনগর থানার ইসলামপুর গ্রামে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূএে জানা গিয়েছে, লক ডাউনের মাঝে রামনগরের সাহাপুরে মামার বাড়িতে বেড়াতে আসে সুশোভন। সেখানে পর্ন ভিডিও বানানোর পরিকল্পনা করে। সেখানে নয় বছরের মেয়ে ও আট বছরের ছেলেকে পর্ন ভিডিও তৈরি করার জন্য ডাকে। দুইজনকে দামী একাধিক চকলেট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। এরপর দুজনকে নির্জন জায়গার নিয়ে গিয়ে পর্ন সুটিং করে। নিজের ফোনে পুরোটা ভিডিও রেকর্ডিং করে সুশোভন। ওই ভিডিওতে সুশোভন একাধিক নির্দেশ দিতে দেখা যায়।

ঘটনার কয়েকদিন পর সুশোভনের মোবাইল থেকে সেই ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়। এই ভিডিও সামনে আসার লক ডাউনে মাঝে গোটা রামনগরের ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।সেই ভাইরাল ভিডিও নয় বছরের শিশুকন্যার বাবার নজরে আসে। পরামর্শের জন্য এলাকায় তৃণমুলের উপপ্রধান তমালতরু মহাপাএের কাছে ছুটে যান। এরপর আট বছরের শিশুকন্যার বাবা রামনগর থানার একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগে ভিওিতে তদন্তে নামে রামনগর থানার পুলিশ। প্রাথমিক ভাবে ভিডিও যাচাই করে জানতে পারে এটাই সুশোভনের নাম জানতে পারে।

এই ঘটনার বেগতি বুঝে সুশোভন বাড়ি ছেড়ে আত্মগোপন করে। কিন্তু লক ডাউন থাকার কারনে জেলার বাইরে যেতে পারেনি ওই যুবক। বুধবার সন্ধ্যায় পুলিশের তদন্তকারী দল বাড়ি সংলগ্ন এলাকায় থেকে অভিযুক্ত সুশোভনকে গ্রেফতার করে। কাঁথির মহাকুমা পুলিশ আধিকারীক অভিশেষ চক্রবর্তী বলেন অভিযোগে ভিওিতে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুরো ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।এই ঘটনার আর কেউ যুক্ত রয়েছে কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ধৃত সুশোভনের বিরুদ্ধের পক্সো আইনের মামলার রুজু করেছে পুলিশ। এলাকায় তৃণমুলের উপপ্রধান তমালতরু দাসমহাপাএ বলেন এটি একটি ঘৃন্য জনক অপরাধ। অভিযুক্তের আইনানুগ শাস্তির দাবি জানায়।

Related Articles

Back to top button
Close