fbpx
গুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

লকডাউনের জেরে মাথায় হাত দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার লঙ্কা চাষিদের

বর্ণালী রায়; দক্ষিণ দিনাজপুর: লকডাউনের জেরে মাথায় হাত দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার লঙ্কা চাষিদের । বর্তমানে লঙ্কার বাজার চাহিদা তলানিতে, যার ফলে লঙ্কার দামও ঠেকেছে তলানিতে। বিপুল ক্ষতির মুখে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার লঙ্কা চাষিরা। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার উদ্যাণ পালন দফতর সূত্রে জানা গেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার প্রায় ৩২৬৫ হেক্টর জমিতে লঙ্কা চাষ হয়। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ৮টি ব্লকেই লঙ্কা চাষ হলেও মূলত গঙ্গারামপুর ব্লকের ফুলবাড়ি সংলগ্ন এলাকা এবং তপন ব্লকের চৌমনি, দীপখন্ডা সহ একাধিক এলাকায় বিপুল পরিমাণে লঙ্কা চাষ হয়।

জানা গেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার হাজার হাজার চাষি এই লঙ্কা চাষের সঙ্গে যুক্ত। এও জানা গেছে ঐ সমস্ত এলাকা থেকে ফলন হওয়া বিপুল পরিমাণ লঙ্কা জেলার বাজারগুলির চাহিদা মিটিয়ে পাড়ি জমাত উত্তরবঙ্গের অন্যান্য জেলা সহ বিহার ও ঝাড়খন্ডে। ফলে কৃষকদের পাশাপাশি লঙ্কা চাষ করে এবং লঙ্কা বিক্রি করে লাভের মুখ দেখত জেলার লঙ্কা চাষি থেকে শুরু করে কৃষি ব্যবসায়ীরা। কিন্তু লকডাউন চলার কারনে ভীন রাজ্য থেকে আসছে না লড়ি। ফলে উত্তরবঙ্গের গুটি কয়েক বাজার বাদে লঙ্কার বাজার চাহিদা দিন উত্তর যেমন ধুকছে তেমনি অপরদিকে লঙ্কার দামও তলানিতে ঠেকেছে। জানা গেছে বিগত বছরগুলিতে লঙ্কার দাম পাইকারি বাজারে ছিল যেখানে ৬০-৭০ টাকা প্রতি কেজি সেখানে পাইকারি বাজারে লঙ্কার দাম দাঁড়িয়েছে ৪-৫ টাকা প্রতি কেজি।

তপনের চৌমনি সংলগ্ন এলাকার লঙ্কাচাষি আক্তার সর্দার জানান লক ডাউনের কারনে তারা বিশাল ক্ষতির মুখে পড়েছেন। তিনি সংবাদমাধ্যমের মাধ্যমে সরকারের উদ্দেশ্যে আর্জি জানিয়ে বলেন সরকার আমাদের সমস্যাগুলি মেটাক, সরকার যদি আমাদের আর্থিক সহায়তা করে তাহলে আমাদের কিছু সমস্যা মিটবে, আমরা লোন নিয়ে চাষ করেছি, কিভাবে আমরা লোন শোধ করব। লঙ্কা চাষি ছাড়াও লঙ্কার বাজার চাহিদা ও দাম তলানিতে ঠেকায় ক্ষতির মুখে পড়েছে জেলার কৃষি ব্যবসায়ীরাও। কৃষি ব্যবসায়ী আনারুল সরকার জানিয়েছেন চাষিদের কাছ থেকে কেজি প্রতি ৪ টাকা দরে লঙ্কা কিনে সেই লঙ্কা অন্যান্য জেলাতে গাড়ি করে পাঠাতে তাদের খরচ হচ্ছে কেজি প্রতি ৭ টাকা অর্থাৎ মোট খরচ হচ্ছে ১১ টাকা। তিনি বলেন ঐ লঙ্কা অন্যান্য জেলার পাইকারি বাজারে ৭-৮ টাকা কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ফলে তারাও বিপুল ক্ষতির মুখে পড়েছেন।

আরও পড়ুন: তিন মাসের বিদ্যুৎ বিল মুকুবের দাবিতে প্রতীকী অবস্থান বিজেপির যুব সংগঠনের

লঙ্কা ব্যবসায়ীদেরও সরকার তাদের কথা ভাবুক। লঙ্কা চাষিদের এহেন অবস্থায় কৃষি দপ্তরের পক্ষ থেকে কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে তা জানতে এদিন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার কৃষি আধিকারিক ডঃ জ্যোতির্ময় বিশ্বাস-এর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান বিষয়টি উদ্যাণ পালন বিভাগ অধীনস্থ বিষয়। অপরদিকে এই বিষয়ে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার উদ্যাণ পালন বিভাগের আধিকারিক সমরেন্দ্রনাথ খাড়া-র কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন তারা শুধুমাত্র লঙ্কা চাষের বিষয়টি দেখভাল করেন লঙ্কা বিক্রির বিষয়টি কৃষি বিপণন বিভাগ অধিনস্থ। এরপর কৃষি বিপণন বিভাগের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার আধিকারিকের কাছে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও যোগাযোগ না হওয়ায় জেলা কৃষি বিপণণ বিভাগের বক্তব্য জানা যায়নি। এমত অবস্থায় শোচনীয় ক্ষতির মুখে পড়ে সরকারের মুখ চেয়ে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার লঙ্কা চাষিরা।

Related Articles

Back to top button
Close