fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

করোনার সুযোগে প্রতিবেশী দেশগুলির ওপর হামলা চালাচ্ছে চিন, অভিযোগ আমেরিকার

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: এবার চিনের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ আনল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। করোনা আবহের সুজোগ নিয়ে ভারতের ওপর হামলা চালাচ্ছে চিন বলে অভিযোগ আনল মার্কিন কূটনীতিক ডেভিড স্টিলওয়েল। তিনি জানিয়েছেন যে, করোনা পরিস্থিতিতে যখন বিশ্বের প্রায় সব দেশের অবস্থা  শোচনীয়, তখনই চিন হামলার ঘটনা ঘটাচ্ছে।

ডেভিড স্টিলওয়েল ৩৫ বছর মার্কিন বায়ুসেনায় কর্মরত ছিলেন। ২০১১-১৩ সাল নাগাদ চিনের মার্কিন দূতাবাসের প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত পরামর্শদাতা হিসাবে কাজ করেছেন তিনি। তাই চিনের আগ্রাসন নীতি সম্পর্কে অবগত তিনি। বিগত কয়েকমাসে ভারতের প্রতি চিনের আগ্রাসন নীতি নিয়ে মন্তব্য করেছেন তিনি।

তিনি  জানিয়েছেন যে, প্রতিবেশী দেশগুলির উপর করোনা পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে চাপ সৃষ্টি করছে চিন। এর আগেও চিনের আগ্রাসন নীতি নিয়ে মুখ খুলেছিলেন মার্কিন স্টেট অব সেক্রেটারি মাইক পম্পেও।  শান্তিপূর্ণভাবে আলোচনার মাধ্যমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার বার্তা দিয়েছিলেন তিনি।

[আরও পড়ুন- ভারতে মহামারীর আকার নিচ্ছে আত্মহত্যার প্রবণতা! তৃতীয়স্থানে বাংলা]

উল্লেখ্য, গত ২৯ আগস্ট রাতে চিনা সেনা অতর্কিতভাবে ভারতে ভূখণ্ডে ঢোকার প্রচেষ্টা করে। ভারতীয় জওয়ানরা  তা রুখে দেয়।  গত মে মাসে গালওয়ান উপত্যাকায় চিন-ভারতের সংঘর্ষে ২০ জওয়ান শহিদ হন।
ফলে পরিস্থিতি বেশ জটিল। এই অবস্থায় লাদাখ সীমান্ত পরিদর্শন করেন সেনাপ্রধান এম এম নারাভানে। ভারতীয় সেনার অবস্থান ঘুরে দেখেন তিনি। জানা গিয়েছে যে, এই দুই দিনের সফরে ফিল্ড কমান্ডারদের সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি। যারা সেনা মোতায়েনের দায়িত্বে আছেন, তাদের কাছ থেকে পরিস্থিতি ও যুদ্ধ-প্রস্তুতি বুঝবেন।  চিনের উস্কানিমূলক পদক্ষেপের পর দক্ষিণ প্যাংগং লেক সংলগ্ন তিনটি স্ট্র্যাটেজিক লোকেশনে আরো নজরদারি বাড়িয়েছে ভারতীয় সেনা। পূর্ব লাদাখ জুড়ে জারি করা হয়েছে তীব্র সর্তকতা। প্রসঙ্গত, ২৯ এবং ৩১ আগস্ট লাদাখ সীমান্তে চিনা আগ্রাসনের পর প্যাংগং লেক সংলগ্ন এলাকায় সেনা সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। ভারত- চীন, ভারত- নেপাল এবং ভারত -ভুটান প্রত্যেকটি সীমান্তে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে কয়েক গুণ।

 

Related Articles

Back to top button
Close