fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা আক্রান্ত ছত্রধরকে গৃহবন্দি করে করোনা পরীক্ষা করানোর জন্য আদালতে আবেদন এনআইএ-র

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: হেফাজতে নেওয়ার আবেদন করেও শেষ মুহূর্তে আদালতে করোনা রিপোর্ট জমা দিয়ে ছত্রধর মাহাতো যে এভাবে হাতের বাইরে চলে যাবেন, তা ভাবতে পারেননি এনআইএ গোয়েন্দারা। বিশেষত সম্পূর্ণ সুস্থ ছত্রধর আচমকা কি ভাবে করোনা আক্রান্ত হলেন, সেই বিষয়টিই পরিষ্কার হচ্ছে না গোয়েন্দাদের কাছে। সেই কারণে এবার ছত্রধর মাহাতোকে তাদের হেফাজতে বা গৃহবন্দি রেখে লালারস সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষা করানোর দাবি জানাল এনআইএ।

তবে শুধু ছত্রধর মাহাতোই নয়, এনআইএ বিশেষ আদালতে ছত্রধরের পাশাপাশি দিলীপ মাহাতো, চন্দ্রশেখর মাহাতো, মৃণালকান্তি মাহাতো, বাজমনি টুডুদেরও গৃহবন্দি করার  আবেদন জানিয়েছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা। যদিও আগামী শুনানির দিন ১২ অক্টোবর এই ৫ জনেরই করোনা সংক্রান্ত রিপোর্ট পেশের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

প্রসঙ্গত, ২০০৯ সালে শালবনির সিপিআইএম নেতা প্রবীর মাহাতো খুনের মামলায় ছত্রধর সহ ২৭ জনের নামে চার্জশিট দেয় সিআইডি। আর ২৭ অক্টোবর, ২০০৯ সালে লালগড় বিস্ফোরণের মামলায় ছত্রধর মাহাতো জেলে থাকার সময় বাঁশতলায় রাজধানী এক্সপ্রেস আটকে বিক্ষোভ দেখায় পুলিশের সন্ত্রাস বিরোধী জনসাধারণের কমিটি। ২০০৮-০৯ সময়কালে মাও নাশকতার ছক, বেআইনি কার্যকলাপ সহ একাধিক ঘটনার নেপথ্যের কারণ জানতে ৩০ মার্চ ২০২০ কেন্দ্রের তরফে নির্দেশিকা জারি করা হয়। সেই নির্দেশিকা মেনে ছত্রধর মাহাতোকে নোটিস পাঠায় এনআইএ। সিআরপিসি ১৬০ ধারার নোটিশে গ্রেফতারির আশঙ্কা তৈরি হয়। এরপর ২৬ আগস্ট নগর দায়রা আদালতে ছত্রধরদের বিরুদ্ধে ইউএপিএ জুড়তে চেয়ে আবেদন করে এনআইএ।

[আরও পড়ুন- রাজ্যের আবেদন খারিজ, শান্তিনিকেতনে পৌষ মেলার মাঠে পাঁচিলের ওপর স্থগিতাদেশ দিল না কলকাতা হাইকোর্ট]

সোমবার বিশেষ আদালতে এনআইএ-র আইনজীবী শ্যামল ঘোষ জানান, ২৬ আগস্টের আদেশ মোতাবেক ইউএপিএ অভিযুক্ত ছত্রধর সহ ৫ জনের পুনরায় গ্রেফতার চায় এনআইএ। গ্রেফতার করে হেফাজতে নেওয়ার জন্য আদালত ছত্রধরদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করুক। এই সময় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বিশেষ আদালতের এজলাস।

ছত্রধর মাহাতোদের আইনজীবী দেবাশিস রায়, কৌশিক সিনহা, শশিকান্ত সিং-রা জানান, ইউএপিএ অন্তর্ভুক্তকরণ নিয়ম মেনে হয়নি। পর্যাপ্ত শুনানির সুযোগ পায়নি অভিযুক্তরা। এজলাসে অভিযুক্তদের রেখে শুনানির পর ইউএপিএ অন্তর্ভুক্ত হতে পারে। ছত্রধর মাহাতো করোনা আক্রান্ত। ঝাড়গ্রাম জেলা হাসপাতালের চিকিৎসকদের পরামর্শে গৃহ পর্যবেক্ষণে রয়েছে। বাকিরা ছত্রধরের সঙ্গে থাকায় স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে। তবে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ছত্রধর মাহাতো, এমনটা মানতে নারাজ এনআইএ। তাঁর দ্বিতীয় করোনা পরীক্ষা চায় সংস্থা। তাদের দাবি, শুক্রবার আদালতে এসেও হাজিরা দেননি ছত্রধর। তাঁর অসুস্থতার বিষয়টি অত্যন্ত সন্দেহজনক। তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হোক। এর পর ছত্রধরকে আপাতত গৃহবন্দি রাখার আবেদন জানানো হয় তবে আবেদন গ্রাহ্য করেননি বিচারক। মামলাটির পরবর্তী শুনানি ১২ অক্টোবর। পরবর্তী শুনানির আগে করোনা সংক্রমণ প্রমাণের নথি আদালতে জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

 

Related Articles

Back to top button
Close