fbpx
দেশবিজ্ঞান-প্রযুক্তিহেডলাইন

করোনার জের! প্রথমবার অনলাইনে সার্কাস

শরণানন্দ দাস: কলকাতা: ‘ দ্য শো মাস্ট গো অন’, এটাই শিল্পীর জীবন। ব্যক্তিগত শোক, দুঃখ, আবেগ জয় করে ‘ পারফর্ম’ করতে হবে শিল্পীকে। করোনার সংক্রমণ যেভাবে উর্দ্ধগামী তাতে শীতের অতিথি হিসাবে সার্কাসের তাঁবু পড়ার সম্ভাবনা কম। কিন্তু তাই বলে কি ট্র্যাপিজের রোমহর্ষক খেলা, জাগলিং, অ্যাক্রোব্যাট, জোকারদের দেখা যাবে না? এই প্রথমবার ডিজিট্যাল মাধ্যমে সার্কাসের আসর নিয়ে হাজির হচ্ছে দেশের অন্যতম বড়ো ও পুরনো সার্কাস কোম্পানি।

পুণের এই বিখ্যাত সার্কাস প্রথমবার ডিজিটাল মাধ্যমে এক ঘণ্টার একটি শো করতে চলেছে, যার শিরোনাম, ‘ লাইফ ইজ এ সার্কাস। সার্কাস কোম্পানির মালিক সুজিত দিলীপ জানিয়েছেন, আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে শোয়ের অনলাইন স্ট্রিমিং। তিনি বলেন, ‘ সার্কাসের সেই আগের দিন নেই। আশি, নব্বই দশকের সেই জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়তে শুরু করেছে বাঘ, সিংহ, হাতিদের খেলা বন্ধ হওয়ার পর থেকে। কিন্তু তার বিকল্প হিসেবে নতুন নতুন অ্যাক্রোব্যাটিক খেলা, ব্যালান্স আর ট্র্যাপিজের খেলায় নতুনত্ব এনেছি। লকডাউন পরিস্থিতিতে সবাই ঘরবন্দি, আইসোলেশনেও আছেন অনেকে। এই অবস্থায় অনলাইন সার্কাস জনপ্রিয়তা পাবে বলে আশা করি।’

আরও পড়ুন:ক্যানসার রোগীদের মুখে হাসি ফোটাতে নিজের মাথার চুল দান করলেন রায়গঞ্জের গৃহবধূ 

তিনি জানিয়েছেন, ‘ আমার সার্কাসে ৬০ জন শিল্পী। ডিজিটাল মাধ্যমে সবাই আনকোরা। কিন্তু সবাই খুব পরিশ্রম করছেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে কোভিড যোদ্ধাদের শ্রদ্ধা জানাব আমরা। সার্কাসের মাধ্যমে সামাজিক বার্তাও দেব।’

সত্যিই তো শিল্পের মৃত্যু নেই। করোনার এই দুঃসময়ে নতুন করে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখাচ্ছেন ওঁরা। শূন্যে ট্র্যাপিজের খেলা, রোমহর্ষক ব্যালান্সের খেলা, জোকারদের মজাদার খেলা দেখা যাবে ঘরের নিরাপদ আশ্রয়ে বসে। নিশ্চিতভাবেই ওঁদের এই প্রচেষ্টা অন্য পারফর্মিং আর্টিস্টদের প্রেরণা জোগাবে। আর সেই প্রেরণার বার্তা ‘ হাল ছেড়ো না বন্ধু’,,,

Related Articles

Back to top button
Close