fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

পার্কিং নিয়ে বচসা! মুখ্যমন্ত্রীর পাড়ার অদূরেই দুষ্কৃতীদের হাতে প্রহৃত যুবক, শ্যামপুকুরেও প্রহৃত তৃণমূল কর্মী

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: শহরের দুই প্রান্তে দুই পৃথক ঝামেলার জেরে প্রহৃত হতে হল দুই যুবককে। একদিকে কালীঘাট রোডে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির অদূরে পার্কিং নিয়ে ঝামেলার জেরে বেধড়ক মারধরে প্রহৃত হলেন এক যুবক। আবার অন্যদিকে রক্তদান শিবিরে মাংস ভাত খাওয়ার টাকা না দেওয়ায় মেরে চোখ ফাটিয়ে দেওয়া হল এক তৃণমূল কর্মীর।

জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে ৩৬৬ কালীঘাট রোডে থাকেন বছর ৬৭-এর সজল সাহা। বুধবার রাতে তাঁর বাড়ির সামনে কয়েকজন যুবক বাইক রাখলে তাতে আপত্তি জানান সজলবাবু। সেই সময়ই বাইকে বাড়ি ফেরেন ওই বৃদ্ধের ছেলে সঞ্জয়। তিনি নিজের বাবাকে বাঁচানোর চেষ্টা করলে অভিযুক্তরা সঞ্জয়ের উপর চড়াও হয়। তাকে বেধড়ক মারধর করা হয়। তিনি চোখে গুরুতর চোট পান। পরিবারের সদস্যরা ১০০ ডায়াল করলে কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় পুলিশ। তারপরে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা। জানা গিয়েছে, রাতের ঘটনার পর বৃহস্পতিবার সকালেও ওই বৃদ্ধের বাড়িতে ভাঙচুর চালিয়েছে বেশ কিছু পুরুষ ও মহিলা। যার জেরে আতঙ্কিত গোটা পরিবার।

এদিকে নিজে তৃণমূল কর্মী হয়েও তৃণমূল কর্মীদের হাতে প্রহৃত হতে হল এক যুবককে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার সকালে শ্যামপুর থানা এলাকার শ্যামবাজারে। জানা গিয়েছে,
তৃণমূল কর্মী জয় দাসের কাছে ১০ হাজার টাকা দাবি করে শ্যামপুকুরের যুব তৃণমূল প্রাক্তন সভাপতি খোকন দাসের অনুগামীরা। টাকা দিতে অস্বীকার করায় ওই কর্মীকে বেধড়ক মারধর করা হয়। মারের চোটে চোখ ফেটে যায় ওই যুবকেরও। দুটি ক্ষেত্রেই পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করলেও কেউ গ্রেফতার হয়নি।

Related Articles

Back to top button
Close