fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সহপাঠী করোনা আক্রান্ত, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো পোস্ট করার অভিযোগ কাটোয়ার ছাত্রের বিরুদ্ধে

দিব্যেন্দু রায়,কাটোয়া: সহপাঠী করোনা আক্রান্ত বলে ছবিসহ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো পোষ্ট করেছিল পূর্ব বর্ধমান জেলার কাটোয়ার কাশীরামদাস ইন্সটিটিউশনের নবম শ্রেণির এক ছাত্র। তার জেরে চরম বিপাকে পড়তে হয় কাটোয়া পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের আতুহাট এলাকার বাসিন্দা ওই ছাত্রের পরিবারকে । কারন করোনা আক্রান্ত হওয়ার ভুয়ো খবর সত্যি মনে করে প্রতিবেশীরা পরিবারটিকে কার্যত একঘরে করে দেয় । এরপর শুক্রবার ছাত্রটির বাবা এনিয়ে কাটোয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। জানা গেছে, অভিযোগ দায়েরর পর অভিযুক্ত ছাত্র ও তার বাবাকে থানায় ডেকে পাঠানো হয়। শেষে ছাত্রের বাবা মুচলেকা দিয়ে ক্ষমা চাইলে অভিযুক্তকে ছেড়ে দেওয়া হয় । পাশাপাশি অভিযুক্ত ছাত্রকে দিয়ে তার হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপ ও ইনস্ট্রাগাম থেকে ভুয়ো পোস্টটি মোছা করায় পুলিশ ।

জানা গেছে, অভিযুক্ত ছাত্রের বাবা কাশীরামদাস ইন্সটিটিউশনে শিক্ষকতা করেন। অন্যদিকে অভিযুক্তের সহপাঠী আতুহাটের বাসিন্দা নবম শ্রেণির ওই ছাত্রের বাবার ওষুধের দোকান রয়েছে । স্থানীয় সূত্রে খবর, স্কুল শিক্ষকের ছেলে তার ইনস্ট্রাগামে এবং হোয়াটসআ্যপ গ্রুপে তার সহপাঠী আতুহাটের ওই ছেলেটির ছবি ও ঠিকানাসহ পোষ্ট করে লেখে, “এই ছেলেটির করোনা পজিটিভ পাওয়া গিয়েছে। বাড়ি কাটোয়ায় । সুতরাং কাটোয়াবাসী সতর্ক হন।’

আরও পড়ুন: আবারও রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার দেখতে পাবেন পর্যটকেরা, খুলে দেওয়া হবে সুন্দরবনের পর্যটন কেন্দ্রগুলি

আতুহাটের ছাত্রের বাবা বলেন, “বৃহস্পতিবার থেকে লক্ষ্য করছিলাম প্রতিবেশীরা আমাদের এড়িয়ে যাচ্ছে। আমাদের দেখলেই সব ছুটে পালাচ্ছে । পরে খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারি আমার ছেলের করোনা হয়েছে বলে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ও ইনস্ট্রাগামে ভুয়ো পোস্ট করেছে ছেলের সহপাঠী। তখন বুঝতে পারি প্রতিবেশিরা কেন আমাদের দেখে ছুটে পালাচ্ছিল । এরপর আমি থানায় অভিযোগ জানাই। তবে ছেলেটি ও তার বাবা ক্ষমা চেয়ে নেওয়ায় আর বেশিদূর এগোতে চাইনি। ছেলেটির ভবিষ্যত নষ্ট হয়ে যাবে এই ভেবে আমি অভিযোগ তুলে নিয়েছি।

Related Articles

Back to top button
Close